টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!
শিরোনাম :
মেয়াদ শেষ হলেও অব্যবহৃত মোবাইল ডাটা ফেরতের নির্দেশ মন্ত্রীর টেকনাফ পৌরসভার এক গ্রামেই ক্যাম্প পালানো ১৮৩ রোহিঙ্গা স্থানীয়দের সঙ্গে মিলেমিশে বসবাস করছে মায়ের গর্ভে ১৩ সপ্তাহ্ বয়সী শিশুর নড়াচড়া হারিয়াখালী থেকে ১ কোটি ৮০ লক্ষ টাকার ইয়াবা উদ্ধার টেকনাফে তথ্যকেন্দ্রের সহযোগিতায় মীনা দলের সদস্যদের নিয়ে ই-লার্নিং প্রশিক্ষণ সম্পন্ন হ্নীলায় শিক্ষকের বিরুদ্ধে আশ্রয় নেওয়া লোকদেরকে বের করে দেওয়ার গুরুতর অভিযোগ টেকনাফের দক্ষিণ ডেইলপাড়া এলাকা হতে ২ জন গ্রেফতার এসএসসির অ্যাসাইনমেন্ট নিয়ে জরুরি নির্দেশনা মাউশির টেকনাফে’ ষষ্ঠ শ্রেনীর এক শিক্ষার্থী ধর্ষনের শিকার রোহিঙ্গা ক্যাম্পে গুলি করে একজনকে অপহরণ

মাদক কারবারি, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের তালিকাভুক্ত সাংবাদিক আব্দুর রহমানের উদ্দেশ্যে কিছু কথা!

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : শনিবার, ১৯ জুন, ২০২১
  • ৪৬০ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

টেকনাফে যতসব সাংবাদিক আছে তারমধ্যে তুর মত অসৎ, বেইমান, মুনাফেক, চোর আর কেহ নাই।
তুই স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তালিকাভুক্ত একজন চিহৃিত মাদকের গডফাদার ও উদ্ধার হওয়া ৩ লক্ষ ৮০হাজার ইয়াবার মালিক তুই আব্দুর রহমান। তুর নিজের ফিশিং বোটে ৩,৮০,০০০ ইয়াবা উদ্ধার করে তৎকালীন দায়িত্বে থাকা ওসি রঞ্জিত। লজ্জা শরম থাকলে সাংবাদিকতা করতি না।
চোখের সামনে দেখা, মোবাইলে ওয়াকম্যান দিয়ে ফিস ফিস করে বিভিন্ন অনলাইন থেকে নিউজ চুরি করে লিখতি। উখিয়ার সমকালের প্রতিনিধির বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে সেই অসুস্থ মানুষটির শেষ পর্যন্ত চাকরি খাইলি।
তুই এখন বলছিস আমি আন্তর্জাতিক লেখক, তরে লেখক বানাইছে কে? তুই তো উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র। তুর শিক্ষাগত যোগ্যতা কি?
তরে ইয়াবার মামলা থেকে বাঁচাইলো কে? তরে দৈনিক দৈনন্দিন, সমকাল ও বেনারে কে ঢুকিয়ে দিয়েছিল। আসলে তুই বেইমান মুনাফেক। তোর জন্মের পর তোর মায়ের দুধের দাম যেমন দিতে পারবি না। তেমনি গিয়াসের গুন আজীবন শোধ করতে পারবি না । কিন্তু তোর কত বড় সাহস, তুই আবার গিয়াস ও তার পরিবারের বিরুদ্ধে লিখছ?
সাংবাদিকতায় তুর জন্মের আগে গিয়াস প্রথম আলো পত্রিকায় দেশ সেরা প্রতিনিধি হয়েছিল, আর তুই নির্লজ্জ বলিস গিয়াস তুর থেকে লিখা কপি করত!
তুর নাই কোন যোগ্যতা, তুর নাই কোনো পড়ালেখা, তুই আবার গলা উচুঁ করে কথা বলছ!

আমি নুরুল হোসাইন পর বাদাইম্মা তুই তুই ভালো জানোস। আমার জীবনে কারো ক্ষতি করেছি কিনা? কারো কাজ থেকে দালালি করে এক পয়সা নিয়েছি তুই কি প্রমান দিতে পারবি?
তুই আমার বিরুদ্ধে কথা বলে কি ছিড়তে পারবি? যেখানে টেকনাফের ভাগা ভাগা নেতা পর্যন্ত আমার সামনে উচুঁ করে কথা বলতে তিনবার চিন্তা করবে।
তুই কি ভুলে গেছস, তুর বোটে যখন ৩ লক্ষ ৮০ হাজার ইয়াবা ধরা পরেছিল তখন তুকে মামলা দেওয়ার জন্য বর্তমানের তুর এখনকার সাথীরা থানায় গিয়েছিল। একজন তার পত্রিকায় ও অনলাইনে তুর পত্রিকাকে জড়িয়ে নিউজ করেছিল সেটা মনে নেই। তুই এখন তুর সাথীর সাথে বসে বসে আমাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা কথাগুলো এত সুন্দর করে লিখছ কেমনে?
এবার আই, বোটের মামলা থেকে
তুই বাঁচার জন্য ৬ লক্ষ টাকা এনেছিলি সেটা কি ভুলে গেছস। সেটা কি মিথ্যা বলতে পারবি।
তুর জন্য তুর পরিবার ও আত্মীয়-স্বজন সবাই মামলা খেয়েছে সেটা কি ভুলে গেছিস?

তুই স্বরাষ্ট্রমন্ত্রনায়লের তালিকাভুক্ত মাদককারবারী সেটা সবাই জানে কিন্তু তুই যে আন্তর্জাতিক সাংবাদিক সেটা আজ জানলাম। মাদকের তালিকায় নাম এমনি এমনি আসে না।
সাংবাদিকতা পরিচয় দিয়ে আর কত মাদক ব্যবসা করে যাবি । তুর আত্মীয়-স্বজনকে আর কত সামাল দিবি। সামাল দেওয়ার জন্য কি তুর সাংবাদিকতা? তুই তো এখন টেকনাফের ইয়াবা সাংবাদিক।

আমি যখন তুর বিরুদ্ধে স্ট্যাটাস দিলাম আমার কিছু সম্মানী ব্যক্তিকে পাঠাইলি আবার ফোন করাইলি ঐ স্ট্যাটাস ডিলেট করার জন্য, তুই ফোন করেছিলি অভাই আমি খুবই অসুস্থ, আমি তোর স্ট্যাটাস দেখে কম্বলের ভিতরে চুয়ে আছি। অভাই দয়া করে স্ট্যাটাসটা ডিলেট করে দাও। না হলে পত্রিকার চাকুরী চলে যাবে, আমার মান সম্মান চলে যাবে। পরে তুর আকুতি মিনতি দেখে স্ট্যাটাস ডিলিট করে দিলাম। কিন্তু পরের দিন আবারো আমি ও গিয়াস ভাইয়ের বিরুদ্ধে মিথ্যা অপবাদ দিচ্ছিস, আপসোস তুর মত ইয়াবা সাংবাদিকের জন্যে।
তুর বোনের জন্য আরেকজনের সংসার ভাঙার উপক্রম হয়েছিল । এটা কি মিথ্যা।

তুই তো লেখলি আমি একজন হত্যাকারী আসামী, তুই তো লিখলি আমি কুকর্ম করি, তুই তো লিখলি ক্রসফায়ারের নামে লাখ টাকা নেয়া বেকায়দায় পরে টাকা বমি করেছি,
ঐ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রনায়লের তালিকাভুক্ত আন্তজার্তিক সাংবাদিক তুই স্ট্যাটাস দিয়ে যা লিখলি সেগুলোর তুই কোন প্রমান দিতে পারবি বা সামনে সামনি মুখোমুখি করাতে পারবি? তাতো পারবি না। তুর তো সে সাহস নাই কারন তুই একজন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রনায়লের তালিকাভুক্ত একজন মাদক কারবারি।
আমি সাংবাদিক ইউনিটি’র সেক্রেটারি ও সাংবাদিক নেতা, আমার গ্রহণযোগ্যতা আছে তুই তো ভোট দিয়েছিলি, বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশনের টেকনাফ পৌর শাখার সভাপতি, টেকনাফ পৌরসভা কমিউনিটি পুলিশিং ফোরামের সাধারন সম্পাদক, টেকনাফ পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রথম বিজয়ী অভিভাবক সদস্য, উপজেলার একজন বিশিষ্ট ঠিকাদার, উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার একজন নির্বাহী সদস্য আছি বলে নেতৃত্ব দিয়ে যাচ্ছি।
ঐবেটা তুই কোন দায়িত্বে আছস?
সাহস করে বলতে পারবি তুর আসল পেশা কি? জনগণ তুর সম্পর্কে ভাল করে জানে।
হয়তো ইয়াবা ব্যবসা কর নইতো সাংবাদিকতা কর, দুই তরিতে পা দিলে মাঝখান দিয়া ছিড়ে যাবে সাবধান!

নুরুল হোসাইন
সাধারন সম্পাদক
টেকনাফ সাংবাদিক ইউনিটি।

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT