টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!

সৌদিতে জনশক্তি নেওয়া বন্ধের সিদ্ধান্ত, মন্ত্রণালয় জানে না

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : রবিবার, ২৬ আগস্ট, ২০১২
  • ৭২ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

সৌদি আরব বা সংযুক্ত আরব আমিরাতে বাংলাদেশি শ্রমিক নেওয়া বন্ধের ব্যাপারে মন্ত্রণালয় নিশ্চিত করে কিছু জানে না বলে জানিয়েছেন প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থানমন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন।তিনি বলেছেন, “সংযুক্ত আরব আমিরাত ও সৌদি আরব বাংলাদেশি জনশক্তি নেয়া কিংবা ভিসা নবায়ন বন্ধ ঘোষণা করেছে এমন সংবাদ নিশ্চিত নয়।”রোববার দুপুরে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন মন্ত্রী।সম্প্রতি সৌদি আরব সরকার জনশক্তি আমদানির ক্ষেত্রে নতুন নিয়ম জারি করেছে। নতুন নির্দেশনা অনুযায়ী, সৌদির স্থানীয় কর্মসংস্থানকারী প্রতিষ্ঠান প্রতি দু’জন বিদেশি শ্রমিককে ফেরত পাঠানোর বিনিময়ে সরকার থেকে একটি ভিসা নিতে পারবে।

শনিবার সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলার সময় এ বিষয়টি নাকচ করে মন্ত্রী জানান, তিনি এ ব্যাপারে এখনো নিশ্চিত নন।

মন্ত্রী বলেন, “সংযুক্ত আরব আমিরাত কখনো বাংলাদেশ থেকে জনশক্তি নেয়া আনুষ্ঠানিকভাবে বন্ধ ঘোষণা করেনি। আর আনুষ্ঠানিকভাবে নেয়ার ঘোষণাও দেয়নি।”

সৌদি আরবে জনশক্তি রফতানি প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, “সৌদি আরবে বাংলাদেশ থেকে শ্রমিক নেয়া এক বছর আগেও বন্ধ ছিল। এরপর শ্রমিক নেয়ার ঘোষণাও তারা দেয়নি। কিন্তু প্রতিদিন কিছু না কিছু শ্রমিক দেশটিতে যাচ্ছে।”

সম্প্রতি ইতালিতে বিদেশি শ্রমিকদের গণবৈধতা দেবে এমন খবরের বিষয়ে মন্ত্রী জানান, গণবৈধতা দেবে এমন সিদ্ধান্ত তারা নেয়নি। গণবৈধতা দিলে তার আগে তারা লোকজন নেয়া কমিয়ে দেয়।

মালয়েশিয়ায় জনশক্তি রফতানি প্রসঙ্গে এক প্রশ্নের জবাবে প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী বলেন, “দেশটি বাংলাদেশ থেকে সরকারি তত্ত্বাবধানে জনশক্তি নিতে আগ্রহী। আগামী মাসের প্রথম সপ্তাহে মালয়েশিয়া সরকারের একজন উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা বাংলাদেশ সফরে আসবেন। এরপর আলোচনা সাপেক্ষে একটি সমঝোতাস্মারক সই হবে।”

সরকারি ঘোষণা আসার আগেই মালয়েশিয়া যাওয়ার জন্য কোনো শ্রমিকককে কোনো এজেন্সিকে টাকা না দেওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন মন্ত্রী।

তিনি বলেছেন, “শ্রমিক নেওয়ার বিষয়টি মালয়েশিয়ার সঙ্গে চূড়ান্ত হলে সরকারের পক্ষ থেকে নির্দেশনা দেওয়া হবে- কোথায় কার কাছে কত টাকা জমা দিতে হবে।”

দেশের জনশক্তি রফতানি আগের চেয়ে অনেক বেড়েছে উল্লেখ করে মন্ত্রী জানান, আগে মাত্র ১৫টি দেশে জনশক্তি রফতানি হতো। বর্তমানে ১৪৩টি দেশে শ্রমিক যাচ্ছে।

সম্প্রতি জাপানে ১৫ জন শ্রমিক যাওয়ার পরে নতুন করে দুই হাজার লোকের চাহিদা জানানো হয়েছে বলে জানান তিনি।

মন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, “গত এক বছরে ৫ লাখ ৬৮ হাজার কর্মী বিদেশে গেলে চলতি বছরের সাত মাসেই গেছে ৪ লাখ ৬৬ হাজার।”

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT