টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!

সুস্থ পশু চিনবেন কীভাবে?

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : রবিবার, ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৫
  • ২৮৯ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

ইসলামের বিধান অনুযায়ী কোরবানির পশু অবশ্যই সুস্থ সবল ও রোগ মুক্ত হতে হবে। সঙ্গে আছে মোটাতা1237710_1185920478104268_4876064377307555044_nজাকরণে স্টেরয়েড বা ইউরিয়া দেয়া হয়েছে কিনা। এতকিছু ভেবে নেয়ার পরও পশু নির্বাচনের নিয়ম না জেনে বেশি দামে পশু কিনেও ঠকছেন অনেকেই। তাই সুস্থ পশু নির্বাচন করতে গেলে একটি পশুর কী কী বৈশিষ্ট্য থাকা আবশ্যক তা ভালো মতো জেনে তবেই পশু কিনতে যাওয়া উচিৎ। কিছু পরামর্শ দিয়েছেন শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আহমেদ শাহরিয়ার অনিক

১. পশুর নাকের অগ্রভাগ খাড়া হবে সাথে বিন্দু বিন্দু ঘাম জমবে এবং চকচকে হবে।
২. নাক, মুখ ও কান পরিষ্কার হবে।
৩. শরীরের পশম মসৃণ ও তেলতেলে অর্থাৎ পশুর শরীর লোম উজ্জ্বল মসৃণ ও চকচকে থাকবে।
৪. পশু সব সময় কান ও লেজ নাড়াচাড়া করবে।
৫. পশু পারিপার্শ্বিক অবস্থার প্রতি সজাগ থাকবে অর্থাৎ পশুর কাছে কেউ আসলে বা শব্দ করলে তাৎক্ষণনিক ঐ দিকে সাড়া দিবে।
৬. পশুর শ্বাস-প্রশ্বাস স্বাভাবিক থাকবে। গরুর ক্ষেত্রে প্রতি মিনিটে ১২ থেকে ৩০ বার এবং ছাগলের ৪০ থেকে ৬০ বার হতে হবে।
৭. পশুর শরীরের তাপমাত্রা স্বাভাবিক থাকবে। পশুর কান ধরে পশুর শরীরের তাপমাত্রা বোঝা যায়। যদি পশু জ্বরে আক্রান্ত থাকে তবে তার খাবারের প্রতি তেমন রুচি থাকবে না।
৮. পশু দিনে ৭ থেকে ৮ বার জাবর কাটবে।
৯. পশুর মলমূত্র স্বাভাবিক এবং সঠিক রং থাকবে।
১০. সুস্থ পশুর পেটের উপরের লাম্বার কশেরুকা প্রসেসগুলো দেখা যাবে না কিন্তু স্বাস্থ্য খারাপ হলে তা অনেক দূর থেকেও বোঝা যাবে।
১১. পশু অন্ধ কিনা বোঝার জন্যে তার চোখের সামনে আঙ্গুল ঘোরাতে হবে। যদি তার চোখের পাতা টিমিসটিমিস করে তবে বুঝতে হবে কোন সমস্যা নাই।
১২. পশু ল্যাংড়া বা খোড়া কিনা তা পরীক্ষা করার জন্যে হাঁটিয়ে পরীক্ষা করে নিতে হবে।
১৩. পশু ক্রটিমুক্ত কিনা তা মাথা থেকে পা পর্যন্ত ভালভাবে পরখ করে দেখে নিতে হবে।
১৪. সুস্থ পশুর সামনে খাবার রাখলে মুখ দিয়ে শুঁকে এবং খাওয়ার চেষ্টা করে।

পশুর বয়স নির্ণয়:
পশুর বয়স নির্ণয় করা হয় তার দাঁত দেখে। গবাদিপশুর যখন দুইটি ইনসিজর (কাটার জন্যে ব্যবহৃত) দাঁত ওঠে তখন পশুর বয়স হবে ১৯ থেকে ২৪ মাস অর্থাৎ প্রায় ২ বছর। এরপর থেকে প্রতি ৬ থেকে ৯ মাস অন্তর অন্তর এক জোড়া করে স্থায়ী দাঁত উঠে। দেখা গেছে সাড়ে তিন থেকে চার বছরের গরুর সামনের নিচের পাটিতে উভয়পাশেই চারটি করে মোট আটটি স্থায়ী দাঁত উঠে। তবে স্থায়ী দাঁত গজানোর পূর্বে বাছুরের ১ সপ্তাহ বয়স পর্যন্ত সামনে অস্থায়ী দাঁত গজায় এবং ৫ থেকে ৬ মাসের মধ্যে অস্থায়ী দাঁতগুলো উঠে যায়। অস্থায়ী ও স্থায়ী দাঁতের মধ্যে পার্থক্য হল অস্থায়ী দাঁতগুলো কিছুটা সরু, দুই দাঁতের মাঝে ফাঁকা থাকবে, স্থায়ী দাঁত মোটা  হয়ে উঠবে এবং দুই দাঁতের মধ্যে কোন ফাঁকা থাকবে না। তবে ছাগল বা ভেড়ার ক্ষেত্রে দুই দাঁত হলে বয়স এক বছর, চারটি হলে দেড় বছর, ছয়টি হলে দুই বছর এবং আটটি হলে বয়স হবে আড়াই বছর।

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT