টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!

টেকনাফ বাহারছড়ায় জমি বিক্রেতা পঙ্গু ও পাগল দুই ভাই প্রতারণার শিকার

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : বুধবার, ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৬
  • ৮৬ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

টেকনাফ প্রতিনিধি **
টেকনাফ উপজেলার বাহারছড়া ইউনিয়নের নোয়াখালীপাড়ায় প্রভাবশালী ভূমিদস্যু ও প্রতারক মোহাম্মদ হোছন প্রকাশ মাহাছন কাছে জমি বিক্রি করে নির্ধারিত কোন মূল্য না পেয়ে প্রতারণার শিকার হয়েছেন একই এলাকার মৃত বদরুজ মিয়ার ছেলে পঙ্গু মোহাম্মদ ইউনুস ও তার ভাই পাগল মোহাম্মদ।
ভুক্তভোগী পঙ্গু মোহাম্মদ ইউনুছকে প্রতিনিয়ত প্রাণনাশের হুমকি-ধমকি দিচ্ছে প্রভাবশালী ভূমি দখলকারী একটি চক্র। এতে বিপাকে পড়ে অসহায় অবস্থার মধ্যে পড়েছে তাদের পুরো পরিবারটি।
অভিযোগের সূত্রে জানা যায়, মোহাম্মদ ইউনুছ একটি গাড়ির ধাক্কায় আহত হয়ে পঙ্গু হয়ে যান। এরপর চিকিৎসার্থে তার অনেক টাকা প্রয়োজন হয়ে পড়ে। এমতাবস্থায় পঙ্গু ও পাগল তারা দুই ভাইয়ের নির্ধারিত জমির অংশ বিক্রয় করার সিদ্ধান্ত নেয়।
ভূমিদস্যু ও প্রতারক মোহাম্মদ হোছন প্রকাশ মাহাছনকে ১ কানি সুপারী বাগান ১০ লাখ টাকা বিনিময়ে তাদের দুই ভাইয়ের অংশ বিক্রয় করেছিলেন। এই মো: হোছন তার চিকিৎসা চলাকালে খরচ বহন করবে মর্মে পঙ্গুত্ব অবস্থায় কোন টাকা প্রদান না করে জমি রেজিষ্ট্রি সম্পাদন করে নেন টেকনাফ বাহারছড়া ইউনিয়নের নোয়াখালীপাড়ার মৃত রহমত উল্লাহর ছেলে প্রতারক মো: হোছন প্রকাশ মাছন ও তার ভাই হোছন আলী।
কিন্তু ভুক্তভোগী মোহাম্মদ ইউনুছ চিকিৎসার সময় জমির দলিল আগে দিয়ে দেয় এবং মো: হোছন জমির দলিল রেজিস্ট্রি করার জন্য টেকনাফ রেজিস্টি অফিসে যান। সেখানে তার পাওনা ১০ লাখ টাকা দেয়ার কথা থাকলেও কোন টাকা প্রদান করেনি।
এরপর থেকে মো: হোছন জমির পাওনা টাকা নিয়ে জালিয়াতি শুরু করে। এছাড়াও তাকে টাকা না পাওয়ার কথা বলে অস্বীকার করে। এ নিয়ে তাদের মধ্যে দ্বন্দ্ব শুরু হলে এক পর্যায়ে ওই এলাকার কিছু গণ্যমাণ্য ব্যক্তি, সাবেক ইউপি সদস্য ফজলুল করিম মেম্বারকে বিচার দিয়েও বিষয়টি মিমাংশা করা য়ায়নি। কিন্তু মো: হোছন ঐ মেম্বারের কথা ও সিদ্ধান্তে না মানায় অটল থাকায় বিরোধ নিষ্পিত্তি হয়নি।14429529_1173561476036199_142022810_n
এছাড়াও এ নিয়ে ৩ বার মিমাংশা করার জন্য বসলেও কোনো লাভ হয়নি বরং এ নিয়ে যদি বারাবারি করা হয় তাহলে হত্যার হুমকি-ধামকি দিয়ে চলেছে এবং ইউনুছের বসতবাড়ি পুড়িয়ে দেয়।
এছাড়া অপর ভাই পাগল মোহাম্মদ দাবী করেছেন, তিনি তার পৈত্রিক সম্পত্তির অংশ বিক্রি করেছেন, তাদের ১০ লাখ টাকা দেওয়ার কথা ছিলে, বোন জামাই হয়েও মো: হোছন আমাদের সাথে প্রতারণা করা করছেন।
ভুক্তভোগী মো: ইউনুছ আরো বলেন, আমি টাকা-পয়সার সমস্যার কারণে জমি বিক্রি করেছি। কিন্তু সে আমাকে ক্ষমতার বলে জমির মূল্য না দিয়ে প্রতারণা করছেন বার বার, থানায় অভিযোগ করলেও তিনি সেখানে হাজির হন না।
এ বিষয়ে বাহারছড়া ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের মেম্বার মো: ইলিয়াছ জানান, এ বিষয় নিয়ে মিমাংশাতে বসে এবং দু’পক্ষের কথোপকথন শুনে আমরা একটা সিদ্ধান্তে এসেছিলাম। ওদের দুইভাইয়ের পাওনা টাকা বুঝিয়ে দেওয়ার জন্য। কিন্তু মোহাম্মদ হোছন কোন টাকা প্রদান করেনি। মো: ইউনুছ ও মোহাম্মদ তাদের ভগ্নিপতি মোহাম্মদ হোছনের কথা বিশ্বাস করে টাকা ছাড়াই জমি রেজিষ্ট্রি দেওয়া ভুল করেছে।
এব্যাপারে অভিযুক্ত মো: হোছন বলেন, দলিল নেয়ার সময় সব টাকা দিয়ে দিয়েছি এবং  আমার কাছে কেউ জমি বিক্রির টাকা পাবে না

ছবি -ভুক্তভোগী ইউনুছ

 

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT