টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!
শিরোনাম :
রোহিঙ্গাদের এনআইডি কেলেঙ্কারি : নির্বাচন কমিশনের পরিচালকের বিরুদ্ধে দুপুরে মামলা, বিকালে দুদক কর্মকর্তা বদলি সড়কের কাজ শেষ হতে না হতেই উঠে যাচ্ছে কার্পেটিং! আপনি বুদ্ধিমান কি না জেনে নিন ৫ লক্ষণে ৫৫ হাজার রোহিঙ্গা বাংলাদেশি ভোটার: নিবন্ধিত রোহিঙ্গাও ভোটার! ইসি পরিচালকসহ ১১ জন আসামি হ’ত্যার পর মায়ের মাংস খায় ছেলে ব্যাংকে লেনদেন এখন সাড়ে ৩টা পর্যন্ত আগামী ১৫ জুলাই পর্যন্ত লকডাউন বাড়ল মডেল মসজিদগুলোয় যোগ্য আলেম নিয়োগের পরামর্শ র্যাবের জালে ধরা পড়লেন টেকনাফ সাংবাদিক ফোরামের সদস্য ও ইয়াবা কারবারি বিপুল পরিমাণ টাকা ও ইয়াবা উদ্ধার রোহিঙ্গাদের তথ্য মিয়ানমারে পাচার করছে জাতিসংঘ: এইচআরডব্লিউ

শিক্ষার্থীদের দাবির সঙ্গে একমত বাস-মালিকরা’

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : শুক্রবার, ৩ আগস্ট, ২০১৮
  • ৫০৪ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

টেকনাফ নিউজ ডেস্ক::
শিক্ষার্থীদের আন্দোলনকে বাস মালিকরা সমর্থন করে বলে জানিয়েছেন বাস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক খন্দকার এনায়েত উল্যাহ। তবে সড়কে নিরাপত্তা নিয়ে তারা চিন্তিত।
শুক্রবার (৩ আগস্ট) বিকেলে রাজধানীর মহাখালী টার্মিনালের দ্বিতীয় তলায় আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।
এনায়েত উল্যাহ বলেন, এ পর্যন্ত চার শতাধিক গাড়ি ভাংচুর হয়েছে। সে জন্যই রাস্তায় যানবাহন নামছে না। আমরা যখন সড়ক নিরাপদবোধ করবো তখন থেকে গাড়ি নামাবো।
তিনি বলেন, নিরাপত্তাহীনতার কারণেই মালিক-শ্রমিকরা স্ব উদ্যোগে গাড়ি বন্ধ রেখেছে। পরিবহন মালিক সমিতি বা শ্রমিক সংগঠনগুলোর আনুষ্ঠানিক কোনো ধর্মঘট নেই।
এনায়েত উল্যাহ বলেন, আমরা চালকদের আইন মেনে চলার নির্দেশ দিয়েছি। আইন অনুযায়ী দোষীদের যে শাস্তি হোক আমরা তা মেনে নেব।
ঘটনার পরপরই গণপরিবহনে ভাঙচুর শুরু হয়। আমাদের পক্ষ থেকে যোগাযোগ ব্যবস্থা স্বাভাবিক রাখতে চেষ্টা করেছি। কিন্তু বৃহস্পতিবার পর্যন্ত চারশর মতো বাস ভাঙচুর করা হয়েছে। আটটির মতো বাস সম্পূর্ণ জ্বালিয়ে দেয়া হয়েছে। যে কারণে মালিকরা যানবাহন এবং শ্রমিকরা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে।
তিনি বলেন, ছাত্রদের দাবির সঙ্গে আমরা সম্পূর্ণভাবে একমত। তারা যে দাবিগুলো দিয়েছে সেগুলো সরকার মেনে নিয়েছে। ছাত্র ও অভিভাবকদের প্রতি অনুরোধ থাকবে তারা যেন ক্লাসে ফিরে যায়। আমরা যেন যোগাযোগ ব্যবস্থা স্বাভাবিক রাখতে পারি। কারণ এ আন্দোলন যদি দীর্ঘায়িত হয় তাহলে অন্য কেউ সুবিধা নেয়ার চেষ্টা করবে। সরকারের সব পদক্ষেপের বিষয়ে আমরাও একমত।
তিনি বলেন, আমরা যাতায়াত ব্যবস্থা ঠিক রাখতে নাইট কোচ চালু রেখেছি। এক্সপোর্ট ইমপোর্টের যাতে কোনো ক্ষতি না হয় সে জন্য ট্রাক চলছে। কিন্তু নাইট কোচেও রাত সাড়ে ৯টার সময় বাধা দেয়া হচ্ছে। তাহলে নিরাপত্তা কোথায়?
সড়ক পরিবহনমন্ত্রী বাস মালিকদেরকে আহ্বান জানিয়েছেন বাস নামানোর জন্য এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, আমরা এখনো সড়কে নিরাপত্তা বোধ করছি না। এ কারণেই গাড়ি নামাতে পারছি না। তারা আমাদেরকে নিরাপত্তা দিতে পারছে না। আমরা যখন দেখবো কোনো সমস্যা হচ্ছে না তখন গাড়ি চালু হয়ে যাবে।
লাইসেন্সহীন চালকদের গাড়ি না দেয়ার জন্য মালিকদের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। এ ছাড়া লাইসেন্সধারী চালকদের সচেতনতা বৃদ্ধির জন্য কাজ করছি বলেও জানান তিনি।
সংবাদ সম্মেলনে মহাখালী বাস টার্মিনাল সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির সভাপতি আবুল কালামসহ শ্রমিক ও পরিবহন নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT