বন্ধের পর মিয়ানমার থেকে ১ দিনে ৩ হাজার গবাদিপশু আমদানি

প্রকাশ: ১০ আগস্ট, ২০১৯ ১:৩৫ : পূর্বাহ্ণ

জসিম মাহমুদ,টেকনাফ []

ছয় দিন বন্ধ থাকার পর বঙ্গোপসাগর শান্ত হওয়ায় শুক্রবার থেকে আবার মিয়ানমার থেকে পশু আমদানি শুরু হয়েছে। টেকনাফের শাহপরীর দ্বীপ করিডর দিয়ে শুক্রবার এক দিনেই এসেছে ২ হাজার ৯৯৮টি গরু ও মহিষ।এর মধ্যে গরুর সংখ্যা ২ হাজার ৬২৮ ও মহিষের সংখ্যা ৩৭০টি।
সাগর উত্তাল ও বিপৎসংকেত বহাল থাকায় ৩ থেকে ৮ আগস্ট পর্যন্ত মিয়ানমার থেকে পশু আমদানি বন্ধ ছিল। এর আগে ২৯ জুলাই থেকে ২ আগস্ট পর্যন্ত মিয়ানমার থেকে ৫ হাজার ৪৯৬টি পশু আমদানি করা হয়েছিল।

শুক্রবার দুপুর থেকে বিকেল পর্যন্ত শাহপরীর দ্বীপ করিডরে ১৪টি কার্গো ট্রলারে করে মিয়ানমারের আকিয়াব থেকে ২ হাজার ৯৯৮টি গরু ও মহিষ এনেছেন ব্যবসায়ীরা। এর মধ্যে গরুর সংখ্যা ২ হাজার ৬২৮ ও মহিষের সংখ্যা ৩৭০টি।
পশু ব্যবসায়ী শহিদুল ইসলাম বলেন, মিয়ানমার থেকে আনা দুই থেকে সাড়ে তিন মণ ওজনের প্রতিটি গরু বিক্রি হচ্ছে ৫৫ থেকে ৭০ হাজার টাকায়। একই ওজনের দেশি গরু কয়েক দিন আগে টেকনাফের বাজারে বিক্রি হয়েছে ৬৫ থেকে ৯০ হাজার টাকায়। মিয়ানমার থেকে গরু আসায় স্থানীয় লোকজন কম দামে গরু কিনতে পারবেন বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।

টেকনাফ শুল্ক বিভাগের কাস্টমস সুপার মো. ময়েজ উদ্দিন বলেন, ‘মিয়ানমার থেকে পশু আনার জন্য আমরা ব্যবসায়ীদের উৎসাহিত করছি। এত দিন সাগর উত্তাল থাকায় মিয়ানমার থেকে পশু আনা যায়নি। আজ শুক্রবার বিকেল পর্যন্ত বিপুল পরিমাণ পশুভর্তি ১৮টি কার্গো ট্রলার শাহপরীর দ্বীপ জেটিতে এসে নোঙর করেছে। পশুগুলো খালাস করার কাজ চলছে। এরই মধ্যে ১৪ লাখ ৯৯ হাজার টাকার রাজস্ব আদায় করা হয়েছে।


সর্বশেষ সংবাদ