টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!

রাশিয়ার সঙ্গে অস্ত্র চুক্তি, উৎকণ্ঠায় বিএনপি

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : শুক্রবার, ১৮ জানুয়ারি, ২০১৩
  • ১৪৯ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

ঢাকা: রাশিয়ার সঙ্গে বাংলাদেশের অস্ত্র চুক্তিতে প্রধান বিরোধীদল বিএনপি চরম উৎকন্ঠায় রয়েছে। দলটির নেতারা এ চুক্তিকে সরকারের উচ্চ কমিশন প্রাপ্তির উপায় মনে করছেন।

তাদের উৎকন্ঠা বেশি চুক্তির কঠিন সব শর্ত নিয়ে। এসব শর্ত জনগণের ওপর মারাত্মক চাপ হয়ে দেখা দেবে বলে আশংকা করছেন তারা।

চুক্তি প্রসঙ্গে শুক্রবার সরকারের কঠোর সমালোচনা করেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ।

তিনি বলেন, “বড় কমিশন পেয়ে বড়লোক হতেই সরকার রাশিয়ার সঙ্গে ৩ চুক্তি ও ৬ সমঝোতা স্বাক্ষর করেছে।”

এদিন বিকেলে জাতীয় প্রেস ক্লাবে এক আলোচনায় তিনি এ অভিযোগ করেন।

মওদুদ বলেন, “এমন আত্মঘাতী ঋণ কোনো সরকার নেয় না। এ সরকার নিয়েছে। কারণ, তারা বড় কমিশন পাবেন, বড়লোক হবেন। এ চুক্তি দিয়ে সরকারের জন্য বড় দুর্নীতির সুযোগ তৈরি হলো।”

তিনি আরও বলেন, “এসব চুক্তির সঙ্গে দুর্নীতি জড়িত। চুক্তিগুলোর সুফল জনগণ কোনোদিনই পাবে না।”

সর্বোচ্চ সুদে এ ঋণ নেওয়া হচ্ছে জানিয়ে তিনি বলেন, “১২ হাজার কোটি টাকা ঋণ দেবে রাশিয়া। কিন্তু তারা শর্ত বেঁধে দিয়েছে, অস্ত্র কিনতে হবে ও পারমাণবিক ২ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের সমীক্ষা ও পরীক্ষা চালাতে হবে। অথচ এজন্য ২০২০ সাল পর্যন্ত সময় লাগবে। ততো দিনে সঙ্কট আরো বেশি হবে।”

মওদুদ বলেন, “এসব চুক্তি করার আগে আমাদের সঙ্গে না হোক অন্তত সংসদে আলোচনা করতে পারতো সরকার। জনগণের কাছে এসব চুক্তির শর্তসহ বিস্তারিত তুলে ধরা উচিত ছিলো। তাহলে আমাদের দেশের বিশেষজ্ঞরা এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় পরামর্শ দিতে পারতেন।”

এসব চুক্তি করা উচিত হয়নি – মন্তব্য করে তিনি বলেন, “চুক্তির শর্তগুলো জাতীয় স্বার্থের সম্পূর্ণ পরিপন্থি।”

সরকার তাদের দুর্নীতি ও এক দলীয় শাসনের ধারাবাহিকতায় এসব চুক্তি করেছে বলে অভিযোগ করে তিনি বলেন, “জনগণ ১৬ কোটি থেকে যখন ২০ কোটি হবে, তখনও তাদের এ ঋণের বোঝা বয়ে বেড়াতে হবে।”

এদিকে বিকেলেই জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে দলের স্থায়ী কমিটির আরেক সদস্য ড. আবদুল মঈন খান বলেন, “বিরোধীদলের আন্দোলন দমাতেই সরকার রাশিয়া থেকে অস্ত্র কিনতে যাচ্ছে।”

এর আগে সকালে গুলশানে নিজের বাসায় ডাকা সংবাদ সম্মেলনে বিরোধীদলীয় চিফ হুইপ জয়নুল আবদিন ফারুক বলেন, “দেশের প্রতি, জনগণের প্রতি সরকারের আস্থা নেই। এ কারণে রাশিয়ার কাছ থেকে অস্ত্র কিনছেন তারা। অস্ত্রের বলে এ সরকার টিকে থাকতে চায়।”

ফারুক বলেন, “সরকার জনপ্রিয়তা হারিয়েছে। এখন জোর করে, ছলে বলে কৌশলে ও অস্ত্রের বলে ক্ষমতা ধরে রাখতে চাইছে।”

বিএনপির অন্য নেতারাও বিভিন্ন আলোচনায় উৎকন্ঠা প্রকাশ করেছেন চুক্তির শর্ত ও উদ্দেশ্য নিয়ে।

বস্তুত সরকার তাদের শেষ সময়ে শুধুই নিজেদের স্বার্থে এ চুক্তি করেছে বলেই অভিযোগ দলটির নেতাদের।

তাদের মতে, জনগণকে না জানিয়ে, চুক্তির বিষয়ে কোনো আলোচনা না করেই এমন ‘ভয়ংকর’ চুক্তি করা ঠিক হয়নি সরকারের। এতে দেশ বড় ধরনের ক্ষতির মুখে পড়বে।

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT