টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!

ধর্মের নামে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড বরদাশত করা হবে না: প্রধানমন্ত্রী

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : শনিবার, ৮ অক্টোবর, ২০১৬
  • ১০৮ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

টেকনাফ নিউজ ডেস্ক **

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ধর্মের নাম নিয়ে কোনো সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড বরদাশত করা হবে না।  তিনি বলেন, জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিয়েছি, নিয়ে যাচ্ছি, আগামীতেও নিয়ে যাব। জঙ্গিবাদের স্থান বাংলাদেশের মাটিতে হবে না।  শনিবার বিকালে রাজধানীর ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দিরে সনাতন ধর্মালম্বীদের শারদীয় দূর্গোৎসব পরিদর্শন শেষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।  প্রধানমন্ত্রী বলেন, ধর্ম যার যার, উৎসব সবার। সকলের তরে সকলে আমরা, আমরা মানবের তরে। আসুন সবাই মিলে একসঙ্গে দেশকে গড়ে তুলি। এভাবেই আমরা দেশকে পরিচালিত করছি।    শেখ হাসিনা বলেন, ইসলাম শান্তির ধর্ম, সৌহার্দ্যের ধর্ম, ভ্রাতৃত্বের ধর্ম। ইসলামে জঙ্গিবাদের জায়গা নেই। যারা এসব করে তারা ধর্মবিরোধী কাজ করে।
শনিবার বিকাল ৩টার দিকে ঢাকেশ্বরীতে পৌঁছান প্রধানমন্ত্রী। সেখানে তিনি পূজা মণ্ডপ পরিদর্শন করে। পরে মন্দির প্রাঙ্গণে মহানগর সার্বজনীন পূজা কমিটি ও বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ আয়োজিত শারদীয় শুভেচ্ছা বিনিময় অনুষ্ঠানে অংশ নেন।
অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা এইচ টি ইমাম, ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র সাঈদ খোকন, স্থানীয় সংসদ সদস্য হাজী সেলিম ও হিন্দু ধর্মাবলম্বী নেতারা।

শেখ হাসিনা বলেন, আমরা সংঘাত চাই না। শান্তি চাই, সম্প্রীতি চাই। ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সবার উন্নতি চাই। সে লক্ষ্য নিয়েই আমাদের পথচলা।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, প্রতিটি ধর্ম-বর্ণের মানুষ এক হয়ে যুদ্ধ করে এ দেশ স্বাধীন করেছে। সকলের রক্ত, লাখো শহীদের রক্ত একাকার হয়ে মিশে গেছে। মুসলিম-হিন্দু-খ্রিস্টান-বৌদ্ধ সকল ধর্মের ‍মানুষ মিলে যুদ্ধ করে এ দেশ স্বাধীন করেছে।
শেখ হাসিনা বলেন, জাতির পিতার স্বপ্ন ছিল সকল ধর্মের মানুষ তার ধর্ম স্বাধীনভাবে পালন করবে। সকলে মিলেমিশে এ দেশে বাস করবে। বাংলাদেশ হবে উন্নত-সমৃদ্ধ ও দারিদ্র্যমুক্ত। এ লক্ষ্য নিয়েই আওয়ামী লীগ কাজ করে। সেজন্য আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এলে দেশ উন্নত হয়। কারণ আমরা মানুষকে মানুষ হিসেবে দেখি। জনগণের কল্যাণে কাজ করি।  তিনি বলেন, ইসলামে বলা আছে যার যার ধর্ম তার তার কাছে। সব ধর্মের মূলেই মানবতা আর মানবকল্যাণের কথা বলা আছে।    ঢাকেশ্বরী মন্দিরে শুভেচ্ছা বিনিময় অনুষ্ঠান শেষে প্রধানমন্ত্রী গোপীবাগের রামকৃষ্ণ মঠ ও মিশনে চলে যান। সেখানেও তিনি পূজা উৎসব পরিদর্শনের পর আয়োজিত শুভেচ্ছা বিনিময় অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন।  “আমরা সংঘাত চাই না। শান্তি চাই, সম্প্রীতি চাই। ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সবার উন্নতি চাই। সে লক্ষ্য নিয়েই আমাদের পথচলা।”

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT