ফিচার লেখা প্রতিযোগিতায় বিজয়ী ১১ জন পেলেন কাজের সুযোগ

প্রকাশ: ২৮ জুলাই, ২০১৫ ১০:৩৫ : অপরাহ্ণ

সাইফুল্লাহ সাদেক = কক্সবাজার জেলা পরিষদ সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত দিনব্যাপী মৌলিক সাংবাদিকতা প্রশিক্ষণ কর্মশালা পরবর্তী ফিচার লেখা প্রতিযোগিতায় বিজয়ী সেরা ১১জনকে স্থানীয় ও জাতীয় বিভিন্ন পত্রিকায় শিক্ষানবিস সাংবাদিক হিসেবে কাজ করার সুযোগ করে দিয়েছে ‘রোড টু ইথিকস জার্নালিজম-বাংলাদেশ’।
বিজয়ীদের সুযোগ প্রদান উপলক্ষে সংগঠনটি ২৮ জুলাই মঙ্গলবার কক্সবাজারের জনপ্রিয় অনলাইন পোর্টাল সিটিএন অফিসে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। বিকাল ৪টায় রোড টু ইথিকস জার্নালিজম-বাংলাদেশের অন্যতম একজন সংগঠক ও দৈনিক সকালের কক্সবাজারের সিনিয়র রিপোর্টার মোহাম্মদ হোসাইনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানটি শুরু হয়। শুরুতে পবিত্র কুরআন থেকে তেলাওয়াত করেন হাফেজ মুহাম্মদ আবুল মঞ্জুর।
কক্সবাজারের প্রথম ও সর্বাধিক পঠিত অনলইন পোর্টাল কক্সবাজার নিউজ ডটকমের সম্পাদক অধ্যাপক আকতার চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানের শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন ‘রোড টু ইথিকস জার্নালিজম- বাংলাদেশে’র আহ্বায়ক, গবেষক সাইফুল্লাহ সাদেক। এতে বিশিষ্ট অতিথি হিসেবে নবীন সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে দিকনির্দেশনামূলক বক্তব্য রাখেন দৈনিক সমুদ্রকণ্ঠের সম্পাদক অধ্যাপক মঈনুল হাসান পলাশ, দৈনিক হিমছড়ি পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক হাসানুর রশিদ ও দৈনিক সকালের কক্সবাজারের সম্পাদক ফরহাদ ইকবাল । এসময় উপস্থিত ছিলেন সিটিএন-এর প্রধান সম্পাদক সরওয়ার আলম, সিবিএন’র হেড অব মার্কেটিং মীর হোসাইন ও সাংবাদিক মহিউদ্দীন মাহী।
অনুষ্ঠানে বক্তারা রোড টু ইথিকস জার্নালিজম বাংলাদেশের আয়োজনের প্রশংসা করে বলেন, ইতোপূর্বে কক্সবাজারে সাংবাদিকদের অনেক প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হলেও প্রশিক্ষণ শেষে নতুনদের কাজের সুযোগ সৃষ্টির এধরনের কোন কার্যকর পদক্ষেপ দেখা যায়নি। সাংবাদিকতার চ্যালেঞ্জিং পেশায় দায়িত্ব পালনের জন্য দক্ষ জনবল তৈরি এবং পদসৃষ্টির লক্ষ্যে রোড টু ইথিকস জার্নালিজম-বাংলাদেশের এই পদক্ষেপ অবশ্যই প্রশংসার দাবী রাখে।
বক্তারা বলেন, সাংবাদিকতায় অনেকেই আসেন। কিন্তু বেশিদিন টিকতে পারে না কিংবা অনেকেই ভুল পথে চলে যায়। এই পেশায় সৎমনোভাব নিয়ে টিকে থাকা সেই সাথে দলমতের ঊর্ধ্বে উঠে কাজ করার সুদঢ় মানসিকতা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। নৈতিক অবস্থান অটুট রেখে সাংবাদিকতা করলে একজন সংবাদকর্মী কখনোই ভুল পথে পা বাড়াতে পারে না বলে মতব্যক্ত করেন বক্তারা। নবীনদের উদ্দেশে বক্তারা বলেন, শুধুমাত্র একদিনের বা একবার প্রশিক্ষণেই সাংবাদিকতা শেখা যায় না। এর জন্য প্রয়োজন আরো প্রশিক্ষণ, প্রয়োজন প্রতিদিন জাতীয় পত্রিকা পাঠ এবং সে অনুযায়ী নিয়মিত অনুশীলন করা।
অনুষ্ঠানের শেষ পর্যায়ে বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করা হয় এবং স্থানীয় ও জাতীয় বিভিন্ন পত্রিকায় সুযোগ প্রদানের কথা ঘোষণা করা হয়। বিজয়ীরা হলেন মো. নুরুল আমিন, নাঈম শারেক, মুহাম্মদ ওনাইছ, মুহাম্মদ আবুল মঞ্জুর, জাহিন আরফান সাদেক, মো. নাছির উদ্দিন, মো. কামাল, এহসানুল হক, খলিল উল্লাহ ফুরকান, রফিকুল ইসলাম ও তারেক রানা। তারা দৈনিক সমুদ্রকণ্ঠ, দৈনিক হিমছড়ি, দৈনিক সকালের কক্সবাজার, সিবিএন, সিটিএন এবং জাতীয় পর্যায়ের অনলাইন আমার বাংলাদেশ অনলাইন ডটকম ও মাই বাংলা টাইমসে শিক্ষানবিস সাংবাদিক হিসেবে কাজ করবেন।
উল্লেখ্য, রোড টু ইথিকস জার্নালিজম-বাংলাদেশের উদ্যোগে আয়োজিত ওই প্রশিক্ষণ কর্মশালা ও ফিচার লেখা প্রতিযোগিতায় প্রধান প্রশিক্ষক ছিলেন বিশিষ্ট মিডিয়া ব্যক্তিত্ব, শিল্পী, সুরকার আমিরুল মোমেনিন মানিক। এছাড়াও স্থানীয় অভিজ্ঞ সাংবাদিক নেতারা সহপ্রশিক্ষক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। উপস্থিত ছিলেন দৈনিক আজকের কক্সবাজারের সম্পাদক ও পৌর আওয়ামীলীগ সভাপতি মুজিবুর রহমান, পৌর মেয়র সরওয়ার কামাল, জেলা তথ্য অফিসার আহসান কবির প্রমুখ। ফিচার লেখায় অংশ নেওয়া ৫৮জনের মধ্য থেকে ১৮জনকে প্রাথমিক বাছাইয়ে উত্তীর্ণ ঘোষণা করা হয়, যেখান থেকে সেরা ১১জনকে প্রদান করা হলো কাজের সুযোগ।

বার্তা প্রেরক
সাইফুল্লাহ সাদেক
কক্সবাজার


সর্বশেষ সংবাদ