টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!

সাগরপাড়ের কক্স টুডে হোটেলের মধুকুঞ্জে রসের মেলা

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : শুক্রবার, ৭ ডিসেম্বর, ২০১২
  • ৭৮৬ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

ফরিদুল মোস্তফা খান, কক্সবাজার …..পর্যটন শহর কক্সবাজারের সাগর সনিকটস্থ তারকা হোটেল কক্স টুডে অভ্যন্তরে সপ্তাহে একদিন মাদক, জুয়া ও নারীর জমজমাট আসর বসে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। প্রশাসনের অনুমতি ব্যতিরেকে হোটেল কর্তৃপক্ষ পরিচালিত মধুকুঞ্জে এই রসের মেলা বসে প্রতি শুক্রবার। সেখানে সমুদ্রের উন্মাতাল ঢেউয়ের সাথে পাল্লা দিয়ে রাতভর চলে বিকৃত মাতলামি।

ডিজে, পানীয় জাতীয় মাদক ছাড়াও কক্স টুডে অভ্যন্তরে ভয়ঙ্কর মাদক ইয়াবা, হেরোইন ও গাঁজার পাশাপাশি ওই রাতে যৌনকর্মীদের অবাধ বিচরণ ক্ষেত্রে পরিণত হয়। ফলে ফুর্তি প্রত্যাশিত অগণিত গ্রাহক এখন ব্যাংকক-সিঙ্গাপুরের বিকল্প হিসেবে কক্সবাজারে এই হোটেলটি বেচে নিয়েছে বলে জানা গেছে।

সূত্র জানায়, কক্স টুডের এই মনোজ্ঞ আয়োজনে অংশ নেয়া গ্রাহকদের মধ্যে ধর্নাঢ্য পরিবারের বখে যাওয়া যুবক-যুবতী, চলচ্চিত্রের এক্সট্রা জাতীয় কিছু তরুণী, সাংবাদিক পরিচয়ী গুটিকয়েক চাঁদাবাজ, ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক পরিচয়ী কিছু প্রভাবশালী লম্পট, বর্তমান-সাবেক এক শ্রেণির সরকারি কর্মকর্তা এবং মাদকাসক্ত শ্রেণির কিছু শিল্পপতি ভিড় জমান। প্রথমে তারা সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ‘ডিজে’ উপভোগের টিকেটে হোটেল অভ্যন্তরে ঢুকে পড়লেও রাতের সাথে পাল্লা দিয়ে ভোরের আগ পর্যন্ত এরা সেখানে সর্বপ্রকার আনন্দ উল্লাসে মেতে উঠেন। সূত্র মতে, এই কাজের সার্বিক সহায়তায় কক্স টুডে কর্তৃপক্ষের কর্মচারি পরিচয়ী কিছু দালাল লিপ্ত থাকে। গ্রাহকের সাথে চুক্তি অনুযায়ী তারা সেবা প্রদান করেন। শুধু তাই নয়, হোটেলে রুম নেওয়াদের মধ্যে একা কেউ থাকলে গভীর রাতে বিকৃত রুচির যৌনকর্মীরা রুমের দরজায় কড়া নাড়ে। ঘুমের ঘোরে কেউ উঠে গেলে চুক্তিভিত্তিক সেবা তারা দেন। জানা গেছে, এই কারণে পর্যটন শহরের রাজপ্রাসাদ আদলের উক্ত হোটেলটিতে দিনরাত সমানতালে দেশি-বিদেশি পর্যটক লেগেই থাকে। কক্সবাজারে পর্যটন ব্যবসায়ীদের যত দূর্ভোগই হোক না কেন অন্তত ‘কক্স টুডে’ হোটেলে এর আঁচ লাগে না। সূত্র মতে, সাম্প্রতিক সময়ে বিতর্কিত এই হোটেলের আনন্দ ব্যবসার সাথে কক্সবাজারের উচ্চ বিলাসী কিছু স্মার্ট সুন্দরী, একশ্রেণির ছাত্রী, ক্ষেত্রবিশেষ স্বামী পরিত্যাক্ত কিংবা প্রবাসীর স্ত্রীরাও জড়িয়ে পড়ছেন বলে অভিযোগ রয়েছে। তবে নিজেদের হোটেলের বিরুদ্ধে বেরিয়ে আসা এসব অপকর্মের কোনটাই সত্য নয় বলে কক্স টুডে হোটেলের ফ্রন্ট ডেস্ক রিসিপসনিস্ট হাছান জানান, সবই অপপ্রচার। এখানে অনৈতিক কোন কর্মকান্ড হয়না। মাদক, পতিতা ও ডিজে’র ধারে-কাছেও কোনদিন ছিলনা কক্স টুডে হোটেল। কিন্তু হোটেল কর্তৃপক্ষের দেয়া উক্ত বক্তব্য অস্বীকার করে সেখানে ফুর্তি করেছেন এরকম কয়েকজন গ্রাহক জানান গত ২৯ নভেম্বর থেকে ১ ডিসেম্বর পর্যন্ত তিন দিনই উক্ত হোটেলে জমকালো আসর ছিল। সর্বশেষ গত ১ ডিসেম্বর পুলিশের ধমকেই উক্ত ব্যবসা বন্ধ করতে বাধ্য হয় হোটেল কর্তৃপক্ষ।

কক্সবাজার সদর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন জানান, হোটেল কক্স টুডেতে এমন অনৈতিক আসর আয়োজনের বিষয়টি অবহিত হওয়ার পর ইতোপূর্বে তা বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। ভবিষ্যতে তা হলে পুলিশ কোন অবস্থায় বরদাস্ত করবেনা। অবশ্যই প্রচলিত আইনে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

নির্ভরযোগ্য সূত্র জানায়, কক্সবাজার শহরের কলাতলীর হোটেল-মোটেল জোনে অবস্থিত উক্ত হোটেল কক্স টুডে’তে প্রতি মাসেই ডিজে অনুষ্ঠানের নামে দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে পেশাদার যৌন কর্মীদের সমাবেশ ঘটার কারণে ইতোমধ্যেই অনেকে ফতুর হয়ে গেছে। অনুষ্ঠানে বিলাসিতা করতে গিয়ে কক্সবাজার শহরের অনেক সম্ভ্রান্ত পরিবারের সন্তানও এখন বিপদগামী হয়ে পড়েছে। অনেকের কাছে এটি নেশায় পরিণত হওয়ার ফলে কক্সবাজারের আইনশৃংখলা পরিস্থিতির ভয়াবহ অবনতি হয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে হোটেল কক্স টুডে কর্তৃপক্ষ এমন অনৈতিক আসর পরিচালনা করে অবৈধ উপায়ে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিলেও তা কারো নজরে আসেনি। আবার অনেকে জেনেও তা অবৈধ উৎকোচের বিনিময়ে চেপে গেছেন। এ অবস্থায় প্রতি বারের মতো গত ২৯ নভেম্বর থেকে ১ ডিসেম্বর পর্যন্ত প্রতি রাতেই হোটেল কক্স টুডেতে আসর জমিয়ে তুলেছিলো কর্তৃপক্ষ। ঘটনাটি অবহিত হওয়ার পর পুলিশ ১ ডিসেম্বর রাতেই হোটেল কর্তৃপক্ষকে এ ধরনের অবৈধ আসর বন্ধ করতে নির্দেশ দেয়। পরে তড়িঘড়ি করে ওই রাতেই আসরটি বন্ধ করে দিতে বাধ্য হয় হোটেল কর্তৃপক্ষ। তবে সাংবাদিক নাম ব্যবহার করে কয়েকজন যুবক ও আইনশৃংখলা বাহিনীর সদস্য পরিচয়ে কয়েকজন ব্যক্তি আসরের আয়োজকদের কাছ থেকে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন বলেও অভিযোগ পাওয়া গেছে। ওই আসরে অংশ নিয়েছেন এমন এক যুবক এ প্রতিবেদককে জানিয়েছেন, হোটেল কক্স টুডেতে আয়োজিত আসরটিতে দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে আনা হয়েছে শতাধিক তরুণীকে। তবে তারা সকলেই পেশাদার যৌন কর্মী। ওই আসরে অংশ নেয়া সকলেই ওই তরুনীদের সাথে নেচে-গেয়ে মাদক সেবন করেছেন গভীর রাত পর্যন্ত। আবার অনেকেই মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে ওই তরুনীদের সাথেই হোটেল কক্স টুডে’তে রাত্রি যাপন করেছেন বলে তিনি জানিয়েছেন।

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT