টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!
শিরোনাম :
বাহারছড়া শামলাপুর নয়াপাড়া গ্রামের “হাইসাওয়া” প্রকল্পের মাধ্যমে সচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণ ও বার্তা প্রদান প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া ঘর উদ্বোধন উপলক্ষে টেকনাফে ইউএনও’র প্রেস ব্রিফ্রিং টেকনাফের ফাহাদ অস্ট্রেলিয়ায় গ্র্যাজুয়েট ডিগ্রী সম্পন্ন করেছে নিখোঁজের ৮ দিন পর বাসায় ফিরলেন ত্ব-হা মিয়ানমারে পিডিএফ-সেনাবাহিনী ব্যাপক সংঘর্ষ ২শ’ বাড়ি সম্পূর্ণ ধ্বংস বিল গেটসের মেয়ের জামাই কে এই মুসলিম তরুণ নাসের রোহিঙ্গাদের এনআইডি কেলেঙ্কারি : নির্বাচন কমিশনের পরিচালকের বিরুদ্ধে দুপুরে মামলা, বিকালে দুদক কর্মকর্তা বদলি সড়কের কাজ শেষ হতে না হতেই উঠে যাচ্ছে কার্পেটিং! আপনি বুদ্ধিমান কি না জেনে নিন ৫ লক্ষণে ৫৫ হাজার রোহিঙ্গা বাংলাদেশি ভোটার: নিবন্ধিত রোহিঙ্গাও ভোটার! ইসি পরিচালকসহ ১১ জন আসামি

টেকনাফে মায়ানমার থেকে আসছে পশু : দাম চড়া

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : রবিবার, ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৫
  • ১২২ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

জিয়াবুল হক , টেকনাফ:::জমে উঠেছে টেকনাফের পশুর হাট। টেকনাফে মায়ানমার থেকে প্রচুর গবাদিপশু এলেও হাটে দেশি গরুর চাহি12007278_898713333558156_1653222157_nদা বেশি। ফলে বিক্রেতারাও দেশি গরুর জন্য চড়া দাম হাঁকছেন। এতে স্থানীয় খামারিরা লাভের মুখ দেখবেন বলে আশা করছেন।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, দক্ষিণ চট্টগ্রামে টেকনাফের সাবরাং ইউনিয়নের শাহপরীর দ্বীপ ও টেকনাফ উচ্চবিদ্যালয় মাঠে প্রতিবছরের মতো এবারও পশুর হাট বসেছে। এ দুটি হাটে মায়ানমার থেকে আমদানি করা পশুর সংখ্যা বেশি। তবে কিছুদিন ধরে শাহপরীর দ্বীপ সীমান্ত এলাকা দিয়ে স্বাভাবিক সময়ের তুলনায় বেশি পশু আসছে। ঢাকা ও চট্টগ্রামের হাটগুলোতেই মায়ানমারের পশুর চাহিদা বেশি। ফলে পশু কিনতে এই দুই এলাকার ব্যবসায়ীরা টেকনাফের হাটে ভিড় করছেন।

স্থানীয় কয়েকজন পশু ব্যবসায়ী জানান, মায়ানমার থেকে আনা পশু রাজস্ব দিয়ে বৈধ করে দেশের নানা অঞ্চলের হাটে নেওয়া হয়। তবে শাহপরীর দ্বীপের বেড়িবাঁধের একটা অংশ ভাঙা থাকায় যাতায়াত খরচ বেশি পড়ছে।

হাটবাজার ঘুরে দেখা গেছে, মায়ানমারের পশুর পাশাপাশি খামারিরা উপজেলার বিভিন্ন স্থান থেকে পশু এনে বিক্রি করছেন। দেশি পশুর চাহিদা বেড়ে যাওয়ায় দামও চড়া। দেশি জাতের মাঝারি আকারের গরু ৪৫-৬৫ হাজার এবং বড় আকারের গরুর জন্য ৭৫ হাজার থেকে তিন লাখ টাকা দাম হাঁকছেন খামারিরা। আর মায়ানমারে মাঝারি আকারের গরু ৩০-৫৫ হাজার টাকা, বড় আকারের গরু ৭০-৯০ হাজার টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

টেকনাফ সদরের বড় হাবিব পাড়ার খামারি জিয়াউর রহমান বলেন, ছয় মাস আগে বাজার থেকে এক লাখ টাকায় দুটি গরু কিনেছিলাম। সেগুলো পরিচর্যার পেছনে দুজন শ্রমিক কাজ করেছেন। কোরবানির প্রথম হাটে দুটি গরুর দাম উঠেছে তিন লাখ টাকা। দেশি পশুর দাম বেশি হওয়ায় বাজারদর যাচাই করে গরু দুটি বিক্রি করব। তবে মায়ানমার থেকে পশু আমদানি করেছেন যাঁরা, তাঁদের অনেকেই কাক্সিক্ষত লাভ করতে পারেননি।

শাহপরীর দ্বীপের পশু ব্যবসায়ী হাজি হুসেন আহম্মদ বলেন, মায়ানমার থেকে ৯০টি গবাদিপশু আমদানি করেছি। স্থানীয় হাটে দেশি জাতের পশুর চাহিদা বেশি হওয়ায় মায়ানমারের পশুর দাম কমে গেছে। তাই চট্টগ্রাম, ঢাকার ব্যবসায়ীদের কাছে প্রতিটি পশু ৩৫-৪৭ হাজার টাকায় বিক্রি করেছি।

টেকনাফ স্থলবন্দর কাস্টমস সূত্রে জানা গেছে, জুলাই মাস থেকে ১৯ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত শাহ্পরীরদ্বীপ ক্যাডল করিডোর দিয়ে ৪৬২৫টি গরু, ২৪৩৫টি মহিষ এবং ৭৭টি ছাগল আমদানি হয়েছে। সেপ্টেম্বর পর্যন্ত প্রায় ৮ হাজার গবাদি পশু এসেছে বলে সংশিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।

রাজস্ব আদায় করা হয়েছে ৩৫লাখ ৪১ হাজার ৩৫০ টাকা। জানা গেছে, বৃহত্তর চট্টগ্রামের বাসিন্দাদের মাংসের চাহিদা পূরণ করতে সরকার ২০০৩ সালের ২৫ মে টেকনাফের শাহপরীর দ্বীপে করিডরটি চালু করে। তখন থেকে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের ব্যবসায়ীরা এ করিডর থেকে গবাদিপশু কিনে জেলা ও বিভাগীয় শহরের বিভিন্ন স্থানে নিয়ে যাচ্ছেন। টেকনাফ স্থলবন্দর শুল্ক কর্মকর্তা হুমায়ুন কবির জানান, শাহপরীর দ্বীপ করিডর দিয়ে এখন প্রচুর কোরবানির পশু আসছে। বেড়েছে সরকারের রাজস্ব আয়ও। কোরবানির ঈদের আরও প্রায় সাপ্তাহ বাকি রয়েছে, তাই আরও বেশি করে পশু আনার জন্য স্থানীয় ব্যবসায়ীদের সরকারিভাবে সহযোগিতা করা হবে।

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT