টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!

টেকনাফ উপজেলার অর্ধশতাধিক স্কুলেই খাওয়ার পানি নেই

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : বুধবার, ৯ জানুয়ারি, ২০১৩
  • ১০৯ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

নুর হাকিম আনোয়ার,টেকনাফ….সীমান্ত শহর টেকনাফ উপজেলার প্রায় ৫০টি সরকারি, বেসরকারি রেজিস্টার্ড ও কমিউনিটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে খাওয়ার পানির কোনো ব্যবস্থা নেই।এ কারণে তীব্র গরম পানির পিপাসা মিটাতে এসব বিদ্যালয়ের সাড়ে ৪০ হাজারের বেশি ছাত্রছাত্রী ও শিক্ষকেরা দুর্ভোগে পড়েছেন। উপজেলা প্রাথমিক ও মাধ্যামিক  শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা গেছে, উপজেলায় ২১টি মাধ্যামিক ৯৯টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় রেজিস্টার্ড বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে। এর মধ্যে ৩০টিতে নলকূপ নেই। ৪২টিতে নলকূপ থাকলেও সেগুলো বছরের পর বছর ধরে অকেজো পড়ে আছে। এসব নলকূপের যন্ত্রাংশ চুরি হওয়ায় সেগুলো এখন আর কাজে আসছে না। কয়েকটি বিদ্যালয়ের প্রধানেরা জানিয়েছেন, পানিসংকটের কথা উল্লেখ করে জরুরি ভিত্তিতে নলকূপ স্থাপন ও অকেজো নলকূপগুলো সংস্কারের জন্য ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে লিখিতভাবে জানানো হলেও সমস্যা নিরসনে কোনো কাজ হচ্ছে না।সম্প্রতি বিভিন্ন প্রাথমিক বিদ্যালয় ঘুরে দেখা গেছে, দুপুরে তৃষ্ণার্ত শিক্ষার্থীরা পানি পানের জন্য স্কুলের পার্শ্ববর্তী গ্রামের বিভিন্ন বাড়িতে এবং পুকুরের দিকে ছুটে যাচ্ছে। টেকনাফ বার্মিজ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণীর ছাত্র মোঃ নুর, তৃতীয় শ্রেণীর ছাত্রী ইয়াছমিন আক্তারসহ ১০ থেকে ১৫ জন শিক্ষার্থী জানায়, তৃষ্ণা পাওয়ায় তারা কিছু দূরে খাবারের  হোটেলে গিয়ে পানি পান করতে যাচ্ছে। টেকনাফ মডেল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছাত্রী রুমানা আকতার জানায়, তারা স্কুলের সামনের দোকান থেকে ও উচ্চবিদ্যালয়ের নলকূপ থেকে পানি পান করতে যাচ্ছে।  তারা আরো জানায়, মাঝে মধ্যে পানি ছাড়াই বিদ্যালয়ের শৌচাগারে যেতে বাধ্য হয় তারা। টেকনাফ সদর ইউনিয়নের লেঙ্গুর বিল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শাহাদত হোসেন বলেন, নলকূপের অভাবে প্রতি বছর বিশেষ করে গরমের দিনে ছাত্রছাত্রী ও শিক্ষকদের খাওয়ার পানির জন্য দুর্ভোগ পোহাতে হয়। উল্লেখ্য ২০১৩ সনের পাঠ্যপুস্তক উৎসব উদযাপন হাইস্কুল ক্যাম্পাসের অনুষ্টানে আগত ছাত্রছাত্রীদের প্রথম দাবী বিদ্যালয়ে পানির ব্যবস্থা। এ ব্যাপারে টেকনাফ সদর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান নুরুল আলম বলেন, প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোয় নলকূপ না থাকাটা খুবই দুঃখজনক।তবে তিনি শ্রীঘ্রই টেকনাফ সদর ইউনিয়নের প্রত্যোক শিক্ষাপ্রতিষ্টানে ডিপকলের  ব্যবস্থা করবেন বলে  জানায়। উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) আবদুল্লাহ আল নোমান জানায় টেকনাফ প্রাথমিক বিদ্যালয়ে খাওয়ার পানির তীব্র সংকটের কথা স্বীকার করে বলেন, এ বিষয়ে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে লিখিতভাবে জানানো হয়েছে। কয়েকটি বিদ্যালয়ে নলকূপ স্থাপনের বরাদ্দ আসছে বলে জানা গেছে। ইতিপূর্বে ইউনিসেফ এর অর্থায়নে টেকনাফ উপজেলার প্রত্যান্ত জনপদের শিক্ষা প্রতিষ্টান সমূহে পানির জন্য অর্থ ব্যায় করলে তা ব্যর্থ হয়।

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT