টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!

টেকনাফে হাইওয়ে পুলিশের হাতে ছাত্রলীগ নেতা নাজেহাল

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : রবিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৬
  • ১৩৬ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

শাহীনশাহ, টেকনাফ = টেকনাফ উপজেলার হোয়াইক্যং হাইওয়ে পুলিশের সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) ও এক কনস্টেবলের অনিয়ম ও খারাপ আচরণে অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে বিভিন্ন পেশাজীবি। এমন আচরণে এলাকায় ক্ষোভ ও উত্তেজনা বিরাজ করছে। তাদের এমন আচরণের শিকার হয়েছে হোয়াইক্যং ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান ওয়াসিম। তারা এ ঘটনার নিন্দা জানিয়ে বিবৃতিতে বলেন, অবিলম্বে তাদেরকে প্রত্যাহার করে পুলিশ বিভাগের ভাবমূর্তি যেন অক্ষুন্ন রাখে। জানা গেছে, হোয়াইক্যং হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ীতে প্রায় এক বছর পূর্বে যোগদান করেন সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) খোরশেদ আলম, কনস্টেবল মোঃ শাহাদত হোসেন। এর পর থেকে তাদের বেপরোয়া দিন দিন বৃদ্ধি পেতে থাকে। বিষেশ করে গাড়ী চালক ও আরোহীদের যেনতেন ব্যবহার করে অতিষ্ঠ ও ক্ষুব্দ করে তুলে। ফাঁড়ীর সহাকারীর উপপরিদর্শক খোরশেদ আলম বীরদর্পে এলাকায় চলাফেরা করে। বেশীরভাগ সময় হাতলযুক্ত চেয়ার নিয়ে কক্সবাজার- টেকনাফ মহাসড়কের পাশে বসে মাল বোঝাই যান ও ফিটনেস বিহীন গাড়ী থেকে চাঁদা তুলে। সে তার উর্দ্ধতন কর্মকর্তার কমান্ডকে তোয়াক্কা করেনা এমন অভিযোগও রয়েছে। কয়েকমাস পূর্বে উপপরিদর্শক (এসআই) গোলাম মোস্তফার নির্দেশ অমান্য করে সরকারী দায়িত্ব পালনের ব্যাঘাত ঘটায়। তার এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট ওসিসহ উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষ ওয়াকিবহাল রয়েছেন। কনস্টেবল শাহাদত সিএনজি, টমটম মোটর সাইকেলসহ অধিকাংশ যানবাহন চলককে অশ্লিল ভাষায় গালিগালাজ অব্যাহত রাখে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক পুলিশ সদস্য জানান, যে অধিকাংশ যানবাহন চালক চাঁদা কম দিলে তাদের গালিগালাজ ও মারধর করে। তার সাথে একই বিভাগের পুলিশ সদস্যদের মাঝে দ্বন্দ্ব রয়েছে। পাশাপাশি জাদীমুড়া ও লেদার লোকজনের সাথে চলাফেরাতে অবৈধ ব্যবসার জড়িত থাকারও ধারণা করেন তিনি।
খোঁজ খবর নিয়ে জানা গেছে, এই দুই পুলিশ সদস্যদের শাস্তিস্বরূপ টেকনাফের হোয়াইক্যং হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ীতে বদলী করে। তার পরেও তাদের বেপরোয়া আচরণ দিন দিন বৃদ্ধি পায়। তাদের বিরুদ্ধে আরো অভিযোগ রয়েছে, ১৮ সেপ্টেম্বর একটি সিএনজির বিভিন্ন যন্ত্র নষ্ট করে দিয়েছে। ১৭ সেপ্টম্বর হোয়াইক্যং ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান ওয়াসিম মোটর সাইকেলযোগে টেকনাফ হয়ে আসার পথে হোয়াইক্যং হাইওয়ে পুলিশের ওই দুই সদস্য থামানোর সংকেত দেন। এসময় ছাত্রলীগ নাম ধরে অকথ্যভাষায় গালিগালাজ করে নাজেহাল করে ফাঁড়ীর এএসআই খোরশেদ আলম, কনস্টেবল শাহাদত ও অপর এক কসস্টেবল। আতাউর রহমান ওয়াসিম বলেন, আসার পথে থামানোর সংকেত দিলে মোটরসাইকেলটি থামানো হয়। এসময় নিজের পরিচয় দিতে না দিতেই ছাত্রলীগের আচরণসহ নাজেহাল করেন তারা। এ বিষয়ে ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি মাসুক শাহরিয়াদ মাসুক ও সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান ওয়াসিম নিন্দা জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন। হোয়াইক্যং ইউনিয়ন কমিউনিটি পুলিশের সাধারণ সম্পাদক আলমগীর চৌধুরী এদের আচরণে ক্ষুব্দ হয়ে বলেন, তাদের বেপরোয়া দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। হোয়াইক্যং ইউনিয়ন উত্তরশাখা আওয়ামীলীগের সিনিয়র যুগ্ন আহ্বায়ক বলেন, দায়িত্ব কর্তব্য যথাযথ পালন করা পুলিশের কাজ। তারা খারাপ আচরণ করতে পারেননা। উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের প্রতি তাদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণের দাবী জানান তিনি। এব্যাপারে জানার জন্য এএসআই খোরশেদ আলমকে মুঠোফোনে কল দেয়া হয়। রিসিভ না করায় তার বক্তব্য জানা যায়নি। তবে কনস্টেবল শাহাদত বলেন, সামন্য মিসটেক হয়েছে, মহাভারত কোন অশুদ্ধ হয়নি। হাইওয়ে পুলিশের ইনচার্জ এসআই মোঃ জামাল হোসেন বলেন, আমি ছুটিতে ছিলাম, তবে কেউ একজন ফোন করে আমাকে জানিয়েছিল। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে বলেও জানান তিনি।

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT