টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!

টেকনাফ বন্দর দিয়ে এবার মিয়ানমার যাচ্ছে ‘কচু’

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ১৭ জানুয়ারি, ২০১৩
  • ১৪৯ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

হাফেজ মুহাম্মদ কাশেম, টেকনাফ/টেকনাফ স্থল বন্দর দিয়ে এই প্রথম বারের মতো সীমান্ত বাণিজ্যের আওতায় মিয়ানমারে ‘কচু’ রপ্তাণী হয়েছে  । যা টেকনাফ-মংডু সীমান্ত বাণিজ্যের ইতিহাসে প্রথম ঘটনা । অবশ্য এর আগে বাংলাদেশী ফ্রেশ আলু রপ্তাণী হয়েছিল । তাছাড়া বাংলাদেশী বলপেনও রপ্তাণী হয়েছে বলে জানা গেছে । এদিকে টেকনাফ স্থল বন্দর কাস্টমস আমদানী রাজস্ব আয়ে লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করতে না পারলেও রপ্তাণী বাণিজ্যে চমক সৃষ্টি করতে সক্ষম হয়েছেন । রপ্তাণী পণ্যের তালিকায় প্রতি মাসেই যুক্ত হচ্ছে নতুন আইটেমের পণ্য । ১৫ জানুয়ারী দায়িত্বশীল সূত্রে জানা গেছে এসব তথ্য । টেকনাফ স্থল বন্দরে রপ্তাণী বাণিজ্যে লক্ষ্যমাত্রা না থাকলেও বাংলাদেশে উৎপাদিত নতুন নতুন পণ্য রপ্তাণী হয়ে টেকনাফ-মংডু সীমান্ত বাণিজ্যের আওতায় বাংলাদেশ থেকে মিয়ানমারে রপ্তানীর পরিধিকে ক্রমে বৃদ্ধি করছে । খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, গত ডিসেম্বর মাসে  টেকনাফ স্থল বন্দর দিয়ে ১৮ প্রকারের বাংলাদেশী পণ্য মিয়ানমারে রপ্তানী হয়েছে । তম্মধ্যে এবারে রপ্তাণী বাণিজ্যের তালিকায় নতুন করে যুক্ত হয়েছে- কচু, বলপেন ও তুষ দিয়ে লাকড়ি তৈরীর চারকল মেশিন । ২০১২ সনের শেষ মাস ডিসেম্বরে টেকনাফ-মংডু সীমান্ত বাণিজ্যের আওতায় টেকনাফ বন্দর দিয়ে ৬৫ টি চালানে  ১ কোটি ৯৯ লাখ ১৭ হাজার ৯৬৮ টাকা  মুল্যের বাংলাদেশী পণ্য মিয়ানমারে  রপ্তাণী হয়েছে । যা অতিতের সর্বকালের রেকর্ড ভঙ্গ করেছে । তথ্যানুসন্ধানে জানা যায়- ডিসেম্বর মাসে ১টি চালানে ২৭৫০পিস টাওয়াল, ৪টি চালানে ৩২হাজার ৮৪৬ জোড়া জুতা-সেন্ডেল, ১২টি চালানে ১২.৭৯৯ মেট্রিক টন মানুষের চুল, ৭টি চালানে ৫৮০ মেট্রিক টন সিমেন্ট, ১০টি চালানে ১১ লাখ ২ হাজার ৩১০ পিস বাংলাদেশী গেঞ্জি, ৪টি চালানে ২০.৫৭২ মেট্রিক টন বাংলাদেশী গেঞ্জির কাপড়, ৩টি চালানে ২.৪০৫ মেট্রিক টন গাজী প্লাষ্টিক ট্যাংক, ৮টি চালানে ১১.৯ মেট্রিক টন এ্যালুমুনিয়াম প্রোডাক্ট, ৬টি চালানে ৭.৬২১ মেট্রিক টন হাঙ্গরমাছ ও মাছের চামড়া, ২টি চালানে ৩.১২৪ মেট্রিক টন পাইস্যা মাছ, ১টি চালানে ১.৫ মেট্রিক টন কচুরছড়া, ১টি চালানে ১২ হাজার ১৫৬ মিনি কার্টন ঔষধ, ১টি চালানে ৪পিস চারকল মেশিন, ১টি চালানে ৮৪০ ডজন ফেয়ার এন্ড লাভলী, ১টি চালানে ১৯৪ পিস বলপেন, ০.২৪৫ মেট্রিক টন মেডিপ্লাস টুথপেষ্ট, ১টি চালানে ২.৮৫০ মেট্রিক টন টিউবওয়েল, ২টি চালানে ৬.৫২০ মেট্রিক টন প্ললাষ্টিক প্রোডাক্টস  টেকনাফ স্থল বন্দর দিয়ে মিয়ানমারে রপ্তাণী হয়েছে । এভাবে প্রত্যেক মাসেই নতুন নতুন আইটেমের পণ্য রপ্তাণী বাণিজ্যের তালিকায় যুক্ত হচ্ছে । টেকনাফ স্থল বন্দরে নিয়োজিত কাস্টমস্ ও বন্দরের কর্মকর্তাগন আমদানী-রপ্তাণী বৃদ্ধির প্রচেষ্টা অব্যাহত রেখেছেন বলে জানা গেছে । ##

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT