টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!

মহেশখালীর বড়–য়াপাড়া অপরাধীদের সর্গরাজ্য

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ৬ অক্টোবর, ২০১৫
  • ১০৯ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

এ.এম হোবাইব সজীব = গত বছরের পুলিশের কড়া নজরদারী কারণে অস্ত্রসহ কয়েকজন ডাকাতকে আটক করা হলে ও এখনো মূল হোতাদের ধরতে পারেনি পুলিশ। সম্প্রতি কালারমারছড়া চালিয়াতলী সড়কে সাজ্জাদ নামে এক ডাকাত গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা গেছে। অপরদিকে সড়ক ডাকাতি, জলদস্যুতা, খুন, ইয়াবা ও মানবপাচার সহ কি নেই দেশের পাহাড় সমৃদ্ধ একমাত্র দ্বীপ উপজেলার মহেশখালীতে। আর এ উপজেলার ক্রাইমজোন খ্যাত কালারমারছড়া ইউনিয়নের বড়ুয়াপাড়া অপরাধীদের সর্গরাজ্যে পরিনত হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে। জানা গেছে, অরণ্য পাহাড়ী এলাকা হওয়ায় উপজেলার শীর্ষ সন্ত্রাসী ডাকাত বজলের আস্তানা খ্যাত উত্তর নলবিলা বড়ুয়া পাড়া নিরাপদ হিসাবে বিভিন্ন এলাকা থেকে থানার তালিকাভুক্ত শীর্ষ সন্ত্রাসীরা বড়–য়া পাড়ায় এসে আস্তানা গেড়েছেন। এবং মৃত বজল ডাকাতের অক্ষত থাকা অস্ত্র গুলো উদ্ধারের দাবী জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট এলাকাবাসী।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, মহেশখালী দ্বীপের স্থলপথের যাতায়তের প্রবেশদ্বার কালারমারছড়া ইউনিয়নের চালিয়াতলী-বড়–য়া পাড়া গ্রাম। কাগজ পত্রে গ্রামটির নাম উত্তরনলবিলা বড়ুয়া পাড়া হলেও সবাই ডাকাতদের গ্রাম বলে চেনে। তাই এ গ্রামটিতে উপজেলার আর ২০/২৫টি গ্রামের চেয়ে ভিন্ন। শুনলে অবাক হওয়ার মতো যে,এ গ্রামটি বসবাসকারী শতকরা ৬০ ভাগ মানুষ ডাকাতির পেশা সঙ্গে জড়িত। পূর্ব পুরুষদের পেশা ধরে রাখতে বর্তমান প্রজন্মের এরাও এখন ডাকাত। বিভিন্ন এলাকা থেকে আসা লোকজন এ গ্রামের কথা শুনলেই যেন বুক শিউরে উঠে। পুরো উপজেলায় এই গ্রামটি ডাকাত অধ্যুষিত। কারন ডাকাতি করাটা তাদের পুরানে অভ্যাস। বাপ-দাদার পেশা হিসেবে এই পেশা কেউ ছাড়তে চায়না। আবার অনেকে ভাল হতে চাইলেও পারে না। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বিগত কয়েক বছর আগে সর্বশেষ পরিনিতি হয়েছে কালারমারছড়া উত্তরনরবিলা আফজলিয়া পাড়া গ্রামের বাসিন্দা আব্দুল হাকিমের পুত্র ডাকাত সদ্দার বজলের। তাকে সাধারণ জনগনের গণধোলাই নিহত হয়ে না ফেরার দেশে ফাঁড়ি জমালা শেষ হয় একটি কালো অধ্যায়। বর্তমানে সক্রিয় থাকা ডাকাতদের পরিনতি যদি বজলের মত হয় তা হলো এ ডাকাতি অনেকংশ হ্রাস পাবে বলে মনে করেন স্থানিয় লোকজন। সম্প্রতি ডাকাত বজলের রেখে যাওয়ায় একটি বিশাল বাহিনী উত্তর নলবিলা কালারমারছড়া, শাপলাপুর সড়ক এবং মাতারবাড়ী সড়ককে ডাকাতি,সাগরে জলদস্যুতাসহ বিভিন্ন সন্ত্রাসী কর্মকান্ড চালিয়ে যাচ্ছে আর ডাকাত সদ্দার জনগণের গণধোলাই নিহত বজলের রেখে যাওয়া ভারী অস্ত্রগুলো একরাম ডাকাতের নেতৃত্বে ডজনখানিক সন্ত্রাসীরা ব্যাবহার করছে বলে এমন কথার উদয় হচ্ছে সচেতন এলাকাবাসীর মাঝে।
অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার না হওয়ায় জনমনে নিরব আতংক বিরাজ করছে। উল্লেখ্য যে গত ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০১২ ইং তারিখ গনপিটুনিতে ডাকাত বজল মারা যায়। অনুসন্ধানে জানা গেছে, বড়–য়া পাড়া দিনের বেলায় প্রকাশ্যে চলে মদ-জুয়া ও গাঁজাটিদের আড্ডা । ইয়াবা ও হিরোইন সহ এমন কোন মাদক দ্রব্য নাই যা বড়–য়া পাড়া পাওয়া যায়না বলেও জানান এলাকার সচেতন মহল। এদিকে মাদকের ছোঁবলে পড়ে বিপদ গ্রস্থ হচ্ছে এলাকার উঠতি বয়সের যুবকরা । জানা গেছে, এলাকার কিছু প্রভাবশালী যুবক জড়িত থাকায় এ সব অপরাধীর বিরুদ্ধে কোউ প্রতিবাদ করতে সাহস পায় না। আবার কোউ এর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করলে তার উপর নেমে আসে অমানুষিক অত্যচার নির্যাতন । এ ভয়ে সবাই টু শব্দটি ও করে না এলাকায়। যার কারনে নির্বিঘেœ চলছে এসব অপরাধমুলক কর্মকান্ড। স্থানিয় এলাকাবাসীর সাথে আলাপ করে জানা গেছে, পুলিশ আন্তরিক হয়ে তার বাহিনীর সদস্যদের গ্রেফতার করা হলে কালারমারছড়া ইউনিয়নের ডাকাতি বন্ধ হবে । একই ভাবে রাজনৈতিক ব্যাক্তি ও সুশিল সমাজের অভিমত,পুলিশ-র‌্যাব যদি কঠোর হস্তে কালারমারছড়া ইউনিয়নের জনপদ রক্ষা না করে তাহলে ৩/৪ বছরের মধ্যে উক্ত এলাকা দিয়ে সাধারণ মানুষ চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়বে। জরুরী ভাবে আইনশৃংখলা বাহিনী ব্যবস্থা না নিলে এলাকাবাসী তাদের হাতে জিম্মি হয়ে পড়বে আর এতে করে যে কোন মুহুর্তে ভয়াবহ আইন শৃংখলা অবনতির সম্ভাবনা রয়েছে বলেও জানান। এ বিষয়ে মুঠো ফোনে কালারমারছড়া পুলিশ ফাঁড়ীর নবাগত আইসি এস.আই আলমগীরের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন অপরাধীদের গ্রেফতার করতে পুলিশের চলতি অভিযান জোরদার রয়েছে ।

প্রেরক-
এ.এম হোবাইব সজীব
স্টাপ রিপোর্টার,
তাঃ ০৫.১০.১৫
মোবাঃ ০১৮৩৩-৪৭৩২৯০/ ০১৮১৫-০৬৪৩৭২

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT