টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!
শিরোনাম :
রোহিঙ্গাদের এনআইডি কেলেঙ্কারি : নির্বাচন কমিশনের পরিচালকের বিরুদ্ধে দুপুরে মামলা, বিকালে দুদক কর্মকর্তা বদলি সড়কের কাজ শেষ হতে না হতেই উঠে যাচ্ছে কার্পেটিং! আপনি বুদ্ধিমান কি না জেনে নিন ৫ লক্ষণে ৫৫ হাজার রোহিঙ্গা বাংলাদেশি ভোটার: নিবন্ধিত রোহিঙ্গাও ভোটার! ইসি পরিচালকসহ ১১ জন আসামি হ’ত্যার পর মায়ের মাংস খায় ছেলে ব্যাংকে লেনদেন এখন সাড়ে ৩টা পর্যন্ত আগামী ১৫ জুলাই পর্যন্ত লকডাউন বাড়ল মডেল মসজিদগুলোয় যোগ্য আলেম নিয়োগের পরামর্শ র্যাবের জালে ধরা পড়লেন টেকনাফ সাংবাদিক ফোরামের সদস্য ও ইয়াবা কারবারি বিপুল পরিমাণ টাকা ও ইয়াবা উদ্ধার রোহিঙ্গাদের তথ্য মিয়ানমারে পাচার করছে জাতিসংঘ: এইচআরডব্লিউ

মিয়ানমার থেকে আসা গবাদি পশুর স্বাস্থ্য পরীক্ষার ব্যবস্থা নেই!

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৫
  • ৯৫ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

মোঃ আশেক উল্লাহ ফারুকী, টেকনাফ…
ঈদুল আজহার (কোরবান) কে সামনে রেখে সীমান্ত বাণিজ্যের আওতায় শাহপরীরদ্বীপ করিডোর ঝাঁকে ঝাঁকে গবাধীপশু আসলেও পশুর স্বাস্থ্য পরীক্ষা ছাড়াই আমদানি হচ্ছে। টেকনাফ স্থল বন্দর দিয়ে মিয়ানমার থেকে ৩৫টি আমদানী যোগ্যপণ্য এবং উদ্ভীধ যাতীয়পণ্য ও মাছ খাবার উপযোগী কিনা তাহা পরীক্ষা নীরিক্ষা করার কোয়ারেন্টাইন ব্যবস্থা থাকলেও শাহপরীরদ্বীপ করিডোরে সে ব্যবস্থা নেই। এসব গবাধীপশু মিয়ানমার থেকে পরীক্ষা ছাড়াই বাজারজাতকরণ হচ্ছে। অভিযোগ উঠেছে, করিডোর দিয়ে রোগক্রান্ত গবাধীপশু অবাধে আসছে। কোরবান উপলক্ষে যেসব গবাধীপশু আমদানী হচ্ছে, তার মধ্যে প্রায় গবাধীপশু খুরারোগ বলে ও অভিযোগ উঠেছে। ২০০৩ সালে শাহপরীরদ্বীপে গবাধীপশু আমদানীর স্বার্থে সরকার করিডোর স্থাপিত করে এবং গবাধীপশুর স্বাস্থ্য পরীক্ষার স্থাপিত  হলেও গবাধীপশুর স্বাস্থ্য পরীক্ষার ব্যবস্থা এখনো গড়ে উঠেনি। ফলে পশুর স্বাস্থ্য পরীক্ষা ছাড়াই সহজেই বাজারজাতকরন হচ্ছে। করিডোর দিয়ে গত ১৮ ও ১৯ সেপ্টম্বর এ ২দিনে ৯৬১ টি গবাধী পশু আমদানী হয়েছে। ভারত থেকে গবাধীপশু আমদানির ভয়ে টেকনাফের ব্যবসায়ীরা মিয়ানমার থেকে পশু আমদানী করছেননা। কেননা ভারত থেকে গবাধীপশু আমদানী হলে ব্যবসায়ীরা আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হবে এমন শংকার মধ্যে রয়েছেন।
শাহপরীরদ্বীপ করিডোর দিয়ে যে ক’জন শীর্ষ গবাধীপশু ব্যবসায়ী রয়েছেন, তারমধ্যে সাবরাং ডেইল পাড়ার মোহাম্মদ শরীফ প্রকাশ বলী শরীফ, টেকনাফ পৌর এলাকার কুলাল পাড়ার শহীদুল ইসলাম, গোদারবিলের আবুছৈয়দমেম্বার, মোহাম্মদ দিদার ও আলমগীর।
খোজ নিয়ে জানা যায়, মিয়ানমারে টংগু ও আনডং এর প্রচুর পরিমাণ গবাধীপশু আমদানীর অপেক্ষায় রয়েছে। ভারত থেকে পশু আমদানীর ভয়ে ব্যবসায়ীরা পশু আমদানী করছেননা। যাতে ব্যবসায়ীনরা আর্থিক লোকসানে পড়ার এ ভয়ে তারা পশু আমদানী করছেন না। তবে ভোক্তাদের অভিযোগ ব্যবসায়ীরা ভারতের অজুহাতখাড়া করে পশুর কৃত্রিম সংকট এবং সিন্ডিকেট সৃষ্টি করে ক্রেতাদেনর কাছ থেকে ব্যবসায়ীরা পশু থেকে ছড়ামূল্য হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ উঠেছে। এসব গবাধীপশু মিয়ানমার থেকে হুন্ডির মাধ্যমে আমদানী করে বলে জানা যায়।
এই ব্যাপারে টেকনাফ উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তার কাছে জানতে চাইলে তার মোবাইল ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়। ফলে তার বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নী।

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT