টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!

শান্তি চুক্তির যেসব ধারা বাস্তবায়ন হয়নি, তা পর্যায়ক্রমে বাস্তবায়ন করা হবে-বান্দরবানে প্রধানমন্ত্রী

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : রবিবার, ১৮ নভেম্বর, ২০১২
  • ২৪৩ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

খালেদ হোসেন টাপু,বান্দরবান থেকে :
পার্বত্য শান্তি চুক্তির যেসব ধারা বাস্তবায়ন হয়নি, তা পর্যায়ক্রমে বাস্তবায়ন করা হবে, আমরা বাস্তবায়ন করবো, এই এলাকায় শান্তি বিরাজ করুক এটায় আমাদের লক্ষ্য। শান্তি নষ্টের জন্য অনেকে অনেক ধরনের উস্কানি দিতে পারে সে ব্যাপারে সবাইকে সজাগ থাকতে হবে।
তিনি আরো বলেন, যতবার আওয়ামীলীগ সরকার ক্ষমতায় আসে তত বার পার্বত্য এলাকার উন্নয়ন হয়। আমরা প্রতিটি গৃহহারা মানুষের জন্য গৃহ নির্মান করে দেব। তিনি গতকাল ১৭ নভেম্বর বিকালে বান্দরবান রাজার মাঠে এ কথা বলেন।
তিনি আরো বলেন, আগে পাহাড়ে মোবাইল নেটওয়ার্ক ছিল না, আমরাই মোবাইল ব্যবহারের সুযোগ করে দিয়েছি। পার্বত্য এলাকার শান্তি বজায় রাখার আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, পার্বত্য এলাকার উন্নয়নের দায়িত্ব আমাদের, আমরা পার্বত্য এলাকার আরো উন্নয়ন করবো।
তিনি জেলার দূর্গম থানছি উপজেলায় একটিও সরকারি স্কুল না থাকায় এ প্রসঙ্গে বলেন, থানছিতে একটি সরকারী স্কুল ও বেসরকারি কলেজ নির্মান করা হবে। জেলায় বর্তমানে ৪১৫ কি: মি: সড়ক নির্মানের কাজ চলছে বলে জানান।
জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি প্রসন্ন কান্তি তংচঙ্গ্যার সভাপতিত্বে উক্ত জনসভায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আরো বলেন, আমরা মায়ানমারের কাছ থেকে ন্যায্য হিস্যা আদায় করেছি, সমুদ্র জয় করেছি।
সভায় প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা গওগর রেজভি, যোগাযোগ মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, প্রাথমিক ও গনশিক্ষা মন্ত্রী আফসারুল আমিন, পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান বীর বাহাদুর এমপি, চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামীলীগ সভাপতি মহিউদ্দিন চৌধুরী, বক্তব্য রাখেন। এছাড়া আরো উপস্থিত ছিলেন, খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলার এমপি যতিন্দ্র লাল ত্রিপুরা, তেমন আরা তৈয়ব এমপি, হাসিনা মান্নান এমপি, শামসুল হক এমপিসহ আরো অনেক।
এই সময়, রাজার মাঠ ছিল কানায় কানায় পরিপূর্ন, আদিবাসীদের বিভিন্ন সম্প্রদায়ের তরুনীরা তাদের ঐতিহ্য অনুসারে নৃত্য পরিবেশন করে। দলীয় নেতাকর্মীরা স্লোগানে স্লোগানে মুখরিত করে তোলে সভাস্থলকে। সভা শেষে প্রধানমন্ত্রী হেলিকপ্টার যোগে ঢাকার উদ্দ্যেশে বান্দরবান ত্যাগ করেন। প্রধান মন্ত্রীর আগমনকে কেন্দ্র করে বান্দরবানে নিছিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হয়।
এর আগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রুমা জোন সদর দপ্তরে হেলিকপ্টারে অবতরন করে রুমা সেতু উদ্বোধন করেন। এই সময় রুমা ব্রিক ফিল্ড মাঠে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে বলেন, আওয়ামীলীগ সরকার পার্বত্য শান্তি চুক্তির অনেক বাস্তবায়ন করেছে, বাকিগুলোও বাস্তবায়ন করবে। রুমা সফরের পর তিনি থানছি পৌছে সাড়ে বারটার দিকে থানছি উপজেলার সাঙ্গু সেতু উদ্বোধন করেন। এরপর নীলগিরি পর্যটন পরিদর্শন করে বান্দরবানের সমাবেশে যোগ দেন।
এদিকে বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর এই প্রথমবারের মতো প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বান্দরবান, অন্যদিকে স্বাধীনতার পর রুমা ও থানচি উপজেলায় কোন রাষ্ট্রীয় প্রধানের সফরকে কেন্দ্র করে দলীয় নেতাকর্মীদের মধ্যে ব্যাপক উৎসাহ বিরাজ করে।

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT