টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!

ইতারতাস’কে প্রধানমন্ত্রী…রাশিয়া বরাবরই আমাদের বিশ্বস্ত বন্ধু

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : সোমবার, ১৪ জানুয়ারি, ২০১৩
  • ২৪০ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

undefinedঢাকা: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, “রাশিয়া বরাবরই বাংলাদেশের বিশ্বস্ত বন্ধু। একাত্তরের স্বাধীনতা যুদ্ধে যখন সোভিয়েত ইউনিয়ন আমাদের মানুষদের পাশে দাঁড়িয়েছিল, তখনই সেটা স্পষ্টভাবে প্রমাণ হয়ে গেছে।”

রাশিয়া সফরকে সামনে রেখে রাশিয়ার শীর্ষস্থানীয় সংবাদমাধ্যম ইতারতাসকে দেওয়া এক বিশেষ সাক্ষাৎকারে এ কথা বলেন তিনি।

সংবাদমাধ্যমটি সোমবার এ সাক্ষাৎকার প্রকাশ করে ।

প্রধানমন্ত্রী রাশিয়ার তৎকালীন নেতৃবৃন্দের সঙ্গে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুসম্পর্কের কথা উল্লেখ করে বলেন, “প্রতিবার যুদ্ধের কথা মনে করার সময় আমরা রাশিয়ার সাহায্যের কথাও স্মরণ করি।”

রাশিয়া সফর নিয়ে তিনি খুবই আশাবাদী জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, “অবশ্যই এর ফলে আমাদের ভবিষ্যৎ সম্পর্ক আরও মজবুত হবে।”

তিনি বলেন, “সোভিয়েত ইউনিয়ন যুদ্ধের পরেও চট্টগ্রাম বন্দর থেকে মাইন অপসারণ করতে সহায়তা করেছে।” সেসময় নিহত তিন সোভিয়েত ডুবুরিকে স্মরণ করে তিনি বলেন, “আমরা এখনও সেসব ভুলে যাই নি। এসব ঘটনা মনে রাখা আমরা আমাদের কর্তব্য মনে করি।”

জাতিসংঘেও সোভিয়েত ইউনিয়ন বাংলাদেশকে সমর্থন দিয়েছিল উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, “যারা আমাদের প্রয়োজনের সময় ভুলে যায় নি, তাদের সঙ্গে সুসম্পর্ক বজায় রাখা আমাদের কর্তব্য।”

ভারতের মতো প্রতিবেশী দেশগুলোর সঙ্গে বাংলাদেশের কোনো বিরোধ নেই দাবি করে তিনি বলেন, “বাংলাদেশের ভৌগোলিক অবস্থানের কারণেই সবার সঙ্গে সুসম্পর্ক রাখা প্রয়োজন।”

দারিদ্র্যকে বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় শত্রু উল্লেখ করে তিনি বলেন, “আমরা সার্কের মাধ্যমে একত্রে কাজ করার চেষ্টা করছি। আমি বন্ধুত্বের শক্তিতেই বিশ্বাসী, শত্রুতা কোনো সমাধান নয়।”

উল্লেখ্য, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তিন দিনের সফরে সোমবার রাশিয়া গেছেন। সকাল ৯টায় শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে বাংলাদেশ বিমানের একটি ফ্লাইটে মস্কো রওনা হন প্রধানমন্ত্রী। মস্কো সময় বিকাল ৩টায় রাশিয়ার রাজধানীতে পৌঁছান প্রধানমন্ত্রী। শেরেমেতিয়েভা বিমানবন্দরে নামার পর লাল গালিচা সংবর্ধনা দেওয়া হয় শেখ হাসিনাকে।

চার দশক পর এটি বাংলাদেশের কোনো শীর্ষ নেতার প্রথম মস্কো সফর। শেখ হাসিনার রাশিয়া সফরের সময় সমরাস্ত্র ক্রয়, রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে সহযোগিতার বিষয়ে বেশ কয়েকটি চুক্তি ও সমঝোতা স্মারক সইয়ের কথা রয়েছে।

এর আগে ১৯৭২ সালের এপ্রিলে মস্কো সফরের সময় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মস্কো স্টেট ইউনিভার্সিটিতে বক্তৃতা করেছিলেন। একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধে তৎকালীন সোভিয়েত ইউনিয়নের সহযোগিতার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাতে তিনি সে সময় মস্কো সফর করেন। এবারে মস্কোতে অবস্থানের সময় বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা মস্কো স্টেট ইউনিভার্সিটিতে ছাত্রদের উদ্দেশে বক্তৃতা করবেন বলে জানা গেছে।

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT