টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!

বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব শুরু

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ১০ জানুয়ারি, ২০১৩
  • ২০৬ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

মোঃ হেদায়েত উল্লাহ, টঙ্গী থেকে : তাবলীগ জামাতের দুই পর্বে বিভক্ত বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব আগামীকাল (শুক্রবার) বাদ ফজর থেকে টঙ্গীতে শুরু হচ্ছে। ইতিমধ্যেই বিশ্ব ইজতেমার সুবিশাল প্যালসহ আনুষঙ্গিক সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। মুসল্লিগণ দলে দলে আসতে শুরু করেছেন। সরকারের পক্ষ থেকে দেশী-বিদেশী লাখ লাখ মুসল্লীর নিরাপত্তার বিষয়টি সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব পাচ্ছে এবারের বিশ্ব ইজতেমায়। এতদঞ্চলের সর্ববৃহৎ মুসলিম সমাবেশ বিশ্ব ইজতেমাকে কেন্দ্র করে শিল্পনগরী টঙ্গীকে ইতিমধ্যে কঠোর নিরাপত্তা নজরদারিতে আনা হয়েছে। সেনাবাহিনী, র‌্যাব, পুলিশ, আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন ও আনসার বাহিনীর প্রায় সাড়ে ১১ হাজার নিরাপত্তা কর্মীর নিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে গতকাল (বুধবার) থেকে। বিশ্ব ইজতেমা ময়দান ছাড়াও প্রতিটি প্রবেশ পথ, মহাসড়কের গুরুত্বপূর্ণ স্থানসমূহ এবং টঙ্গীর আনাচে-কানাচে আইন-শৃংখলা বাহিনীর সদস্যগণ অবস্থান নিয়ে দায়িত্ব পালন করছেন।
তাবলীগ জামাতের দুই পর্বে বিভক্ত বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব আগামীকাল শুক্রবার বাদ ফজর থেকে টঙ্গীর তুরাগ নদীর তীরে শুরু হচ্ছে। ১১, ১২ ও ১৩ জানুয়ারী প্রথম পর্ব তিন দিনব্যাপী বিশ্ব ইজতেমায় দেশী-বিদেশী সর্বাধিকসংখ্যক মুসল্ল¬ীর সমাগম হবে বলে ইজতেমার আয়োজকগণ আশা প্রকাশ করছেন। মাঝে চারদিন বিরতির পর ১৮, ১৯ ও ২০ জানুয়ারী দ্বিতীয় পর্ব পুনরায় তিন দিনব্যাপী ইজতেমা অনুষ্ঠিত হবে। দুই পর্বে অনুষ্ঠিতব্য বিশ্ব ইজতেমার আখেরী মুনাজাত দুইবারই হবে বলে ইজতেমা আয়োজক কমিটির অন্যতম সদস্য এরশাদুল হক গতকাল  বলেছেন। আয়োজক কমিটির আরেক অন্যতম মুরুব্বি গিয়াস উদ্দিন জানান, দুই দফায় পৃথক পৃথক আখেরী মুনাজাত শেষে মুসল্ল¬ীগণ দাওয়াতি কাজে বের হবেন।
আগামীকাল (শুক্রবার) বাদ ফজর সাধারণের জন্য আ’ম বয়ানের মধ্য দিয়ে এবারের বিশ্ব ইজতেমার আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু হলেও গতকাল (বুধবার) বাদ ফজর থেকেই সমবেত মুসল্ল¬ীদের উদ্দেশে তাবলীগ জামাতের শীর্ষস্থানীয় আলেমগণ বয়ান করেছেন।
গতকাল (বুধবার) সন্ধ্যা পর্যন্ত বিশ্ব ইজতেমায় আগত মুসল্লি¬গণ যার যার জেলাওয়ারী খিত্তায় অবস্থান নিচ্ছেন। ধীরে ধীরে জামাতবন্দি মুসল্ল¬ীগণ জিকিরে-ফিকিরে এবং যার যার ডানে চলার মধ্য দিয়ে ইজতেমা ময়দানের দিকে অগ্রসর হচ্ছে। ইজতেমা মাঠের প্রত্যেক প্রবেশপথে আইন-শৃংখলা বাহিনীর সদস্যগণ মেটাল ডিটেক্টর দ্বারা মুসল্ল¬ীদের দেহ তল্ল¬াশি করে মাঠে প্রবেশ করাচ্ছেন। এছাড়া প্রতিটি প্রবেশপথে বসানো হয়েছে ক্লোজ সার্কিট ক্যামেরা। ইজতেমা মাঠে আগত মুসল্লীদের খিত্তার জিম্মাদারদের সাথে যোগাযোগ করে তার নির্দেশ মোতাবেক কাজ করতে বলা হচ্ছে। মুসল্ল¬ীরা প্যা-েলের বাইরে খোলা জায়গায় নির্ধারিত স্থানে রান্নাবান্নার কাজ করছেন।
বরাবরের মত ইজতেমা ময়দানের উত্তর-পশ্চিম কোণে বিদেশী মেহমানদের জন্য টিন দ্বারা বিশেষভাবে প্যা-েল নির্মাণ করা হয়েছে। বিদেশীদের প্যা-েলের একজন জিম্মাদার জানান, গতকাল পর্যন্ত ভারত, পাকিস্তান ও সৌদি আরবসহ প্রায় ত্রিশটি দেশ থেকে নয় শতাধিক বিদেশী মেহমান মাঠে এসে পৌঁছেছেন। বিদেশী মেহমানদের বাংলাদেশে আসা অব্যাহত রয়েছে।
টঙ্গী হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, ইজতেমায় আগত মুসল্ল¬ীদের চিকিৎসা সুবিধা প্রদানে টঙ্গী হাসপাতালে আরো ৫০টি শয্যা বাড়ানো হয়েছে। এছাড়া বিশেষজ্ঞ ডাক্তারদের নিয়ে পৃথক বার্ণ ইউনিট, এ্যাজমা ইউনিট, অর্থোপেডিক ইউনিট, সার্জারী ইউনিট ও ডায়রিয়া ইউনিট আজ (বৃহস্পতিবার) থেকে চালু হয়ে দ্বিতীয় দফার আখেরি মোনাজাতের পরদিন আগামী ২১ জানুয়ারী সোমবার পর্যন্ত চলবে। ইজতেমা চলা অবস্থায় ১২টি এম্বুলেন্স প্রস্তুত রাখা হবে। বিশ্ব ইজতেমা মাঠে ১৩৫টি মেডিক্যাল টীম কাজ করবে। স্যানিটেশন বিভাগ থেকে জানানো হয়, বিশ্ব ইজতেমা চলা অবস্থায় খাদ্যদ্রব্যের মান নিয়ন্ত্রণে ২৫টি টিম ইতিমধ্যে মাঠে কাজ শুরু করেছে।
টঙ্গী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জানান, সেনাবাহিনী ও র‌্যাবের গোয়েন্দা সদস্য, এসবি, এনএসআই, সিআইড ও ডিবি সদস্যরা সাদা পোশাকে ও মুসল্ল¬ীবেশে ইজতেমা মাঠের ভেতরে সড়কপথে এবং আশপাশের এলাকায় দায়িত্ব পালন করবেন। ইজতেমা মাঠের পঞ্চাশেরও অধিক স্থানে ক্লোজসার্কিট ক্যামেরা স্থাপন করে পুলিশ ও র‌্যাব কন্ট্রোল রুম থেকে মনিটরিং করা হবে। এছাড়া ইজতেমা মাঠকে উপর থেকে নজরদারির জন্য সুউচ্চ মনিটরিং টাওয়ার নির্মাণ ছাড়াও ইজতেমা চলাকালে র‌্যাব সদস্যদের হ্যালিকপ্টার টহলের ব্যবস্থা করা হয়েছে।
মুসল্লীদের যাতায়াতের জন্য নারায়ণগঞ্জ, জামালপুর, আখাউড়া ও লাকসাম থেকে বিশেষ ট্রেন সার্ভিস চালু করা হচ্ছে। এছাড়া মুসল্লীদের সুবিধার্থে ইজতেমা চলাকালে শাটল ট্রেন চালু থাকবে। আখেরি মোনাজাতের দিন টঙ্গী রেল গেটের ইন্টারলক সিস্টেম তুলে দেয়া হবে।
জেলাওয়ারী খিত্তা
বিশ্ব ইজতেমায় আগত মুসল্লী¬দের সুবিধার জন্য জেলাওয়ারী খিত্তায় ভাগ করা হয়েছে। খিত্তাগুলো হচ্ছে- গাজীপুর খিত্তা নং-১, ২, ঢাকা ৩, ৪, ৫, ৬, ৭, ৮, ৯, ১০, ১১, ১২, সিরাজগঞ্জ ১৩, নরসিংদী ১৪, ফরিদপুর ১৫, রাজবাড়ী ১৬, শরীয়তপুর ১৭, কিশোরগঞ্জ ১৮, রংপুর ১৯, নাটোর ২০, মেহেরপুর ২১, রাজশাহী ২২, গাইবান্ধা ২৩, জয়পুরহাট ২৪, লালমনিরহাট ২৫, হবিগঞ্জ ২৬, দিনাজপুর ২৭, সিলেট ২৮, চাঁদপুর ২৯, ফেনী ৩০, চট্টগ্রাম ৩১, বান্দরবান, রাঙামাটি ও খাগড়াছড়ি ৩২, বাগেরহাট ৩৩, কুষ্টিয়া ৩৪, নড়াইল ৩৫, চুয়াডাঙ্গা ৩৬, যশোর ৩৭, ভোলা ৩৮, বরগুনা ৩৯, ঝালকাঠি। ঢাকা মহানগরের জন্য আলাদা খিত্তা রয়েছে। গতকাল (বুধবার) এজতেমা ময়দান ঘুরে দেখা যায়, ময়দানের আনুষঙ্গিক সর্বশেষ প্রস্তুতিকাজ সম্পন্ন হয়েছে। জেলা প্রশাসক নূরুল ইসলাম বলেন, দু’পর্বের এজতেমা সফল করতে জেলা প্রশাসন সর্বাত্মক সহযোগিতা করে যাচ্ছে।
ইতোমধ্যে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক ও আশপাশ এলাকার অশ্লীল পোস্টার, ব্যানার ও অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ ও জঞ্জালমুক্ত করে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করা হয়েছে। সড়কগুলো যানজটমুক্ত রাখতে ব্যাপক ট্রাফিক পুলিশ মোতায়েনসহ ফুটপাত দখলমুক্ত করা হয়েছে।
ইজতেমা ময়দানের পার্কিং ব্যবস্থা : দূর-দূরান্ত থেকে আগত মুসল্লী¬গণের যানবাহন পার্কিং-এর জন্য শুধুমাত্র নিম্নবর্ণিত স্থানসমূহ নির্ধারণ করা হয়েছে। ঢাকা মহানগর এলাকা ঃ সাধারণ পার্কিং নিকুঞ্জ-১ আবাসিক এলাকার খালি জায়গা। উত্তরা ৬নং সেক্টর ও রাজউক কলেজের আশপাশের খালি জায়গা। সিলেট বিভাগ পার্কিং-উত্তরা ১২নং সেক্টর। বরিশাল বিভাগ পার্কিং-ধৌড় ব্রিজ ক্রসিং সংলগ্ন পার্কিং (ধৌড় ব্রিজ থেকে ২০০ গজ পশ্চিমে রাস্তার বাম পাশে। ঢাকা বিভাগ পার্কিং-সোনারগাঁও জনপথ সড়কের পূর্ব হতে পশ্চিম প্রান্ত। খুলনা বিভাগ পার্কিং-উত্তরা ১০ ও ১১ নং সেক্টর সড়কের উভয় পার্শ্ব। রংপুর বিভাগ পার্কিং-প্রতাশা হাউজিং। চট্টগ্রাম বিভাগ পার্কিং-উত্তরা ১৩নং সেক্টরস্থ গাউছুল আজম রোড ও গরীবে নেওয়াজ রোডের উভয় পার্শ্ব। রাজশাহী বিভাগ পাকিং- কামারপাড়া হাউজিং মাঠ এবং উত্তরা ১০ নং সেক্টরের খালি জায়গা।
গাজীপুর জেলা ঃ কে-টু/নেভী সিগারেট ফ্যাক্টরি সংলগ্ন টঙ্গী, গাজীপুর। কাদেরিয়া টেক্সটাইল গেট গ্যাপ, পূর্ব পার্শ্বে ফাঁকা জায়গা, টঙ্গী, গাজীপুর। কাদেরিয়া টেক্সটাইল মিল প্রাঙ্গণ, টঙ্গী, গাজীপুর। মেঘনা টেক্সটাইল মিল সংলগ্ন রাস্তার উভয় পার্শ্ব, টঙ্গী, গাজীপুর। শফিউদ্দিন সরকার একাডেমী মাঠ, টঙ্গী, গাজীপুর। জয়দেবপুর চৌরাস্তা ট্রাক স্ট্যান্ড, জয়দেবপুর, গাজীপুর। চান্দনা হাই স্কুল মাঠ, চৌরাস্তা, জয়দেবপুর, গাজীপুর। ভাওয়াল বদরে আলম কলেজ মাঠ, জয়দেবপুর, গাজীপুর।
ঢাকা জেলা : আশুলিয়া কলেজ মাঠ। আশুলিয়া হাই স্কুল মাঠ। নবীনগর-বাইপাস-আশুলিয়া সড়ক ও প্রগতি সরণি হয়ে এয়ারপোর্ট রোড দিয়ে আগত মুসল্লী¬বাহী রিজার্ভ বাসসমূহ উপরোক্ত পার্কিং স্থানসমূহের পার্শ্বে বিভাগওয়ারি নির্দিষ্ট স্থানে পার্কিং করতে হবে। ঢাকা শহর হতে আগত মুসল্লী¬বাহী বাসসমূহ নিকুঞ্জ-১ আবাসিক এলাকা এবং উত্তরা ৬নং সেক্টর ও রাজউক কলেজের আশপাশের খালি জায়গায় পাকিং করতে হবে। ভিআইপি গমনাগমনের সময় এয়ারপোর্ট রোড, আব্দুল্লাহপুর হয়ে ধৌড় ব্রিজ পর্যন্ত সকল প্রকার যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকবে।
যে সকল স্থানে পার্কিং করা যাবে না : মহাখালী ক্রসিং হতে টঙ্গী হয়ে গাজীপুর চৌরাস্তা পর্যন্ত সড়কের দুই পার্শ্বে। আব্দুল্ল¬াহপুর থেকে বাইপাস পর্যন্ত সড়কের দুই পার্শ্বে। আব্দ্ল্লু¬াহপুর থেকে বাইপাল পর্যন্ত সড়কের দুই পার্শ্ব। প্রগতি সরণিস্থ মধ্যবাড্ডা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে প্রগতি সরণিস্থ সড়কের দুই পার্শ্বে। অবৈধভাবে পার্কিংকৃত যানবাহন অপসাধারণ করা হবে। যানবাহন চলাচলে শৃঙ্খলা রক্ষা, যানজট এড়ানো ও মুসল্লী¬গণের যাতায়াত সুগম করার লক্ষ্যে পুলিশ হেডকোয়ার্টার সকলের সর্বাত্মক সহযোগিতা কামনা করছে। এছাড়া বিশ্ব ইজতেমা উপলক্ষে বিশেষ ট্রেন ও বিআরটিসি অতিরিক্ত বাসের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT