টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!

প্রাণচাঞ্চল্য ফিরছে সেন্ট মার্টিনে

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : শনিবার, ৮ অক্টোবর, ২০১৬
  • ৭৮ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
?
গিয়াস উদ্দিন :::
নিষেধাজ্ঞার কারণে কক্সবাজারের টেকনাফ-সেন্ট মার্টিন নৌপথে জাহাজ চলাচল বন্ধ ছিল ১৫৮ দিন। এ কারণে স্থবির হয়ে পড়েছিল সেন্ট মার্টিনের পর্যটকনির্ভর ব্যবসা-বাণিজ্য। গত বৃহস্পতিবার থেকে আবার এ নৌপথে জাহাজ চলাচল শুরু হয়। এতে প্রাণচাঞ্চল্য ফিরতে শুরু করেছে সেন্ট মার্টিনে।

গতকাল শুক্রবার সকালে কক্সবাজারের টেকনাফের দমদমিয়া ঘাটে গিয়ে দেখা যায়, সেন্ট মার্টিন যাওয়ার জন্য দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে ভিড় করেছেন পর্যটকেরা।
সাগর উত্তাল থাকায় গত ৩০ এপ্রিল টেকনাফ-সেন্ট মার্টিন নৌপথে পর্যটকবাহী জাহাজ চলাচল বন্ধ করে দেয় জেলা প্রশাসন। প্রায় পাঁচ মাস বন্ধ থাকার পর শর্ত সাপেক্ষে কেয়ারি সিন্দবাদ, কেয়ারি ক্রুজ অ্যান্ড ডাইন, বে-ক্রুজ ও এলসিটি কুতুবদিয়াকে গত বৃহস্পতিবার থেকে চলাচলের অনুমতি দেওয়া হয়। এ চারটি জাহাজের সারা বছর এ নৌপথে চলাচলের অনুমতি আছে। এ চারটি জাহাজ ছাড়া প্রতিবছর পর্যটন মৌসুমে (ডিসেম্বর-এপ্রিল) আরও চারটি জাহাজ চলাচল করে।
গতকাল কেয়ারি সিন্দবাদ ৩৭৩ জন পর্যটক নিয়ে সেন্ট মার্টিনের উদ্দেশে ছেড়ে যায়। আর বে-ক্রুজে পর্যটক ছিলেন ৭৫ জন। তবে পর্যটক কম হওয়ায় গতকাল কেয়ারি ক্রুজ অ্যান্ড ডাইন চলেনি।
জাহাজ চলাচল শুরু হওয়ায় সেন্ট মার্টিনের একটি হোটেলে পর্যটকদের কাছে বিক্রির জন্য মাছ ভাজা হচ্ছে। গতকাল দুপুরে সেন্ট মার্টিন জেটি ঘাট এলাকা থেকে তোলা ছবি l প্রথম আলোএদিকে রক্ষণাবেক্ষণ কাজ চলায় এলসিটি কুতুবদিয়া এখনই চলাচল করতে পারছে না। জাহাজটির ব্যবস্থাপক মো. আজিজ বলেন, কয়েক দিনের মধ্যে জাহাজটি চলাচল শুরু করবে।
কেয়ারি সিন্দবাদ ও কেয়ারি ক্রুজ অ্যান্ড ডাইনের টেকনাফের ব্যবস্থাপক মো. শাহ আলম বলেন, জাহাজ চলাচল যে আবার শুরু হয়েছে, সেটা অনেক পর্যটকই এখনো জানেন না। তাই এখনো যাত্রী কিছুটা কম। তবে সামনে কয়েক দিনের টানা ছুটি আছে। তখন পর্যটক বাড়বে।
জেলা প্রশাসক মো. আলী হোসেন বলেন, আবহাওয়া অধিদপ্তর বলছে সাগর এখন শান্ত। তাই জাহাজ চলাচলের অনুমতি দেওয়া হয়েছে। তবে জাহাজ কর্তৃপক্ষকে কিছু শর্ত দেওয়া হয়েছে। শর্ত না মানলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
জাহাজ কর্তৃপক্ষকে দেওয়া শর্তের মধ্যে রয়েছে—ধারণক্ষমতার চেয়ে বেশি যাত্রী না নেওয়া, বিচ ম্যানেজমেন্ট ফান্ডে ‘সেবা চার্জ’ হিসেবে যাত্রীপ্রতি ১০ টাকা জমা, সরকার অনুমোদিত জেটিঘাট ব্যবহার, যেকোনো পরিস্থিতিতে পর্যটকের নিরাপদ গন্তব্যে পৌঁছানোর ব্যবস্থা, আবহাওয়ার সতর্কসংকেত মেনে চলা, সংকেত জারির সঙ্গে সঙ্গে জাহাজ চলাচল বন্ধ রাখা, জাহাজে আনসার বাহিনী নিয়োজিত রাখা, লাইফ জ্যাকেটসহ সব নিরাপত্তামূলক ব্যবস্থা নিশ্চিত করা।
এদিকে জাহাজ চলাচল শুরু হওয়ায় প্রাণচাঞ্চল্য ফিরতে শুরু করেছে সেন্ট মার্টিনে। সেন্ট মার্টিন কটেজ মালিক সমিতির আহ্বায়ক সিদ্দিকুর রহমান বলেন, এত দিন জাহাজ চলাচল বন্ধ থাকায় দ্বীপে পর্যটক আসেননি বললেই চলে। এতে তাঁদের অলস সময় পার করতে হয়েছে। এখন জাহাজ চলাচল শুরু হওয়ায় পর্যটকে মুখরিত হতে শুরু করেছে দ্বীপটি।
সেন্ট মার্টিন ইউপি চেয়ারম্যান নুর আহমদ বলেন, জাহাজ চলাচল শুরু হওয়ায় এখানকার ৩৮টি হোটেল, ৮১টি কটেজ-বাংলো, ১০৫টি ছোট-বড় রেস্তোরাঁ, রিকশাভ্যান চালক ও ডাব বিক্রেতাদের মধ্যে প্রাণচাঞ্চল্য ফিরে এসেছে।

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT