টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!

সংবাদ ও সাংবাদিকতার শিকড় থেকে

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : রবিবার, ৪ অক্টোবর, ২০১৫
  • ১৮২ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
টেকনাফ নিউজ…

অজানাকে জানার ইচ্ছা তাই কৌতুহলের শেষ নেই। আর এই কৌতুহল থেকেই জন্ম নিয়েছে সাংবাদিকতা পেশা। মানব জন্মের অবিচ্ছেদ্য অনুষঙ্গ কৌতুহল। শিশু ভূমিষ্ঠ হবার পরপরই শিশুর চাহনি এমনই ইঙ্গিত বহন করে। আর এই কৌতুহল থেকেই গুহাবাসী মানুষের মনে দানা বেঁধেছে নতুন কিছু আবিষ্কার করার লিপ্সা। সৃষ্টি হয়েছে যোগাযোগ-সভ্যতা-সংস্কৃতি। কারণ-‘where communication is possible, civilization is possible.’

What is news? খবর আসলে কি? কিভাবে খবর হয়? কোনটা খবর আর কোনটা বে খবর সেটাও জানার দরকার আছে। এই জিজ্ঞাসার প্রতিউত্তরে বলা চলে-“News is an account of something that interests people.” আবার বলা যেতে পারে-“News is an account of current idea, event or problem that interests people.”
একটু অন্যভাবে যদি বলি News হচ্ছে- New something. আবার বলা যেতে পারে-NEWS means, N= North, E=East, W=West, S=South। সুতরাং উত্তর, দক্ষিণ, পূর্ব ও পশ্চিমের যত ঘটনা ঘটে তাই নিউজ। নিউজকে বলা হয় পচনশীল প্রোডাক্ট। উড়ন্ত ইতিহাসও বলা চলে।
ইতিহাসের পাতায় উকি দিলে দেখা যায়, লিপি আবিষ্কারের আগে আদিম অসভ্য মানুষ পরস্পরের সাথে যোগাযোগের কাজটি নিষ্পত্তি করেছে ছবির মাধ্যমে। প্রাচীন যুগের বর্বর জাতিও সংবাদ জানতে চেয়েছে, জানাতে চেয়েছে দেয়ালে আঁকাআঁকি করে। আর এটাই এক অর্থে সাংবাদিকতার শুরু।
আসলে সাংবাদিকতার শুরু কোথায় কীভাবে তা স্পষ্ট করে বলা কঠিন। তবে বেশিরভাগ লেখকের মতে, বিশ্বের প্রথম সংবাদপত্র বেরিয়েছিল জার্মান থেকে। আবার কোন কোন মতে, চীনে হাজার খৃষ্টাব্দে সংবাদপত্র ছিল। মোটামুটিভাবে বলা চলে কাগজের সংবাদপত্রের শুরুটা এভাবেই।
সবচেয়ে পুরোনো পত্রিকা সংরক্ষিত আছে যেটি প্রকাশিত হয়েছিল ১৬০৯ সালে। নাম AVISO. তবে তাতে স্থান, মুদ্রাকর ও প্রকাশনীর কোন নাম পাওয়া যায়না। এটি জার্মানের উত্তরাঞ্চলের কোন শহরের বলে ধারনা করা হয়।
মতান্তরে পৃথিবীর প্রথম সংবাদপত্র প্রকাশিত হয় চীনে। নাম জিং বাও। যার অর্থ রাজধানীর সংবাদ। জনসাধারণকে কিছু খবার বা ফরমান জানাতে রাজদরবার থেকে প্রকাশিত হতো এই খবরের কাগজ। চীনের আরো একটি খবরের কাগজের নাম শোনা যায় যার নাম আক্তা দিয়ারনাল। যার অর্থ দৈনিক খবরের কাগজ।

আধুনিক বিশ্বের প্রথম খবরের কাগজ মর্নিং পোস্ট। বেরোয় লন্ডন থেকে ১৭৭২ সালে। পরে একই জায়গা থেকে বের হয় দি লন্ডন টাইমস। এখনো এর প্রকাশনা অব্যাহত।
২০০৭ অনুযায়ী বিশ্বব্যাপী দৈনিক খবরের কাগজের সংখ্যা ছিল ৬৫৮০ যারা একদিনে প্রায় ৩৯৫ মিলিয়নের বেশি কপি বিক্রি করত।
১৮৮৬ সালে প্যারিসে কাগজ লা পতি জার্নাল প্রথমবারের মতো ১০ লাখ কপি প্রকাশের গৌরব অর্জন করে। এর পরেই আছে জাপানের আশাহি শিম্বুন। ১৯৭০ সালে কাগজটির দৈনিক প্রকাশ সংখ্যা দাড়ায় এক কোটির উপরে। তবে একটি কাগজ এর আকার কতোটা বৃহৎ হতে পারে তার উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত হলো আমেরিকার দি নিউইয়র্ক টাইমস। ১৯৭১ সালে এর ১০ অক্টোবর প্রকাশিত এই কাগজে পাতা সংখ্যা ছিল ৯৭২। বিভাগ ছিল ১৫ টি। যার ওজন ছিল সাড়ে তিন কিলোগ্রাম। দাম ছিল ৫০ সেন্ট।

মুসলমান রাজত্বকালে ভারতবর্ষে সংবাদপত্রের প্রচলন ছিল। তবে সংবাদপত্র তখন মুদ্রিত হতোনা হাতেই লেখা হতো। এবং তা দেশের প্রধান প্রধান রাজকর্মচারীর নিকট প্রেরিত হতো। বিভিন্ন প্রদেশের সংবাদ একত্র করে সম্রাটের কাছে যেত। এ সংবাদ সংগ্রহের জন্য আলাদা বিভাগ ছিল।
কানুন এ জং নামক প্রাচীন পারস্য গ্রন্থে লেখা আছে, পানিপথের প্রথম যুদ্ধে ১৫২৬ সালে বাবার শাহ শিবিরে বসে সংবাদপ্রত্র পাঠ করছিলেন এমন সময় হিন্দু রাজারা এসে সন্ধির প্রস্তাব করেন। আবুল ফজল আইন-ঈ-আকবরী গন্থে লিখেছেন, সম্রাট আকবরের সময় প্রতি মাসে গভর্মেন্ট গেজেটের মতো সমাচার পত্র প্রচলিত ছিল।

ভারতবর্ষের প্রথম মুদ্রিত কাগজ ইন্ডিয়া গেজেট। ইংল্যান্ডের রানী এলিজাবেথের সময় প্রথমবারের মতো আধুনিক এই কাগজ বের হয় ১৭৪৩ সালে। ১৭৮০ সালের ২৯ জানুয়ারি বের হয় ‘দি বেঙ্গল গেজেট’। সমাচার দর্পণ অবিভক্ত বাংলার প্রথম সংবাদপত্র। Mirror of new এর আদলে এর পরের মাসেই বের হয় সমাচার দর্পণ। এবং স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম কাগজ দৈনিক-আজাদ।
বাংলা সাংবাদিকতার শুরু ১৮১৮ সালে দিকদর্শন এর মধ্য দিয়ে। শ্রীরামপুরে খৃষ্টান মিশনারীর উদ্যোগে মাসিক এই সংবাদ সাময়িকি বের হয়। জন ক্লার্ক মার্শম্যানকে সম্পাদক করে জন্ম হয় এই পত্রিকার।

এভাবেই দ্বার উন্মোচিত হয় বিশ্ব সাংবাদিকতার। কালের বিবর্তনে তা আজ রূপ নিয়েছে চরম আধুনিকতায়। বর্তমানে দৈনিক কাগজ ছাড়াও বিজ্ঞানের অগ্রগতির ধারায় গড়ে উঠেছে অনলাইন সংবাদ পত্রের বিশাল বাজার। মানুষ আজ ইন্টারনেটের মাধ্যমে চোখ বুলাচ্ছে কম্পিউটার আর মোবাইল ফোনের স্ক্রিনে। অতি সহজে জানতে পারছে দৈনিক ঘটে যাওয়া বিভিন্ন সংবাদ।

তথ্য সংগ্রহ: উইকিপিডিয়া ও শিকড় থেকে শিখরে

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT