টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!
শিরোনাম :
করোনার উপসর্গ দেখা দিলে ‘আইসোলেশনে’ থাকবেন যেভাবে ১২-১৩ এপ্রিল দূরপাল্লার বাস চলবে না : জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী টেকনাফে সরকারি নির্দেশনা অমান্য করে বিকাল ৫.০০ টার পর একাধিক দোকান ও শপিংমল খোলা রাখায় জরিমানা চেয়ারম্যান -মেম্বারদের চলতি মেয়াদ আরও তিন মাস বাড়ছে স্বাস্থ্যসেবা ব্যবস্থাপনায় ৬৪ জেলার দায়িত্বে ৬৪ সচিব মেয়ের বিয়ের যৌতুকের টাকা জোগাড় করতে না পেরে বাবার আত্মহত্যা মিয়ানমারে গুলিতে আরও ১০ জন নিহত যুক্তরাষ্ট্রে বিশেষ স্বীকৃতি পাচ্ছেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অপহরণ করে মুক্তিপণ, র‌্যাবের ৪ সদস্য পুলিশের হাতে গ্রেফতার ১৪ এপ্রিল থেকে সারা দেশে সর্বাত্মক লকডাউন

প্রাথমিকে নিয়োগ পাচ্ছেন ৪৮ হাজার শিক্ষক

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : বুধবার, ২৯ মে, ২০১৩
  • ১৫৫ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

pppppppppppঢাকা: সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ২০১৪ সালের মধ্যে ৪৮ হাজার শিক্ষক নিয়োগ করবে সরকার। এছাড়া ২০১৮ সালের মধ্যে আরও এক লাখ শিক্ষক নিয়োগের পরিকল্পনা রয়েছে।

এসব নিয়োগ প্রক্রিয়া শেষ হলে প্রতি ৪০ জন শিক্ষার্থীর বিপরীতে একজন করে শিক্ষক হবে বলে জানিয়েছেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মোতাহার হোসেন।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রায় তিন হাজার প্রধান শিক্ষক পদে নিয়োগের জন্য চূড়ান্ত ফলাফলের অপেক্ষায় রয়েছে। এছাড়াও প্রাক-প্রাথমিক শ্রেণীর জন্য ১৫ হাজার সহকারী শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়াধীন আছে। এক মাসের মধ্যেই প্রধান শিক্ষক পদে মৌখিক পরীক্ষা ও সহকারী শিক্ষক পদের লিখিত পরীক্ষার ফল প্রকাশ পাবে।

প্রতিমন্ত্রী মোতাহার হোসেন বাংলানিউজকে জানান, প্রাক-প্রাথমিকের জন্য আগামী বছর আরও ১৫ হাজার শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া হবে।

এছাড়া পুলে নিয়োগ পাওয়া ১৫ হাজার শিক্ষককেও শূন্য পদের বিপরীতে আগামী বছর থেকে ধাপে ধাপে নিয়োগ দেওয়া হবে বলে জানান তিনি। প্রাথমিকের জন্য পুল গঠন করে এসব শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া হলেও অর্থাভাবে তাদের পদায়ন হয়নি।

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বর্তমানে একজন শিক্ষকের বিপরীতে ৪৭ জন শিক্ষার্থী রয়েছে জানিয়ে মোতাহার বলেন, “আমরা শিক্ষক-শিক্ষার্থীর অনুপাত ১:৪০ করতে চাই। এজন্য ২০১৮ সালের মধ্যে আরও এক লাখ শিক্ষক নিয়োগে সরকারের পরিকল্পনা রয়েছে।”

তিনি জানান, গত ৯ জানুয়ারি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের ২৬ হাজার ১৯৩টি বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় জাতীয়করণের ঘোষণা দেন। এসব বিদ্যালয়ে এক লাখ তিন হাজার ১৯২ জন শিক্ষক কর্মরত আছেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, জুনের মধ্যে ২২ হাজার ৯৮১টি বিদ্যালয়কে জাতীয়করণের পর দ্বিতীয় ধাপে স্থায়ী/অস্থায়ী নিবন্ধনপ্রাপ্ত, পাঠদানের অনুমতিপ্রাপ্ত, কমিউনিটি এবং সরকারি অর্থায়নে এনজিও কর্তৃক নির্মিত/পরিচালিত দুই হাজার ২৫২টি বিদ্যালয়কে জাতীয়করণ করা হবে।

আর তৃতীয় ধাপে পাঠদানের অনুমতির সুপারিশপ্রাপ্ত ও পাঠদানের অনুমতির অপেক্ষাধীন ৯৬০টি বিদ্যালয়কে জাতীয়করণ করে প্রজ্ঞাপন জারি করা হবে বলে জানান মন্ত্রী।

সরকার প্রাথমিক শিক্ষাকে অগ্রাধিকার দিচ্ছে জানিয়ে প্রতিমন্ত্রী মোতাহার হোসেন বলেন, “এসব বাস্তবমুখী পদক্ষেপ প্রাথমিক শিক্ষাকে আরও এগিয়ে নিয়ে যাবে।”

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT