টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!

ভোটার হালনাগাদ.. উখিয়া-টেকনাফে রোহিঙ্গারা তৎপর

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : শনিবার, ১৪ জুলাই, ২০১২
  • ২৩৬ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

রফিক উদ্দিন বাবুল,…উখিয়ায় হালনাগাদ ভোটার তালিকায় অন্তর্ভুক্তির জন্য রোহিঙ্গারা তৎপর হয়ে উঠেছে। বিশেষ করে কুতুপালং রোহিঙ্গা বস্তিতে বসবাসরত লক্ষাধিক রোহিঙ্গা স্থানীয় দালালদের ম্যানেজ করার জন্য বিভিন্ন গ্রাম-গঞ্জে ঢুকে পড়ছে। তারা যে কোন উপায়ে নাগরিকত্ব লাভের জন্য হালনাগাদ কার্যক্রমকে মোক্ষম সময় বলে স্থির করে প্রয়োজনীয় কাগজ পত্রসংগ্রহ করতে ব্যস্ত হয়ে উঠেছে। এ মুহুর্তে স্থানীয় প্রশাসন সতর্কতা অবলম্বন না করলে রোহিঙ্গারা যে কোন উপায়ে ভোটার হওয়ার সুযোগ গ্রহণ করতে পারে বলে দাবি করছেন সচেতনমহলজানা গেছে, ২০০৯ সালে প্রণীত হালনাগাদ ভোটার তালিকায় এ উপজেলার ৫ ইউনিয়নে ৯,৫০৯ জন ভোটার রেজিস্ট্রেশনের আওতায় আসে। পরবর্তী সময়ে উপযুক্ত তথ্য-প্রমাণাদি না পাওয়াতে ৫,৮৩৬ জনের রেজিস্ট্রেশন বাতিল করেন নির্বাচন অফিসার। যাদের অধিকাংশই রোহিঙ্গা নাগরিক বলে প্রমাণিত হয়েছে। কক্সবাজারের সীমান্তবর্তী বিভিন্ন উপজেলার প্রায় ৫০ হাজার রোহিঙ্গা ভোটারকে শনাক্ত করে তাদের হালনাগাদ ভোটার তালিকা হতে বাদ দেওয়া হয়। এ ঘটনা নিয়ে নির্বাচন কমিশন মিয়ানমার সীমান্তবর্তী ১২টি উপজেলাকে স্পর্শকাতর হিসেবে চিহ্নিত করেন। এসব  উপজেলাগুলো হচ্ছে কক্সবাজার সদর, চকরিয়া, উখিয়া, টেকনাফ, রামু, পেকুয়া, বান্দরবান জেলা সদর, আলী কদম, লামা, নাইক্ষ্যংছড়ি, বিলাইছড়ি ও কাপ্তাই।

গত বুধবার ইসি সচিবালয়ে অনুষ্ঠিত নির্বাচন কমিশনের সভায় ইসি সচিব ড. মো মাফিক বলেন, বর্তমান হালনাগাদ ভোটার তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হয়ে জাতীয় পরিচয়পত্র সংগ্রহের জন্য চেষ্টা করে যাচ্ছে রোহিঙ্গারা। তিনি বলেন, রোহিঙ্গারা যাতে কোনভাবে ভোটার হতে না পারে সে ব্যাপারে ১২টি স্পর্শকাতর উপজেলার জন্য বিশেষ ভোটার তথ্য ফরম ছাপানো হয়েছে। উপজেলা নির্বাচন অফিসসূত্রে জানা গেছে, আগামী ১৫ জুলাই রবিবার থেকে এ উপজেলার হালনাগাদ ভোটার তালিকা প্রনয়নের কার্যক্রম শুরু হচ্ছে। নির্বাচন অফিসার সাইদ মোহাম্মদ আনোয়ার খালেদ বলেন, ইতিমধ্যে ১৪ জন সুপারভাইজার ও ৬২ জন তথ্য সংগ্রহকারী নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। তারা ১০দিনব্যাপী ভোটার নিবন্ধন, ভোটার স্থানান্তর, আইডিকার্ড বিতরণ, মৃতব্যক্তি শনাক্তকরণসহ নামকর্তন ও নতুন ভোটারদের রেজিস্ট্রেশনের কাজ করবেন। এ সময় রোহিঙ্গারা যাতে কোনভাবে ভোটার তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হতে না পারে সে ব্যাপারে সুপারভাইজার ও তথ্য সংগ্রহকারীদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এদিকে হালনাগাদ ভোটার তালিকায় অন্তর্ভুক্তির জন্য এ উপজেলার কুতুপালংয়ে অবৈধভাবে বসবাসরত ৬০ হাজার রোহিঙ্গাসহ ছড়িয়ে-ছিটিয়ে থাকা আরও লক্ষাধিক রোহিঙ্গা নাগরিক তৎপর হয়ে উঠেছে।

সরজমিন কুতুপালং বাজার ঘূুরে দেখা যায়, প্রায় শতাধিক ইন্টারনেটের দোকানে চলছে নানা ধরনের সনদপত্র তৈরির কাজ। তারা স্থানীয় দালালদের মোটা অংকের টাকায় ম্যানেজ করে জন্মসনদপত্র সংগ্রহের  জন্য ইতিমধ্যেই বস্তি ছেড়ে লোকালয়ে অবস্থানরত আত্নীয়-স্বজনের বাড়িতে আশ্রয় নিয়ে তদবির চালাচ্ছে। রোহিঙ্গারা হালনাগাদ ভোটার হওয়ার আশায় মোটা অংকের মিশন নিয়ে ইতিমধ্যে তথ্য সংগ্রহকারীদের বাড়িতেও ধর্ণা দিচ্ছে বলেও অভিযোগ উঠেছে। রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন সংগ্রাম পরিষদের আহবায়ক অধ্যক্ষ হামিদুল হক চৌধূরী বলেছেন, একজন রোহিঙ্গাও ভোটার হয়েছে প্রমাণিত হলে স্থানীয় প্রশাসনের বিরুদ্ধে দুর্বার আন্দোলন গড়ে তোলা হবে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. জহিরুল ইসলাম বলেন, নির্বাচন কমিশন যে বিশেষ ফরমগুলো সরবরাহ করেছে সেগুলো যথাযথভাবে পূরণ করা হলে রোহিঙ্গাদের পক্ষে ভোটার হওয়ার কোন সুযোগ থাকবে না। সেদিকেই সকলের নজর রাখতে হবে।

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT