টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!

লীগ বর্জনের ঘোষণা ক্রিকেটারদের

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ১৮ জুন, ২০১৩
  • ১৫১ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

jjjjjjস্পোর্টস রিপোর্টার: ঢাকা প্রিমিয়ার লীগ বর্জনের ঘোষণা দিয়েছে ক্রিকেটারদের সংগঠন কোয়াব। গতকাল মিরপুর শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে দেড় শতাধিক ক্রিকেটার একসঙ্গে আলোচনায় বসে আসন্ন ঢাকা প্রিমিয়ার লীগ বর্জনের সিদ্ধান্ত নেন। সেখানে জাতীয় দলের ক্রিকেটাররাও সম্পৃক্ত ছিলেন। এর আগেই কোয়াবের নেতৃত্বে শতাধিক ক্রিকেটার মাঠে অবস্থান নেন। ক্রিকেটারদের পক্ষ থেকে কোয়াবের সাধারণ সম্পাদক দেবব্রত পাল লীগ বর্জনের ঘোষণা দিয়ে বলেন, ‘ক্রিকেট বোর্ড এতদিন ধরে আমাদের কোন দাবিই মানছিল না। উল্টো তারা ঢাকা প্রিমিয়ার লীগ নিয়ে নতুন নিয়ম চালু করছে ক্রিকেটারদের সঙ্গে আলোচনা না করেই। বিশেষ করে আমরা ক্রিকেটের স্বার্থে গ্রেডিং পদ্ধতি মেনে নিলেও রোটেশন পদ্ধতিতে দল বাছাই প্রক্রিয়া কোনভাবেই মানতে পারছি না। আমাদের দাবি ক্রিকেটাররা নিজেদের ইচ্ছামতো ক্লাবে খেলবে। এখানে কোন হস্তক্ষেপ চলবে না। তবে এখনও আলোচনার পথ খোলা আছে। ক্রিকেট বোর্ড চাইলে আমাদের সঙ্গে আলোচনা করতে পারে।’ এর আগে ক্রিকেটারদের দাবিগুলো সংবাদ মাধ্যমের সামনে পড়ে শোনান জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক রাজিন সালেহ।
অন্যদিকে ক্রিকেটারদের এমন ঘোষণার পর বিসিবি’র প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা নিজাম উদ্দিন বলেন, ‘আমাদের কাছে এখনও ক্রিকেটাররা কোন রকম অনুষ্ঠানিক দাবি জানায়নি। তাই তাদের কাছ থেকে সরাসরি কোন কিছু জানার আগ পর্যন্ত কোন মন্তব্য করতে পারি না। তাদের দাবিগুলো জানার পরই আমরা সিদ্ধান্ত নেবো, কি করা যায়।’ তবে এই সিদ্ধান্তে জাতীয় দলের চুক্তিভুক্ত ক্রিকেটাররাও সম্পৃক্ত রয়েছেন। আর বিসিবি’র চুক্তিভিত্তিক ক্রিকেটাররা বোর্ডের যে কোন আয়োজনে অংশ নিতে বাধ্য। প্রিমিয়ার লীগ আয়োজন করে ক্রিকেট বোর্ডের  নিয়ন্ত্রণাধীন সিসিডিএম।  সে হিসেবে জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের প্রিমিয়ার লীগ বর্জন চুক্তি ভঙ্গের অপরাধও বটে। এই বিষয়ে দেবব্রত পাল বলেন, ‘ক্রিকেটাররা জাতীয় দল ও জাতীয় লীগের জন্য চুক্তিভুক্ত। তারা প্রিমিয়ার লীগের সঙ্গে চুক্তিভুক্ত নয়। তাই চুক্তিভঙ্গের কোন বিষয় এখানে আসতে পারে না।’ তবে সিইও নিজাম উদ্দিন এই দাবি ভুল বলে জানান। তিনি বলেন, ‘ক্রিকেটাররা ক্রিকেট বোর্ডের সব কিছুর সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ। আর প্রিমিয়ার লীগও বিসিবি’রই একটি টুর্নামেন্ট যা বিসিবি’র একটি প্রতিষ্ঠান সিসিডিএম আয়োজন করে। সেই হিসেবে চুক্তিভুক্ত ক্রিকেটাররা প্রিমিয়ার লীগের বাইরে না। তবে আমরা বিষয়টা সংবাদ মাধ্যমের কাছ থেকে জেনেছি। এখনও ক্রিকেটারদের পক্ষ থেকে কিছু জানানো হয়নি। তাই এখনই বলতে পারবো না যে, তাদের জন্য কি করতে পারি। তবে আমরা দাবিগুলো পেলে তা আলোচনার মাধ্যমেই সমাধানের চেষ্ঠা করবো।’
ওদিকে গ্রেডিং ও রোটেশন পদ্ধতিতে দলবদলের জন্য বিসিবিকে চাপ দিয়েছে ক্লাবগুলো। কিন্তু সেই ক্লাবগুলোর সঙ্গে কোন বিরোধ নেই বলেই জানান কোয়াবের সাধারণ সম্পাদক। তাদের সব দাবি এখন ক্রিকেট বোর্ডের কাছে। এই বিষয়ে দেবব্রত পাল বলেন, ‘আমাদের ক্লাবের সঙ্গে কোন বিরোধ নেই। এমনকি বিসিবি‘র সঙ্গেও না। আমরা বিরোধিতা করছি বিসিবি’র একটি সিদ্ধান্তের। তারা প্রিমিয়ার  লীগের ঐতিহ্যকে ভেঙে যে সব নিয়ম চালু করছে তা কোনভাবেই মানা যায় না। ক্রিকেটাররা  খেলবে নিজের স্বাধীনভাবে দল নির্বাচন করে। আমরা কোন লটারি বা রোটেশন পদ্ধতি মানি না। এইভাবে ক্রিকেটের ক্ষতিই হচ্ছে। আমরা চাই পুরনো পদ্ধতি মেনে রেখেই প্রিমিয়ার লীগ আয়োজন করা হোক। প্রিমিয়ার লীগের এতদিনের ঐতিহ্য যেন তারা নষ্ট না করে। বিসিবি’র কাছে সবাই দাবি নিয়ে যাবে। বিসিবি চিন্তা করবে কোনটা ভাল, কোনটা ভাল না। তারা কেন ক্রিকেটারদের উপর আর্থিক ক্ষতি চাপিয়ে দেবে? তবে এখনও বিশ্বাস করি আলোচনার পথ খোলা। তারা চাইলেই আলোচনা করে এই সমস্যার সমাধান করতে পারে।’ গতকাল সাড়ে আটটায় দেবব্রত লাল বলেন, বিসিবি কোন সিদ্ধান্তই আমাদের লিখিত জানায়নি। আমরা জেনেছি মিডিয়ার মাধ্যমে। তাই ঘোষণাটাও মিডিয়াতে দেয়া হয়েছে। বিসিবিকে লিখিত দেয়ার কিছু নেই।

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT