টেকনাফে স্কুল ছাত্রীকে অপরহণ ॥ থানায় মামলা

প্রকাশ: ২৮ জুন, ২০১২ ৪:১৪ : অপরাহ্ণ

ছৈয়দ আলম, টেকনাফ ………টেকনাফে প্রভাবশালী ভাসমান রোহিঙ্গা কর্তৃক অপ্রাপ্ত বয়স্ক এক স্কুল ছাত্রীকে অপহরণের পর ধর্মান্তরিত করে বিয়ে করার অভিযোগ তুলেছে  সনাতনধর্মালম্বী পিতা। এ ঘটনায় থানায় মামলার পর হাইকোর্ট থেকে জামিন নিয়ে মামলা তুলে নিতে আসামীদের হুমকি-ধমকিতে প্রাণনাশের ভয়ে ফের থানায় জিডি করেছে বাদী পক্ষ।  থানায় মামলা ও জিডি’র এজাহার সূত্রে জানা যায়, উপজেলার হ্নীলা ইউনিয়নের জাদিমুরা এলাকার দুলাল ধরের অপ্রাপ্তবয়স্ক  মেয়ে স্থানীয় হ্নীলা হাই স্কুলের ছাত্রী মঞ্জুরাণী ধরকে (১৪) দীর্ঘদিন ধরে একই এলাকার ভাসমান রোহিঙ্গা আবদুল কাদেরের পুত্র মোঃ জাবেদ (২২) স্কুলে আসা-যাওয়ার পথে প্রায় সময় বিভিন্ন ধরণের কটুক্তি ব্যবহার, কূ-প্রস্তাব ও অশ্লীল অঙ্গভঙ্গির মাধ্যমে উত্যেক্ত করে আসছিল। একপর্যায়ে গত ১ জুন ওই ছাত্রী সকাল ৯টার দিকে নিজ বাড়ী থেকে প্রভুধরের বাড়ীতে যাওয়ার পথে উক্ত জাবেদ তার সাঙ্গপাঙ্গদের নিয়ে অপহরণ করে নিয়ে যায়। পরের দিন ছাত্রীর চাচা সোলাল ধর বাদী হয়ে ৬ জনের বিরুদ্ধে টেকনাফ থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা (নং-৫/৩৪৭) দায়ের করে। এর পর দিন মেয়েকে জোরপূর্বক অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে ধর্মান্তরিত করে বিয়ে সম্পন্ন করে। পরে ১৯ জুন হাইকোর্ট থেকে আসামীরা অর্ন্তবর্তীকালীন জামিনে এসে এলাকায় বাদী ও তার আত্মীয়-স্বজনকে মামলা তুলে নিতে বিভিন্ন ধরণের হুমকি-ধমকি ও প্রাণনাশের ভয় দেখাচ্ছে। জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে বাদীপক্ষ বৃহস্পতিবার থানায় ফের জিডি (১৩০৭) করেছে।

ছাত্রীর পিতা দুলাল ধর জানান, অপহরণের ২৭ দিন পার হলেও এখনো পর্যন্ত কোন খোঁজ মিলেনি। উল্টো ওই এলাকায় আমরা সংখ্যালঘু হিন্দু ধর্মালম্বী মাত্র ৭ ঘর থাকায় অপহরণকারীরা মামলা তুলে নিতে অব্যাহত হুমকি দিচ্ছে। অন্যথায় আমাদের এলাকা ছাড়া করবে বলে শাসাচ্ছে।

মামলার আইও টেকনাফ থানার সেকেন্ড অফিসার রাজিব সাহা মামলা ও জিডির সত্যতা নিশ্চিত করে মামলা বিষয়ে তথ্য প্রকাশে অনীহা প্রকাশ করেন।

টে#######################

ছৈয়দ আলম,

টেকনাফ ॥

মোবাইল নং-০১৮১৯-০৩৬৪৬০


সর্বশেষ সংবাদ