টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!

টেকনাফ সীমান্তে বিজিবি’র টহল প্রশ্নবিদ্ধ..চালসহ চোরাইপণ্য পাচার ও আদম অনুপ্রবেশ অব্যাহত

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : সোমবার, ৩০ জুলাই, ২০১২
  • ১৩৫ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

শামসুল আলম শারেক, টেকনাফ ॥    সীমান্তে বিজিবি’র চোরাচালান বিরোধী টহল নিয়ে জনমনে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। সীমান্ত এলাকা থেকে ২/৩ কিলোমিটার দূরে প্রধান সড়ক, বাজার ও ষ্টেশনে লোক দেখানো অভিযান করে ব্যবসায়ী ও সাধারণ লোকজনকে হয়রানীর অভিযোগ ভূক্তভোগী মহলের। তাছাড়া সীমান্তের নাফ নদীর বেড়িবাঁধে নামকা ওয়াস্তে টহল রেখে অরক্ষিতভাবে চালসহ হাজার হাজার বস্তা চোরাইপণ্য পাচার ও আদম অনুপ্রবেশ অব্যাহত রেখেছে। আবার এসব দেশ বিরোধী কর্মকান্ড থেকে বিজিবি’র কিছু অসাধু ব্যক্তি নিয়মিত উ॥কোচ নিচ্ছে বলেও অভিযোগ একাধিক ওয়াকিবহাল মহলের। টেকনাফ সীমান্তের ১ পৌরসভা ও ৪ ইউনিয়ন যথাক্রমে টেকনাফ পৌরসভা, সাবরাং ইউনিয়ন, সদর ইউনিয়ন, হ্নীলা ইউনিয়ন ও হোয়াইক্যং ইউনিয়নের নাফ নদীর প্রায় ২৩টি সীমান্ত পয়েন্ট দিয়ে বিজিবি’র নিয়মিত টহল জোরদার থাকা সত্বেও হাজার হাজার বস্তা চাল, সার, জ্বালানী তেল, ভোজ্য তেল, মেডিসিনসহ নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য সামগ্রী পাচার হয় কিভাবে? খোদ এ নিয়ে এলাকাবাসীর মনে নানা প্রশ্নের ঘোরপাক খাচ্ছে। এদের দাবী, সীমান্ত পয়েন্টওয়ারী চোরাকারবারী সিন্ডিকেটের সাথে সীমান্ত রক্ষী বিজিবি’র সখ্যতা না থাকলে এ রকম পাচার হওয়ার প্রশ্নই উঠে না। সুতারাং ‘রক্ষক যদি হয় ভক্ষক’ তাতে এরকম হবে তো বটেই; দেখারও কেউ থাকবে না। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক টেকনাফ সীমান্তের বেশ ক’জন চাল ব্যবসায়ী ও মুদির দোকানী এ প্রতিবেদককে অভিযোগ করে বলেন, প্রধান সড়ক, বাজার ও ষ্টেশনে বিজিবি অভিযান করে নিরীহ ব্যবসায়ী ও সাধারণ লোকজনকে হয়রানী না করে পাচারের সময় সীমান্ত পয়েন্টে প্রয়োজনে চোরাকারবারী, বহনকারী লেবারদের মালামালসহ আটক এবং অনুপ্রবেশকারী আদমদের দালালদের আটক করুক। তাতে এলাকার কোন সমস্যা হবে না। যদি আটক করতে না পারে প্রয়োজনে তাদের গুলি করুক। তাতে বিজিবি’র ভবামুর্তি উজ্জ্বল হবে এবং অপরাধীরাও অপকর্ম থেকে বিরত থাকবে। এভাবে গুটি কয়েকজনের জন্য এলাকার সব মানুষ কষ্ট পাবে; তা কি করে হয়!

এ প্রসঙ্গে টেকনাফ ৪২ বিজিবি ব্যাটালিয়ান সংশ্লিষ্ট সীমান্তের একাধিক বিজিবি’র ক্যাম্প কমান্ডার বলেন, সীমান্তে আমাদের জনবল কম হওয়া সত্বেও আমাদের নিয়মিত টহল জোরদার ও চোরাকারবারী আটক , চোরাইপণ্য জব্দ এবং অনুপ্রবেশকারী আদম ঠেকাতে আমরা জোর তৎপরতা চালাচ্ছি। এরপরও আমাদের চোখ ফাঁকি দিয়ে অনেক কিছু হচ্ছে।তাতেই আমাদের উৎকোচ নেয়ার প্রশ্নই আসে না। বাজার ও ষ্টেশনে মালামাল আটক প্রসঙ্গে বলেন, নির্দিষ্ট ইনফরমেশন ছাড়া বিজিবি বাজার বা ষ্টেশনে অভিযান করে না। সম্প্রতি যা হয়েছে তা সম্পূর্ণভাবে নির্দিষ্ট ইনফরমেশনের ভিত্তিতে হয়েছে।

##############################

শামসুল আলম শারেক,

টেকনাফ ॥

মোবাইল নং-০১৮১৪-৪৭৬৩৩৪

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT