টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!

টেকনাফ-শাহপরীর দ্বীপ দীর্ঘদিন ধরে সড়ক যোগাযোগ বন্ধ

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ২৮ মে, ২০১৩
  • ১৩৫ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

মমতাজুল ইসলাম মনু টেকনাফ- dipটেকনাফ শাহপরীর দ্বীপের একমাত্র সড়কটি ভরাখালে বিলিন হতে চলেছে। এ সড়কের খালের উপর নির্মিত ব্রীজের নিচে মাটি সরে প্রায় দুই ফুট পানির নিচে ডেবে যায় এবং দু’পাশের মাটি সরে খালে বিলীন হচ্ছে। এ বিষয়ে সড়ক ও জনপথ বিভাগ’র কোন কার্যকরি ভুমিকা দেখা যাচ্ছে না।
তবে সড়কের বিভিন্ন স্থানে নতুন ভাঙ্গন ধরে তা ব্যাপক আকার ধারন করছে। বর্তমানে সাগর উপকুলীয় শাহপরীরদ্বীপ পশ্চিমপাড়া, দক্ষিণপাড়া, ঘোলাপাড়া, ক্যাম্পপাড়া, মাঝরপাড়া, জালিয়াপাড়া ও উত্তর পাড়ার আশপাশ এলাকায় অরক্ষিত বাঁধ দিয়ে সাগরের পুর্নিমার জোয়ারে পানি ডুকে ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। এ এলাকায় দীর্ঘদিন ধরে সড়ক যোগাযোগ বন্ধ রয়েছে। টানা বৃষ্টির কারনে নাফ নদী বেড়ীবাঁধ দিয়ে যাতায়ত হয়ে বর্তমানে ¯প্রীড বোড, নৌকা ও সাকোয় পারাপার করছে মানুষ। গত বৃহস্পতিবার স্থানীয় সাংসদ আলহাজ্ব আব্দুর রহমান বদি সরেজমিন অরক্ষিত বেড়ীবাধ ও ভাঙ্গা সড়ক পরিদর্শন করে। এ সময় ¯প্রীডবোড পারাপারে ঢেউ’র আঘাতে সড়ক ভাঙ্গন বৃদ্ধির কারনে সাংসদের নির্দেশে ¯প্রীডবোড যাতায়ত বন্ধ করে দেওয়া হয়। তাছাড়া ভরাখাল পর্যন্ত সহজে যান চলাচলে অন্যান্য সড়ক ভাঙ্গন এলাকায় সাংসদের উদ্যোগে ইট দেওয়া হচেছ বলে জানা গেছে।
চলতি মাসের শুরুতে শাহপরীর দ্বীপ ভরাখালের উপর নির্মিত ব্রিজ এলাকায় ভাঙ্গন দেখা দেয়। কয়েক দিনের ব্যবধানে সড়কের ভাঙ্গন বড় আকার ধারন করে ভরাখালে বিলীন হয়। তবে এ সড়কের অন্যান্য স্থানে ভাঙ্গন ধরলে তা পরবর্তীতে মেরামত করা গেলেও ভরাখালের উপর নির্মিত বিলীন সড়ক নির্মান করা কঠিন হয়ে দাড়াবে। বর্তমানে ভাঙ্গা সড়ক দিয়ে স্থানীয়দের যাতায়ত ও মালামাল পরিবহনে দূর্ভোগ পৌহাতে হচ্ছে। আগাম বর্ষায় এ দ্বীপে কি অবস্থা সৃষ্টি হবে তা নিয়ে দূশ্চিতায়। সড়ক ও জনপথ বিভাগ যদি একটু সুদৃষ্টি দিত তাহলে ভরাখাল সড়কটি বিলীন থেকে রক্ষা পেত বলে এমন অভিযোগ এলাকাবাসী।
গতবছর শাহপরীর দ্বীপ পশ্চিমপাড়া বেড়ীবাঁধ ভেঙ্গে শতাধিক বাড়ী-ঘর সাগরে বিলীন হয়ে যায়। একমাত্র সড়কটিও ভেঙ্গে যোগাযোগ বিচিছন্ন হয়। ফলে বসত বাড়ী ও চাষাবাদে ব্যাপক ক্ষতি হয়। এমনকি লবনের ভরা মৌসুমে চাষীরা কোটি-কোটি টাকার লবন উৎপাদন থেকে বঞ্চিত হয়েছে। হাজার-হাজার লবন শ্রমিক বেকারত্ব জীবন-যাপন করছে। এখনো প্রতিনিয়ত জোয়ারের পানি ভাঙ্গা অরক্ষিত বাঁধ দিয়ে ডুকে নিম্নাঞ্চল তলিয়ে যাচ্ছে। বর্তমানে বিশাল জনগোষ্টী সাগর ভাঙ্গন ও বিলিন আতংকে দিন কাটাচ্ছেু। বর্ষায় দ্বীপ বাসীকে চরম দূর্ভোগ পৌহাতে হচ্ছে। এখন তাদের কি উপায় হবে তা পথ খুজে পাচ্ছে না। এ দ্বীপের মানুষকে আর কত সময় এভাবে জীবন-যাপন করবে। তাদের এখন প্রশ্ন স্থানীয় সরকার দলীয় এমপি থাকার পরও সাগর ভাঙ্গা বাঁধ মেরামতে কেন হচ্ছে না। “তারা কিছুই চাই না দূর্ভোগ থেকে বাঁচতে চাই। এদিকে শাহপরীর দ্বীপ সড়কটি সড়ক ও জনপথ বিভাগের অধীনে।
কক্সবাজার সূত্র জানায়, বেড়ীবাঁধ ভেঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন রয়েছে। প্রধান নির্বাহী প্রকৌশলী সড়ক ভাঙ্গন এলাকা পরিদর্শন করেন। শাহপরীর দ্বীপ বেড়ীবাঁধ না হলে সড়ক সংস্কার সম্ভব নয় বলে জানায়। তাই এ এলাকায় বাঁধ নির্মান জরুরী বলে মনে করেন সংশ্লি­ষ্টরা।
স্থানীয়রা জানায়, গত বছর এ সড়ক এক বা দুই স্থানে ভাঙ্গন ছিল। বর্তমানে শাহপরীর দ্বীপ যাওয়ার পথে ৪.৭০ কিলোমিটার হতে ভাঙ্গন শুরু হয়েছে। তবে ভরাখাল থেকে দক্ষিণ অংশের এলাকা পর্যন্ত সড়ক নেই বললে চলে। তাছাড়া ভরা খালে উপরের সড়কটিও ভেঙ্গে বিলীন হয়ে যাচ্ছে। তবে এ সড়ক দিয়ে আগামীতে যাতায়ত সম্ভব হকে কিনা তা শাহপরীর দ্বীপবাসীকে ভাবিয়ে তুলেছে।

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT