সাগর পথে মালয়েশিয়া পাড়ি-নিখোঁজ স্বজনদের আহাজারি

প্রকাশ: ১৪ মে, ২০১৫ ৪:৫৩ : অপরাহ্ণ

জিয়াবুল হক , টেকনাফ ##

টেকনাফের মালয়েশিয়াগামী দীর্ঘ কয়েক বছর ধরে নিখোঁজ রয়েছে। অতি সম্প্রতি উপজেলার সদর ইউনিয়নের নাজির পাড়ার হ্নীলা ইউনিয়নের উলুচামরী হামচার ছড়া এলাকায় সরেজমিন গিয়ে নিখোঁজদের মাদের সাথে কথা বলে তথ্য পাওয়া গেছে। এরা পর¯পর আতœীয় স্বজন। তাদের ফিরে পাবার উপক্ষোয় প্রহর গুনছে নিখোঁজদের পরিবার । সম্প্রতি থাইল্যান্ডের জঙ্গলে গণকবরের সন্ধান নিয়ে তাদের পরিবারের কাছে পৌঁছলে আহাজারিতে ফেটে পড়ে পরিবারসমূহ। তাদের ছেলে মেয়েদের মধ্যে নেমে আসে শোকের ছাঁয়া।
খোঁজ খবর নিয়ে জানা গেছে, গত প্রায় ২ বছর পূর্বে স্বপেরœ দেশ মালয়েশিয়া পাঁড়ি জামানোর উদ্দেশ্যে বাড়ি ও পরিবার পরিজন ত্যাগ করেছিলেন সদর ইউনিয়নের নাজির দুদু মিয়ার ছুরা খাতুনের এক মাত্র সস্তান আবদু শুক্কুর প্রকাশ বেচ্ছুয়া (৩৫) হ্নীলা ইউনিয়নের উলুচামরী হামজার ছড়া এলাকার মৃত ছৈয়দ আলমের ছেলে বাদশাহ মিয়া (২৯) রসুল্লাহবাদ এলাকার ফরিদ আলমের ছেলে জয়নাল (২০) লেঙ্গুরবিল এলাকার ফজল আহমদের ছেলে মো. হেলাল (১৮) টেকনাফ উপজেলার আরো অনেকে। দীর্ঘ ২ বছরের অধিক সময় ধরে নিখোঁজে থাকা পরিবার ছেলে মেয়েদের নিয়ে চলছে অভাব অনটন এবং না খেয়ে উপোস থাকার পালা। শিক্ষা দ্বীক্ষায় পিছিয়ে রয়েছে ওইসব পরিবারের ছেলে মেয়েরা। উল্লেখ্য থাইল্যন্ডের জঙ্গলে গণকবর থেকে লাশের সন্ধান ওইসব পরিবার সমূহে পৌঁছলে তাদের আহাজারিতে ধ্বনিত হচ্ছে আকাশ বাতাস।
নিখোঁজ আবদু শুক্কুর এর মা ছুরা খাতুন জানান, গত ২ বছর ধরে আমার ছেলে মালয়েশিয়ার উদ্দেশ্য বাড়ি ঘর ত্যাগ করেছিল, তখন থেকে আমরা তাকে খোঁজ পাওয়া যায়নি। তিনি আরো জানান আমার ছেলের বউ ও চারটি নাতি রয়েছে তাদের দিনে এক বেলা খাওয়াতে না কষ্ট হচ্ছে। এলাকার মানুষের দারে কত যেতে পারে বার বার কি তারা আমাদের দেখবে নাকি যদি আমার ছেলেটি পিরে আসতো তাহলে সংসার চালাতে কষ্ট হতো
নিখোঁজ মো. জয়নালের পিতা ফরিদ আলম বলেন, টেকনাফ পেীরসভায় বাড়ির জন্য বাজার করতে গিয়ে আমার ছেলে মালয়েশিয়া পাড়ি দেবে কে জানে । তখন থেকে তার আর কোন হদিস পাওয়া যায়নি।
এব্যাপারে টেকনাফ মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. আতাউর রহমান খন্দকার জানান- দালাল ও মালয়েশিয়াগীদের আটক অভিযান অব্যাহত রয়েছে। আগের তুলনায় এ অভিযান ব্যাপক ও জোরদার হয়েছে।


সর্বশেষ সংবাদ