টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!
শিরোনাম :
শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখা সবচেয়ে বড় ভুল : ডা. জাফরুল্লাহ মাদক কারবারি, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের তালিকাভুক্ত সাংবাদিক আব্দুর রহমানের উদ্দেশ্যে কিছু কথা! ভারী বৃষ্টির সতর্কতা, ভূমিধসের শঙ্কা মোট জনসংখ্যার চেয়েও ১ কোটি বেশি জন্ম নিবন্ধন! বাড়তি নিবন্ধনকারীরা কারা?  বাহারছড়া শামলাপুর নয়াপাড়া গ্রামের “হাইসাওয়া” প্রকল্পের মাধ্যমে সচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণ ও বার্তা প্রদান প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া ঘর উদ্বোধন উপলক্ষে টেকনাফে ইউএনও’র প্রেস ব্রিফ্রিং টেকনাফের ফাহাদ অস্ট্রেলিয়ায় গ্র্যাজুয়েট ডিগ্রী সম্পন্ন করেছে নিখোঁজের ৮ দিন পর বাসায় ফিরলেন ত্ব-হা মিয়ানমারে পিডিএফ-সেনাবাহিনী ব্যাপক সংঘর্ষ ২শ’ বাড়ি সম্পূর্ণ ধ্বংস বিল গেটসের মেয়ের জামাই কে এই মুসলিম তরুণ নাসের

ফাঁকা ঢাকায় সুনসান নীরবতা

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ১৩ মে, ২০২১
  • ৮৬ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

টেকনাফ নিউজ ডেস্ক :: করোনাভাইরাসের মধ্যে বিধিনিষেধের তোয়াক্কা না করে সপ্তাহজুড়েই ছিল নগরবাসীর কেনাকাটা আর গ্রামে ফেরার ব্যস্ততা। দূরপাল্লার পরিবহন না থাকলেও বিকল্প পরিবহনে ঢাকা ছেড়েছে মানুষজন। ঈদের আগের দিন ফাঁকা হয়ে এসেছে রাজধানী। এ যেন অচেনা ঢাকা। কোলাহল নেই, যানজট নেই, নেই ব্যস্ততা। চারিদিকে সুনসান নীরবতা।

আজ বৃহস্পতিবার রাজধানীর ধানমন্ডি, শাহবাগ, নিউমার্কেটসহ বেশকিছু এলাকা ঘুরে দেখা যায় গত কিছুদিনের তুলনায় সড়কে ব্যস্ততা একেবারেই কম।

এসব এলাকায় কমবেশি সিএনজি চালিত অটোরিক্সা, রিক্সা, ব্যক্তিগত পরিবহন চলতে দেখা গেলেও সিটি বাস ও ভাড়ায় চালিত মোটরসাইকেল কম চলাচল করছে।

তবে, এর মধ্যেও জরুরী সেবাদান প্রতিষ্ঠানের কিছু মানুষ বের হয়েছেন কর্মস্থলের উদ্দেশে। ধানমন্ডি এলাকায় কথা হয় একটি হাসপাতালে কর্মরত শারমিন জাহানের সঙ্গে। তিনি বলেন, ঈদের ছুটি না থাকায় হাসপাতালে যাচ্ছি। আজ রাস্তা একদমই ফাঁকা, এজন্য কম সময়ে চলে আসতে পেরেছি।

এদিকে ফাঁকা রাজধানীতে অনেকে আবার বেরিয়েছেন শেষ মূহুর্তের শপিংয়ে। কথা হয় বেশ কয়েকজনের সাথে। তারা জানান, ঢাকায় ঈদ করবেন এজন্য পরে কেনাকাটা করছেন। আগে ভীড় ছিল এজন্য আসেননি।

তবে সকাল থেকে উত্তরা, আমিনবাজারসহ রাজধানীর প্রবেশমুখগুলোতে ঘরমুখো মানুষের ভীড় দেখা গেছে। ঈদ সামনে রেখে শেষ মূহুর্তে ঘরমুখো মানুষজনই বের হয়েছেন বেশি।
কলাবাগান বাসস্ট্যান্ডে বাসের জন্য অপেক্ষা করছিলেন কবির হোসেন। তিনি বলেন, বাড়িতে যাওয়ার জন্য বের হয়েছি। সরাসরি বাস না চলায় ভেঙ্গে যেতে হবে। এত ঝামেলা নিয়েও বাড়িতে পৌঁছাতে পারলে ভালো লাগবে।

এদিকে, দেশের সবচেয়ে ব্যস্ততম মহাসড়ক ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে যানবাহন চলাচল করছে স্বাভাবিকভাবে। হাইওয়ে পুলিশ জানায়, মহাসড়কে গাড়ির চাপ না থাকায় কোথাও কোনো যানজট নেই।

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT