টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!
শিরোনাম :
মেয়াদ শেষ হলেও অব্যবহৃত মোবাইল ডাটা ফেরতের নির্দেশ মন্ত্রীর টেকনাফ পৌরসভার এক গ্রামেই ক্যাম্প পালানো ১৮৩ রোহিঙ্গা স্থানীয়দের সঙ্গে মিলেমিশে বসবাস করছে মায়ের গর্ভে ১৩ সপ্তাহ্ বয়সী শিশুর নড়াচড়া হারিয়াখালী থেকে ১ কোটি ৮০ লক্ষ টাকার ইয়াবা উদ্ধার টেকনাফে তথ্যকেন্দ্রের সহযোগিতায় মীনা দলের সদস্যদের নিয়ে ই-লার্নিং প্রশিক্ষণ সম্পন্ন হ্নীলায় শিক্ষকের বিরুদ্ধে আশ্রয় নেওয়া লোকদেরকে বের করে দেওয়ার গুরুতর অভিযোগ টেকনাফের দক্ষিণ ডেইলপাড়া এলাকা হতে ২ জন গ্রেফতার এসএসসির অ্যাসাইনমেন্ট নিয়ে জরুরি নির্দেশনা মাউশির টেকনাফে’ ষষ্ঠ শ্রেনীর এক শিক্ষার্থী ধর্ষনের শিকার রোহিঙ্গা ক্যাম্পে গুলি করে একজনকে অপহরণ

টেকনাফে সুপারীর বাম্পার ফলন : সীমান্ত দিয়ে চোরাই পথে আসার সময় কোস্টগার্ডের হাতে ১৩১০ কেজি সুপারী আটক

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৩
  • ১২৯ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

নুর হাকিম আনোয়ার,টেকনাফ:::::teknaf pic 12-9-13 (4)বাংলাদেশ মিয়ানমার ট্রানজিট ঘাট ও টেকনাফ সীমান্তের বিভিন্ন চোরাই পয়েন্ট দিয়ে প্রতিনিয়ত প্রবেশ করছে কাঁচা ও ভেজা সুপারী। এদিকে কোস্টগার্ড টেকনাফ ষ্টেশন কমান্ডার লে. মোঃ মামুনের নেতৃত্বে নাফ নদীতে মাঝখানে বাংলাদেশÑমিয়ানমার ট্রানজিট যাত্রীর ট্রলারে অভিযান চালিয়ে ১২ সেপ্টেম্বর দুপুরে ১হাজার ৩’শ ১০ কেজি সুপারী জব্দ করে উপজেলা শুষ্ক গুদামে জমা করেছে। এবার টেকনাফ উপজেলার সবখানে সুপারীর বাম্পার ফলন হয়েছে। গত বছর প্রতিটি কাঁচা সুপারি বিক্রি করেছে এক টাকায়। এ বছর গাছেই বিক্রি হচ্ছে দেড় থেকে দুই টাকায়। একেকটি পরিবার সুপারি বিক্রি করে পাচ্ছে তিন থেকে পাঁচ লাখ টাকা করে। গতকাল বৃহস্পতিবার  টেকনাফ বাজারে গিয়ে দেখা যায়- মিয়ানমার থেকে আসা সুপারীসহ প্রচুর সুপারী বাজারে উঠেছে।  উপজেলার বাহারছড়া ইউনিয়নের নোয়াখালীপাড়ার  আমিন উল্লাহর সাথে কথা বলে জানা যায়- নিজের এক একর বাগানের সুপারি বিক্রি করে এ পর্যন্ত তিনি দুই লাখ টাকার বেশি পেয়েছেন। গাছের অবশিষ্ট সুপারি বিক্রি করে আরও দেড় লাখ টাকা পাওয়া যাবে। টেকনাফ বাজারে প্রতি রোববার ও বুধবার সুপারির হাট বসে। প্রতি হাটে অন্তত ৮০-৯০ লাখ টাকার সুপারি বিক্রি হয়। স্থানীয় সুপারি ব্যবসায়ী শফিকুর রহমান বলেন, ৯০ শতাংশ সুপারি চট্টগ্রাম, ঢাকা ও বরিশাল, রংপুর, পাবনা, নরসিংদী এলাকায় সরবরাহ করা হয়। রংপুরের ব্যবসায়ী আজম উল্লাহ বলেন, এখানকার সুপারি আকৃতিতে বড় ও মজাদার। এই সুপারির উল্লেখযোগ্য অংশ মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশে রপ্তানি করা হয়। টেকনাফ উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আবদুল লতিফ বলেন, এই উপজেলার চারটি ইউনিয়নের প্রায় ৫০০ হেক্টর বাগানে উৎপাদিত সুপারি বিক্রি করে এ পর্যন্ত ৫০ কোটি টাকার বেশি পেয়েছেন চাষিরা। কৃষি বিভাগ জানায়, চলতি মৌসুমে উপজেলায় প্রায় ৪ হাজার হেক্টর জমিতে সুপারির আবাদ হচ্ছে। আগামী ডিসেম্বর পর্যন্ত সুপারির উৎপাদন ও বিক্রি চলবে। এবার প্রতি হেক্টর বাগানে প্রায় ৪০ মেট্রিক টন সুপারি পাওয়া যাচ্ছে।

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT