টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!

পেকুয়ায় শালিস বৈঠকে সংঘর্ষে নিহত ১, আহত ১০, আটক ৩

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : সোমবার, ১৫ জুলাই, ২০১৩
  • ৯৯ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

মোহাম্মদ ফারুক,পেকুয়া:::পেকুয়ায় শালিসী বৈঠকে স্থানীয় দু’পরে রক্তয়ী সংঘর্ষ হয়েছে। এতে প্রতিপরে হামলায় ১ বৃদ্ধ নিহত হয়েছে। এ ছাড়া হামলায় নারীসহ ১২ জন গুরুতর আহত হয়েছে। আহতদের স্থানীয়রা উদ্বার করে পেকুয়া হাসপাতালে ভর্তি করেছে। এদের মধ্য কয়েকজনের অবস্থা আশংকাজনক। পুলিশ ঘটনার সাথে জড়িত তিনজনকে আটক করেছে। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে থানা নিয়ে এসেছে। এলাকায় টান টান উত্তেজনা চলছে। গ্রেফতার এড়াতে ওই এলাকায় শত শত লোকজন গতকাল সন্ধ্যা থেকে বাড়ি ঘর ছেড়ে পালিয়ে যাচ্ছে। উপজেলার সদর ইউনিয়নের মোরার পাড়া এলাকায় গতকাল সোমবার সকাল ১১টার দিকে ইউপি সদস্যর শালিসী বৈঠকে সংঘর্ষের এ ঘটনা ঘটে। পেকুয়া থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। পরকীয়ার সম্পর্কের জের ধরে স্থানীয় দু’প নিয়ে অমিমাংশিত বিষয়ে সদর ইউপির ৮নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মোঃজকরিয়া শালিসী বৈঠক বসছিলেন। কথাকাটাকাটির এক পর্যায়ে স্থানীয় আবদু সাত্তার গং এর সাথে তার প্রতিপ ওসমান গংদের মধ্য তুমুল সংঘর্ষ বাধে। এক পর্যায়ে ওসমান গংদের উপর্যপুরি লাঠির আঘাতে বৃদ্ধ আবদু সাত্তার (৭০) ঘটনাস্থলে মারাত্বক আহত হলে তাকে দ্রুত পেকুয়া হাসপাতালে নিয়ে আসে। তার অবস্থার অবনতি হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে জেলা সদর হাসপাতালে প্রেরণ করেন। পথিমধ্যে তিনি মৃত্যুর কুলে ঢলে পড়েন।  এ ঘটনায় পুলিশ ৩ যুবককে আটক করেছে। আটককৃতরা হলেন, রাহাত আলীর দু‘পুত্র মো: ওসমান (২৫), মো: মিজান (২২), নুরুল ইসলামের পুত্র মো: আনছার (২৫)। এ ঘটনায় নিহত আবদু সাত্তার ছাড়াও এ পরে আরো মহিলাসহ ১২ জন আহত হয়েছে। আহতরা হলেন, নিহত বৃদ্ধ আবদু ছাত্তারের পুত্র আকতার হোসেন ও মোকতার হোসেন মেয়ে মিনু আরা, বশরত আলীর পুত্র মাহমদ আলম, আবুল বশরের স্ত্রী মনোয়ারা বেগম, আহমদ হোসেনের স্ত্রী হুমায়ারা বেগম, আবুল কাসেমের স্ত্রী আয়েশা বেগম, মো: কালুর পুত্র বশির আহমদ। অপর দিকে সংঘর্ষে ওসমান গংদের পে  রহমত আলীর মেয়ে পেকুয়া বিএমআই কলেজের ছাত্রী হাসিনা বেগমসহ ৫জন আহত হয়েছে। এদেরকেও পেকুয়া হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। স্থানীয়রা জানান, আবদু সাত্তারের মেয়ে মিনু আকতারের সাথে তার প্রতিবেশি ওমান প্রবাসি মনজুর আলমের সাথে কয়েকমাস পূর্বে বিবাহ হয়েছে। মিনু আরা পরকীয়া সম্পর্কে লিপ্ত হওয়ার কথা জানাজানি হলে এ বিষয়ে স্থানীয় ইউপি সদস্য জাকারিয়াকে মনজুর আলমের পরিবার নালিশ দেয়। এ দিন ওই বৈঠকে মিনুআরা উত্তেজিত হয়ে তার ভাই শাশুর ওসমানকে উপস্থিত লোকজনের সামনে চরম অপমান করে। মূলত এখান থেকেই ঘটনার সূত্রপাত। পরে মূহর্তের মধ্য এ ঘটানাটিকে কেন্দ্র করে দু’পরে মধ্য তুমুল সংঘর্ষের সৃষ্টি হয়। এতে ওই ঘটনায় মিনুয়ারার  পিতা আবদু সাত্তার প্রতিপরে হামলায় নিহত হয়েছে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত গতকাল রাত ৮ টা পর্যন্ত  এলাকায় ভীতিকর পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে। গ্রেফতার এড়াতে পেকুয়া সদরের বলি পাড়া ও মোরার পাড়া এলাকা লোকজন বাড়িঘর ছেড়ে পালিয়ে যাচ্ছিল ।  ঘটনার বিষয়ে পেকুয়া সদর ইউনিয়নের ৮ নং ওয়ার্ড়ের ইউপি সদস্য মো: জকরিয়ার সাথে মোবাইলে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, বৈঠক শেষে ওরা বাড়ি ফেরার  পথে সংঘর্ষ লিপ্ত হয়। তবে আমি বাড়িেেত ছিলামনা । অপর ইউপি সদস্য মাহাবুল করিম ও আমি একটি রাস্তার পরিমাপ করছিলাম। বিষয়টি আমি মোবাইলে জেনেছি।
পেকুয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত) নীলু কান্তি বড়–য়া ঘটনার সত্যতা স্বীকার জানান, শালিসী বৈঠকে বৃদ্ধকে হত্যার অভিযোগে তিন যুবককে আটক করা হয়েছে। নিহতের পরিবারের লোকজন এ নিয়ে থানায় হত্যা মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে তিনি জানিয়েছেন।

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT