টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!
শিরোনাম :

পবিত্র শবে কদরের প্রস্তুতিতে মেতেছে ঈদগাঁওবাসী

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : রবিবার, ৪ আগস্ট, ২০১৩
  • ৯৭ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

Image-Eidgah-Aআতিকুর রহমান মানিক, ঈদগাঁও, কক্সবাজার। মহিমান্বিত রজনী পবিত্র লাইলাতুল কদর যথাযোগ্য মর্যাদা ও ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের সাথে পালন করতে সার্বিক প্রস্তুতিতে মেতে উঠেছে বৃহত্তর ঈদগাঁওর ধর্মপ্রাণ মুসলিম জনগোষ্টী। প্রতি বছরের মতো এ বছরও পবিত্র লাইলাতুর কদর উপলক্ষে রোজা, নামাজ, জিকির, কোরআন তিলওয়াত, কবর জিয়ারত ও অপরাপর নফল ইবাদতের মাধ্যমে আল্লাহর নৈকট্য অর্জনের জন্য প্রস্তুতি গ্রহণে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছে ঈদগাঁওবাসী। এ উপলক্ষে জবাই করার জন্য পর্যাপ্ত সংখ্যক গরু, মহিষ ও ছাগল প্রস্তুত করে রাখা হয়েছে প্রতিটি গ্রাম, পাড়া-মহল্লা ও ঈদগাঁও বাজারে। ফাতেহা উপলক্ষে হালুয়া, রুটি, ফিরনি, পায়েস ও অপরাপর নাস্তাসামগ্রী তৈরী করতে গৃহীনিরা ব্যস্ত সময় কাঠাচ্ছেন। কক্সবাজার সদরের বৃহত্তর ঈদগাঁও’র ৭/৮ ইউনিয়নের ধার্মিক জনসাধারণ শবে কদরের প্রয়োজনীয় বাজার-সদাই করতে রবিবার সারা দিন ঈদগাঁও বাজারে ভীড় জমায়। মুদির দোকান, মসলাপাতির দোকানসহ তরকারীর দোকানে এ উপলক্ষে ক্রেতাসাধারণের উপচেপড়া ভীড় দেখা গেছে। বাজারের প্রায় দু’ডজন চাল পেশাই কলে চাল গুঁড়ো করার জন্য রীতিমত লাইন ধরতে দেখা গেছে। প্রতি কেজি চাউল গুঁড়ো করতে ৫ টাকা হারে চার্জ নিচ্ছেন কল মালিকরা।  এছাড়া লোডশেডিংয়ের সময় ডিজেল মেশিন চালিয়ে চাল গুঁড়ো করা হচ্ছে। এ ক্ষেত্রে চার্জ একটু বাড়িয়ে নেয়া হচ্ছে। প্রতিটি পাড়া-মহল্লার মসজিদে শবে কদর উপলক্ষে বিশেষ প্রার্থনার আয়োজন করা হয়েছে। অধিক সংখ্যক মুসল্লি সমাগমের জন্য প্রসিদ্ধ জালালাবাদ বৃহত্তর খামার পাড়া কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে আয়োজন করা হয়েছে রাতব্যাপী এবাদত বন্দেগীর। ধর্মীয় তাৎপর্যপূর্ণ বিভিন্ন অনুসঙ্গ উপলক্ষে অত্র মসজিদে রাজনীতিক, ছাত্র, ব্যবসায়ী ও শিক্ষকসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার বিপুল সংখ্যক মুসল্লি সমাবেত হয়ে ইবাদতবন্দেগীতে সারারাত অতিবাহিত করে থাকেন। এছাড়া  প্রতিবছর রমজান মাসে বিপুল সংখ্যক ধর্মপ্রাণ মুসল্লি অত্র মসজিদে ইতেকাফ করে থাকেন। ঈদগাঁও আলমাছিয়া ফাজিল ডিগ্রী মাদ্রাসার প্রতিষ্ঠাকালীন শিক্ষক মরহুম মাও. আব্দু শুকুর (চাহারুম সাহেব) বিগত শতাব্দীর প্রথমার্ধে বিশাল মহল্লা অধ্যুষিত উক্ত মসজিদ প্রতিষ্টা করেন। পরবর্তীতে ধর্মপ্রাণ মুসল্লীদের চেষ্টায়  মসজিদ সংলগ্ন স্থানে নূরানী মাদ্রাসা ও হেফজ খানা প্রতিষ্টিত হয়।

 

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT