টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!

শুঁটকি রুপালী ছুরি ও অন্যান্য মাছগুলি গুদামজাতে ব্যস্ত ব্যবসায়ীরা

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : সোমবার, ১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৩
  • ১৮১ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

Moheshkhali Pic- 17-02-2013মোহাম্মদ সিরাজুল হক সিরাজ, মহেশখালী…সাগরের রাজকীয় শুঁটকি রুপালী ছুরি ও অন্যান্য মাছগুলি গুদামজাতে ব্যস্ত মৎস্য ব্যবসায়ীরা। কারণ ফাল্গুন মাসের ১০ তারিখের ভিতরে এই রুপালী উন্নতমানের ছুরি শুঁটকি ও বিভিন্ন শুঁটকি মাছগুলি গুদামজাত করে ফেলতে হবে। কারণ এই উন্নত মাছগুলি বৈরী আবহাওয়া মাছের গায়ে যেন না লাগে সে কারণে ফাল্গুনের ১০ তােিখর আগেই গুদামে মাছ লইয়া গুদামজাত করার জন্য মৎস্য ব্যবসায়ীগণ ব্যস্ত। বড় বড় ছালার ছটে ৫মণ করে চারিদিকে ছালার ছট সেলাই করে গুদামে বাতাস না ডুকে মত সেভাবে কায়দা কানুন করে গুদামজাত করিতেছে। বিধায় সোনাদিয়ার চর থেকে সমস্ত জমানো মাছ এখন নিয়ে আসিয়া গুদামজাত করিতেছে। যার যার সাধ্য মোতাবেক কোন ব্যবসায়ী ৫০ লক্ষ টাকা, আবার কোন ব্যবসায়ী ৮০ লক্ষ টাকা, আবার ছোট ব্যবসায়ীরা বিভিন্ন ভাল জাতের মাছ একত্র করে গুদামজাত করিতেছে। আবার তারাও ৩০ থেকে ২৫ লক্ষ টাকার মাছ ব্যবসায়ীরা গুদামজাত করিতেছে। এভাবে মহেশখালীতে এখন প্রায় সমস্ত শুঁটকি ব্যবসায়ীরা গুদামে মাছ গুদামজাতে ব্যস্ত। ব্যবসায়ীরা চোখের ঘুম হারাম করে ব্যস্ততায় দিন রাত্রি পরিশ্রম করে যাচ্ছে। সোনাদিয়ার চর থেকে মাছ গুলি আনিয়া গুদামজাত করিতেছে। মৎস্য ব্যবসায়ীদেরকে থেকে জানতে চাইলে কি কি মাছ তারা গুদামে রাখছেন, তারা জানায় ছুরি মাছ, রুপচাঁদা মাছ, লইট্যা, ফাসিয়া, চিংড়ী, কামিলা, সুরমা মাছগুলি এই সোনাদিয়ার চর থেকে শুঁকাইয়া নিজ এলাকাতে আনিয়া গুদামজাত করিতেছে। তাদের জানতে চাওয়া হলে মহেশখালীর ব্যবসায়ী কত আর বাহিরের কত? তারা বলেন, মহেশখালীর ব্যবসায়ী বেশি, তবে মহেশখালীর বাহিরেও আছে অনেক অনেক। মহেশখালীর সবচাইতে বড় বড় মৎস্য ব্যবসায়ী কতজন হবে জানতে চাইলে তারা বলেন, অনুমান ৩০০ জনের মত হবে রাজ ব্যবসায়ী, তবে মীর কাসেম সওদাগর, কবির আহমদ বহদ্দার, সব্বির আহমদ কোং, জসিম বহদ্দার, ফেরদৌস সঃ, আরো অনেক অনেক রাজ শুটকি ব্যবসায়ী আছে। এ ব্যবসায়ীগুলি লক্ষ লক্ষ টাকার মাছ ক্রয় করিয়া, মাছগুলি ভালভাবে শুকাইয়া বড় বড় ছালার ছটে আঁটি করে রাজ ব্যবসায়ীদের গুদামে নিয়া আসে। এই গুদামের মাছগুলি আগামী বর্ষার মাঝামাঝি সময়ে বাংলাদেশের বড় বড় মাছের আরতে ঐ উন্নতমানের এই গুদামজাতের মাছগুলি বিক্রি করে থাকে ব্যবসায়ীরা। আবার অনেক ব্যবসায়ী জানায়, বড় বড় মাছের আরত থেকে তারা লক্ষ লক্ষ টাকার দাদন নিয়েছে। সেই রকম অনেক ব্যবসায়ী আছে। সোনাদিয়ার চরের সর্বজন মানুষ জানায় কত টাকার মাছ শুকাইয়া মৎস্য ব্যবসায়ীরা তাদের গুদামে মাছ রাখিবেন বলে ধারনা? তারা জানায় অনুমান ১৪০ কোটি টাকারও বেশি মাছ সব ব্যবসায়ীরা তাদের গুদামজাত করবেন বলে ব্যবসায়ীদের সূত্রে জানা যায়। ব্যবসায়ী ও অন্যন্যা সূত্রে জানা যায়, এই উন্নতমানের শুটকি মাছগুলি বিদেশে রপ্তানী করে থাকে। বিভিন্ন মধ্য প্রাচ্যের দেশ ও থাইল্যান্ড, সিঙ্গাপুর, আরো অনেক অনেক দেশে এই উন্নতমানের মাছ রপ্তানী করে থাকে রুপালী রাজকীয় বড় ছুরি ও অন্যান্য মাছগুলি। বিদেশে শুটকি মাছ রপ্তানী করে দেশে কোটি কোটি টাকার বিদেশী মুদ্রা দেশে আয় করে থাকে। সরেজমিনে পর্যবেক্ষণ পরিদর্শনে গেলে মৎস্য ব্যবসায়ীদের থেকে জানা যায়।

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT