টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!
শিরোনাম :

টেকনাফে সংখ্যালঘু ভয়াবহতা প্রতিরোধ করলেন যে দু’জন

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : বুধবার, ৩ অক্টোবর, ২০১২
  • ১৭৩ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

মোঃ সালাউদ্দীন….টেকনাফের হোয়াইক্যংয়ের জোয়ারিয়া খোলা সংখ্যালঘু (হিন্দু ও বড়–য়া) পল্লীতে গত রবিবার রাতের আঁধারে কয়েক হাজার দুস্কৃতিকারীর সম্মিলিত সহিংসতায় এ পর্যন্ত প্রাপ্ত তথ্যমতে আগুনে ৪ বসতঘর সম্পূর্ণ, ৩ বসতঘর আংশিক ভস্মিভূত ও ১৩ বসতঘর ভাংচুর-লুটপাটে ক্ষতিগ্রস্থ এবং হামলায় বেশ ক’জন গুরুতর আহত হওয়ার মধ্যে সীমাবদ্ধ রয়েছে। কিন্তু অনুসন্ধানে জানা গেছে, দুস্কৃতিকারীদের হামলার ধরণ এত ভয়াবহ ছিল যে, ওই সহিংস ঘটনায় কমপক্ষে শতাধিক সংখ্যালঘুর প্রাণহানি, একটি বৌদ্ধ বিহারসহ ২৯ বসতঘর ভাংচুর, লুটপাট ও আগুনে ভস্মিভূত হওয়ার সমূহ সম্ভাবনা ছিল। গত তিনদিন ঘটনাস্থল পরিদর্শনকালে প্রাপ্ত তথ্যে জানা গেছে, মাত্র দু’জন দু’মেরুর ব্যক্তিত্ব নিজেদের পেশাগত দায়িত্ব পালনকালে পরস্পর পরস্পরের মধ্যে সমন্বয় সাধন করে তথ্য আদান-প্রদান, বুদ্ধি-পরামর্শ ও জীবনের ঝুঁকি নিয়ে দায়িত্ব পালনের মাধ্যমে ওই রাতের সহিংস ঘটনা ভয়াবহতায় রূপ নিতে পারেনি। তাঁদের একজন পুলিশের এসআই পদ মর্যাদার কর্মকর্তা মোঃ বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী- যিনি হোয়াইক্যং পুলিশ ফাঁড়ীতে আইসি হিসেবে কর্মরত এবং অপরজন হলেন সংবাদকর্মী রমজান উদ্দিন পটল- যিনি জাতীয় দৈনিক ভোরের ডাক ও স্থানীয় দৈনিক আজকের দেশবিদেশ পত্রিকাদ্বয়ের টেকনাফ প্রতিনিধি হিসেবে কর্মরত।
ঘটনাস্থল সরেজমিন পরিদর্শনকালে সংখ্যালঘু পল্লীর ক্ষতিগ্রস্ত লোকজন ও অনুসন্ধানে প্রাপ্ত তথ্যে জানা যায়, গত রবিবার সন্ধ্যার কিছু আগে লম্বাবিল এলাকা থেকে কয়েকশত লোকের একটি মিছিল যখন টেকনাফ সড়ক ধরে ৩ কিলোমিটার উত্তরে হোয়াইক্যং ষ্টেশনের দিকে যাচ্ছিল- কেউ কল্পনাও করতে পারেনি যে, ওই মিছিলে আরো কয়েক হাজার দুস্কৃতিকারী জড়ো হয়ে সাড়ে ৩ কিলোমিটার পাহাড়ের গহীনে জোয়ারিয়া খোলা এলাকার সংখ্যালঘু পল্লীতে গিয়ে সহিংস ঘটনার জন্ম দিবে। কিন্তু তাই হয়েছে। ঘড়েিত সন্ধ্যা যখন সাড়ে ৭টা- মিছিলটি তখন হোয়াইক্যং ষ্টেশনে শ্লোগান দিয়ে বেড়াচ্ছিল। ওই সময় এসআই বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী তাঁর সঙ্গীয় ফোর্স নায়েক জয়ন্ত চাকমা, কনস্টেবল তুষার, আবদুর রব, আবদুর রউফ, হাবিব, সুমন ও ইলিয়াছকে নিয়ে মিছিলের গতিবিধি লক্ষ্য করছিলেন। ওই সময় সংবাদকর্মী রমজান উদ্দিন পটল মোটর সাইকেল নিয়ে সেখানে উপস্থিত হন। হঠাৎ বলা নেই-কওয়া নেই- মিছিলটি জঙ্গী রূপ লাভ করে পশ্চিম দিকে পাহাড়ী পথ ধরে এগুতে থাকে। এ সময় পুলিশদল হতভম্ভ হয়ে পড়ে- কেন মিছিলটি পাহাড়ের পথ ধরেছে। সংবাদকর্মী পটল এসআই বখতিয়ারকে জানালেন, সামনে সাড়ে ৩ কিলোমিটার পর জোয়ারী খোলা নামক এলাকায় সংখ্যালঘু পল্লীতে একটি বৌদ্ধ বিহার আছে। মিছিলটি সম্ভবত: সেখানেই যাচ্ছে। পটল পরামর্শ দিলেন, বিহারে পুলিশ প্রটেকশন দিলে ভাল হয়। এসআই বখতিয়ার বিষয়টি গুরুত্ব উপলব্দি করে কনস্টেবল হাবিব, সুমন ও ইলিয়াছকে মিছিলের আগে আগে থাকতে নির্দেশ দিয়ে নায়েক জয়ন্ত চাকমা, কনস্টেবল তুষার, আবদুর রব, আবদুর রউফকে নিয়ে বিহারের উদ্দেশ্যে দৌঁড় শুরু করেন এবং সংবাদকর্মী পটলকে অনুরোধ করেন তিনি যেন মিছিলের সাথে থেকে তাঁকে প্রয়োজনীয় মোবাইল ফোনের মাধ্যমে প্রয়োজনীয় তথ্য-পরামর্শ প্রদান করেন। পটল এতে সানন্দে রাজি হন।
এদিকে জঙ্গীরূপ লাভ করা কয়েক হাজার লোকের মিছিলটি একে একে আলী আছিয়া স্কুল, ফরেস্ট অফিস ও জোয়ার খলা পাহাড়ের মোড় পেরিয়ে জোয়ারিয়া খোলা এলাকার হিন্দু পল্লীর ঘরবাড়ীতে হামলা চালিয়ে ভাংচুর, লটপাট ও অগ্নিসংযোগ করছে- সাংবাদকর্মী পটল সংঘটিত সহিংসতার আলোকচিত্র ধারণের পাশাপাশি জীবনের ঝুঁকি নিয়ে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে অপর পাহাড়ের মোড়ে বড়–য়া পল্লীর বৌদ্ধ বিহারে সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে অবস্থানরত এসআই বখতিয়ারকে পরামর্শ দেন, দুস্কৃতিকারীরা এখন হিন্দু পল্লী আক্রমন করছে। সামনের বড়–য়া পল্লীতেও আক্রমন করতে পারে। হিন্দু ও পড়–য়া পল্লীর লোকজন যাদের দেখতে পাবেন- বিহারে নিয়ে চতুর্দিকে রক্ষাব্যুহ গড়ে তুলুন। তখন ছিল ঘুটঘুটে অন্ধকার। কিছুই দৃষ্টিগোচর হচ্ছিল না। হিন্দু পল্লীর বসতঘরের অগ্নিকান্ডের লেলিহান শিখার আলোয় যতদূর দেখা যায়- এসআই বখতিয়ার ওই আলোতে দৌঁড়াদৌঁড়ি করে আক্রান্ত নারী-পুরুষদের বিহারের পাশে অবস্থিত অনন্ত বড়–য়া ও শান্তি বড়–য়ার বসতবাড়ীতে সরিয়ে এনে জড়ো করে ৩ কনস্টেবলকে প্রহরায় রাখেন এবং অপর এক নায়েক ও ৩ কনস্টেবলকে বৌদ্ধ বিহারে রেখে রক্ষাব্যুহ গড়ে তুলেন। মিছিলকারী কয়েক হাজার দুস্কৃতিকারী হিন্দু পল্লীতে ধ্বংসযজ্ঞ চালিয়ে বড়–য়া পল্লীতে আক্রমন চালায়। পুলিশ নিজেদের রক্ষাব্যুহতে থেকে সর্টগান থেকে গুলি চালিয়ে আক্রমন প্রতিরোধ করে। মিছিলকারীরা পুলিশের প্রতিরোধ ভাঙ্গতে না পেরে মুর্হমুহু ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করে। এতে বখতিয়ারসহ অন্যান্য কনস্টেবলরা আহত হয়। এসআই বখতিয়ার জানান, আমাদের কাছে বুলেট ছিল মাত্র ৮০ রাউন্ড। ৭০ রাউন্ড খরচ করতে হয়েছে। একটি রাস্তা মিছিলকারী কর্তৃক অবরোধ থানা থেকে কোন সাহায্য আসা সম্ভব ছিল না। যথাসময়ে সাংবাদিক পটলের তথ্যসহ পরামর্শ না পেলে আমরা হয়তো রক্ষা করতে পারতাম না।
অন্যদিকে সাংবাদকর্মী পটল পেশাগত দায়িত্ব পালনকালে দেখতে পায় হিন্দু পল্লীর শিফু মল্লিক নামের ২২ বছরের এক মহিলা আগ্নিকান্ডের সময় অজ্ঞান হয়ে পড়ে আছেন। সংবাদকর্মী পটল বিবেকের তাড়নায় জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ওই মহিলার ছোট ভাই মিণ্ঠু মল্লিককের (১৯) কোলে শিফুকে নিজ মোটর সাইকেলে বসিয়ে হাসপাতালের উদ্দেশ্যে রওয়ানা দেয়। ঘটনাস্থল থেকে সাড়ে ৩ কিলোমিটার দূরে হোয়াইক্যং ষ্টেশনে পৌঁছলে দুস্কৃতিকারীরা লাঠিসোটা নিয়ে তাঁকে মোটর সাইকেল থেকে নামিয়ে বেধড়ক মারধর করে এবং তার মোটর সাইকেল ভাংচুর করে। ওই সময় হাইওয়ে পুলিশের সার্জেন্ট আহাদ মিয়া সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে তাকে উদ্ধার করে নিরাপদ স্থানে নিয়ে যায়।

################

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

৭ responses to “টেকনাফে সংখ্যালঘু ভয়াবহতা প্রতিরোধ করলেন যে দু’জন”

  1. karbi pal says:

    আপনাকে বড় বলে বড় সেই নয়। নিজের নাম নিজে করতে লজ্জা করল না এই দালালের। কে এই সালাহ উদ্দীন? কোন পত্রিকায় কাজ করে? আসলে সে একজন পটলের দালাল। আসলে পটল লিখে দিয়ে নিজের নাম উজ্জল করার জন্য সালাহ উদ্দীনের নামে এ সংবাদটি পাঠিয়েছে। সে যদি এতো ভালো হতো তাহলে মার খেতোনা এ পুলিশের চামছা পটল।

  2. rashmoon says:

    I can not control laughing by d way thanks karbi pal.u guessed he is flattering himself.

  3. rajib says:

    patal Is Dalal of Mp Bodi. He samsa Of police.There Have a lot of people but who are write it.(zara seba koreyse tara o mamla tekey rehai paini, r zara misilay o zaini tara o mamla tekey rehai paini. sodo Mp er Dalal r policer Samsara mamla tekey rehai peyesey. jemon.. patal Dalal)

  4. Sajjad says:

    Kemon pagul bojlam na . Ostaro nila balo hotu .tar motor circle te k poruskar dela balo hotu.

  5. potul noy potul says:

    pagul er prolaf daya ki reporter houa ji.
    Se money Hoy dalal 2 doler:bagcor karte oskani te se jarita …………?

  6. Mohammad rana says:

    Kisoi to bojlam na asole kar gola sotti reportar er na onno der?

  7. Anwarhasan says:

    POTAL BAY . MANOS MANOSER JONNO…..A -KAJ APNI KORESEN -TEKNAFE BWDD POLLITE VWAVAHTA PROTIRUD KORE ” APNAKE THENS

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT