টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!
শিরোনাম :
ফেসবুকের বিরুদ্ধে রোহিঙ্গাদের ১৫০ বিলিয়ন ডলারের মামলা ‘আল্লাহ ছাড় দেন, ছেড়ে দেন না’ স্বেচ্ছায় সেন্টমার্টিনদ্বীপে আটকা পর্যটকদের হোটেল ভাড়া অর্ধেক কমিয়ে মাইকিং টেকনাফে মুক্তির প্রকল্প অবহিতকরণ কর্মশালা টেকনাফে লবণ উৎপাদনের শুরুতেই বিপত্তি তথ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসানকে পদত্যাগের নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী দারুল মা’আরিফে সাংবাদিকতা ও গণযোগাযোগ কোর্স চালু টেকনাফ পৌরসভা মেয়র ও ৪ কাউন্সিলর বিনা প্রতিদন্ধিতায় নির্বাচিত চকরিয়ায় র‍্যাবের সাথে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ২জন নিহত : আটক-২, অস্ত্র ও গুলি উদ্ধার তথ্য প্রতিমন্ত্রীর বক্তব্য নিয়ে যা বললেন ওবায়দুল কাদের

মেসি-রোনাল্ডোর জোড়া গোলে প্রাণবন্তএল ক্ল্যাসিকো শেষ হলো ড্রয়ে

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ৯ অক্টোবর, ২০১২
  • ২৫৬ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

তারকা স্ট্রাইকার লিওনেল মেসি এবং ক্রিস্টিয়ানো রোনাল্ডোর জোড়া গোলের পরও লা লিগার প্রথম এল ক্ল্যাসিকোতে বার্সেলোনা ও রিয়াল মাদ্রিদকে ২-২ গোলের ড্রয়ে সন্তুষ্ট থাকতে হলো। যদিও শিরোপা পুনরুদ্ধারে মরিয়া বার্সেলোনা এই ড্রয়ে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ও বর্তমান চ্যাম্পিয়নদের চাইতে আট পয়েন্টে এগিয়ে থাকল।
চলতি বছরের হিসেবে বিশ্ব ফুটবলের এই দুই স্ট্রাইকারের গোলসংখ্যা দাঁড়াল ১০০। এর মধ্যে চলতি মৌসুমের হিসেবে পর্তুগীজ তারকা রোনাল্ডো আর্জেন্টাইন অধিনায়ক মেসির চাইতে ১৪-১২ গোলে এগিয়ে আছেন। দু’জনেই এ রাতে নিজ নিজ প্রথম শটেই বল পাঠান জালে। এরপর দ্বিতীয়ার্ধে আরো একবার করে লক্ষ্যভেদের কৃতিত্ব দেখিয়ে খেলাটিকে সত্যিকারের ‘ক্লাসিকো’য় পরিণত করেন।
ক্রিস্টিয়ানো রোনাল্ডো এ নিয়ে টানা ছয়টি এল ক্লাসিকোয় গোল করে অমন কৃতিত্ব দেখানো প্রথম খেলোয়াড় হন। মজার ব্যাপার হলো লা লিগার খেলায় রোনাল্ডোর গোল পাওয়া ম্যাচগুলোয় মাদ্রিদ কখনো হারেনি। বার্সেলোনার ক্ষেত্রেও মেসির গোলের দিনে অভিন্ন নজির ঘটে। কাজেই এই রাতে রেকর্ডটি অটুট ছিল। রোনাল্ডো খেলার ২৩ মিনিটে রিয়ালকে এগিয়ে দিলেও মেসি স্বাগতিকদের হয়ে আট মিনিটের মধ্যেই তা শোধ করে দেন। ৬১ মিনিটে ফ্রি কিক থেকে দুর্দান্ত এক শটে নাউ ক্যাম্পকে উল্লাসে মাতোয়ারা করে দেন মেসি। কিন্তু পাঁচ মিনিটেই সমতা এনে গ্যালারিতে থাকা ৯৮ হাজার দর্শকদের সিংহভাগকেই হতাশায় ডোবান রোনাল্ডো। এ ম্যাচ ছিল দৃশ্যত মেসি ও রোনাল্ডোর সত্যিকারের দ্বৈরথে ভরা। তবে খেলার একেবারে শেষ মুহূর্তে বদলি খেলোয়াড় মার্টিন মোনটোয়ার শট ক্রসবারে না লাগলে বার্সা হয়ত জয়ের তৃপ্তিতে ভাসতে পারতো।

বার্সেলোনার মাঠে রাতটি ছিল অনেক চাপা উত্তেজনায় ঠাসা। লিগের প্রথম এল ক্ল্যাসিকো বলে কথা। তার উপর লা লিগায় নিজেদের বাজে সূচনার পর রিয়ালের পক্ষে ভাল করার কোন বিকল্প ছিল না। আর তাই খেলা শেষে মাদ্রিদ কোচ হোসে মরিনহো বলেন এখনও বার্সার সাথে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার মত আত্মবিশ্বাস রয়েছে তার দলের। তিনি বলেন,‘লিগের এই মুহূর্তে যে অবস্থা তা আগেও হয়েছে এবং এখনও আমরা শিরোপা জিততে পারি। পুরো ম্যাচটি আমি খুব একটা পছন্দ করিনি। কিন্তু আমি মনে করি আমরা ভালই খেলেছি।’ অন্যদিকে বার্সা কোচ টিটো ভিলানোভা জানিয়েছেন এই খেলায় লিগে তার টানা ছয় ম্যাচ জয়ের রথ থামলেও রিয়ালের সাথে ড্র হওয়ায় তিনি খুশি। তিনি বলেন,‘মৌসুমের শুরুতে আমরা যেভাবে পরিকল্পনা করেছিলাম সাত ম্যাচ পর আমাদের অবস্থান তাই আছে। তবে পুরো ম্যাচ নিয়ে আমি সন্তুষ্ট।’

স্বাগতিক বার্সেলোনা শুরুতে বেশি সাবধানী হয়ে খেলার চেষ্টা করে। সঙ্গত কারণেই মাদ্রিদের খেলোয়াড়রা মাঝমাঠে নিজেদের ধরে রাখাতেই সন্তুষ্ট ছিল। বার্সার আদ্রিয়ানো শেষ মুহূর্তে ক্লিয়ার না করলে শুরুর দিকেই অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়ার শট হয়তো জালে জড়াতে পারত। এসবের মধ্যেই রিয়ালের পক্ষে প্রথম ভাল সুযোগটি আসে ১২ মিনিটে। রোনাল্ডোর ক্রসে পাওয়া বলটি ভলি করে মারতে গিয়ে তা পোস্টের বাইরে পাঠিয়ে দেন ফরাসি ফুটবলার করিম বেনজেমা। ২০ মিনিটে সার্জিও রামোসও একটি ভাল সুযোগ হাতছাড়া করেন। কর্ণার থেকে পাওয়া বলে মাথা ছোঁয়ালেও তা বাইরে চলে যায়। তবে ২৩ মিনিটে বেনজেমার পাস থেকে রোনাল্ডোর বা পায়ের শটটি বার্সা গোলরক্ষক ভিক্টর ভালদেসকে কাটিয়ে ঠিকানা খুঁজে পেলে এগিয়ে যায় রিয়াল। এর মধ্যে চেষ্টা চালিয়েও বার্সার পক্ষে গোলের তেমন কোন সুযোগ সৃষ্টি করতে পারেনি মেসি, পেড্রো, ইনিয়েস্তারা। তার উপর ২৭ মিনিটে ইনজুরির কারণে ড্যানি আলভেস মাঠের বাইরে চলে গেলে বার্সার দুঃশ্চিন্তা আরো বেড়ে যায়। তার স্থানে মাঠে নামেন তরুণ মোনটোয়া। এরপরই খোলস ছেড়ে বেরিয়ে আসা বার্সেলোনা এবং ৩১ মিনিটে সমতাসূচক গোলটি করেন মেসি। এই গোলের পর থেকেই মূলত খেলার দৃশ্যপট পরিবর্তিত হতে থাকে। দুই দলই আক্রমণাত্মক হয়ে খেলার চেষ্টা করে। আর তাতে প্রথমার্ধ শেষ হয় ১-১ গোলে। যদিও এই অর্ধে উভয় দল বেশ কটি গোলের সুযোগ নষ্ট করে। মেসি আবার বল গড়ানোর পর ৬১ মিনিটে ২৫ গজ দূর থেকে দুর্দান্ত ফ্রি কিকে রিয়াল গোলরক্ষক ইকার ক্যাসিয়ারকে বোকা বানিয়ে দলকে এগিয়ে দেন। এটা ছিল ‘ক্ল্যাসিকো’ ম্যাচে মেসির ১৭তম গোল। কিন্তু ওজিলের পাস থেকে আবারও ভালদেসকে পাস কাটিয়ে রোনাল্ডোর শট জালে গেলে রিয়ালের পক্ষে সমতা ফিরে আসে। স্প্যানিশ লিগে রবিবার রাতে অনুষ্ঠিত স্প্যানিশ লিগের অন্য খেলাগুলোয় অ্যাতলেটিকো মাদ্রিদ ২-১ গোলে মালাগাকে হারিয়ে বার্সার সাথে সমান ১৯ পয়েন্টে উঠে আসে। অ্যাতলেটিকোর কলম্বিয়ান ফরোয়ার্ড ফ্যালকাও ষষ্ঠ মিনিটে গোল করে দলকে এগিয়ে দেন। এটা ছিল ফ্যালকাওর অষ্টম গোল, যা তাকে লিগে মেসি ও রোনাল্ডোর সাথে একই কাতারে এনে দেয়।

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT