টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!

টেকনাফে বনকর্মী-উপকারভোগীদের সাথে জনতার সংঘর্ষ..বন পহারাদারসহ ৮জন আহত ঃ ৮জনের বিরুদ্ধে মামলা

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ১২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৩
  • ১০৩ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

রমজান উদ্দিন পটল,টেকনাফ ….টেকনাফের দুর্গম এলাকা হোয়াইক্যংয়ে বনকর্মীদের সাথে – জনতার ব্যাপক ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষে বনকর্মীসহ ৮জন আহত হয়। ঘটনায় গুরুতর আহতদের টেকনাফ ও ককসবাজারস্থ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনায় বনবিভাগ ৮ জনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করেছে। সংঘটিত ঘটনা সম্পর্কে বন পহারাদার- ও স্থানীয় জনতার পরস্পর বিরোধী বক্তব্য পাওয়া গেছে। খবর পেয়ে সরেজমিনে গিয়ে জানাযায়- গত ৯ ফেব্রুয়ারী সন্ধা ৬টার দিকে হোয়াইক্যং ইউনিয়নের রইক্যং বনবিটের ১ সদস্য কয়েকজন পাহারাদার ও কিছু সংখ্যক উপকারভোগী সদস্যদের নিয়ে রইক্যং দক্ষিন পাড়া এলাকা বসতি এলাকায় গিয়ে বনের কাঠ চুরির অযুহাতে  হাকাবাকা করে এবং তল্লাশী করার অযুহাতে স্থানীয় বাসিন্দা মৃত-দুদু মিয়ার বাড়িতে প্রবেশের চেষ্টা করলে ঘটনার সুত্রপাত হয়। বনকর্মী ও উপকারভোগী সদস্যরা জানান-শনিবার সন্ধায় কাঠ চোরের দল ৬০ হেক্টর সামাজিক বনায়নের বিপুল মুল্যবান কাঠ উজার করে গোপন জায়গাতে মজুদ করার খবর পেয়ে উদ্ধার অভিযানে গেলে  সংঘবদ্ধ কাঠচোরের দল হামলা চলিয়ে বনকর্মী জমির ( ৪৮ ) উপকারভোগী সদস্য আবুল কাশেম (৫০) আবুবক্ক (৩০)  বাবুল (২৬)  কে মারাত্বক জখম করে। কিন্তু স্থানীয় জনতা জানান- জনৈক বনকর্মী ভিলেজারদের কাছ থেকে প্রতিয়ত চাঁদা কওে এবং চাদা না দিলে বখাটে ও ডাকাত প্রকৃতির লোকজন নিয়ে ভয়ভীতি  দেখায়। রইক্যং দক্ষিন পাড়ার বন জাগিরদাররা দাবীকরা চাঁদা না দেয়ায় শনিবান সন্ধায় দুদু মিয়া ও শমশুল আলমের বাড়ীতে গিয়ে হাঁকাবাকা করে। এসময় বাড়ীর গৃহিনীরা আপত্তি তুললে তাদেও নাজেহাল করে। এসময় মহিলাদের চিৎকারে আশপাশের লোজন এগিয়ে আসলে দুপক্ষের মধ্যে মারামারির ঘনা ঘটে। বনপাহারাদারদের পিঠুনিতে স্থানীয় মৃত দুদু মিয়ার স্ত্রী-বেগম বাহার (৫০) ফরিদ আহমদের পুত্র আবুল হোছন (২৫)সহ ৪জন আহত হয় বলে জানান। বনবিভাগ এ ঘটনায় ৮ জনকে আসামী করে ১০ ফেব্রুয়ারী সন্ধায় টেকনাফ থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন রইক্যং বনবিট কর্মকর্তা শেখ আলাউদ্দিন। এদিকে বনর্মীদের সাথে সংঘর্ষের ঘটনার বিষয়ে স্থানীয় উপকাভোগী সদস্য মানবাধিকার কর্মী শাহিনশাহ জানান- বনকর্মী ও উপকারভোগীদের উপর হামলা দুঃখজনক। বন উজারকারী কাঠচোরদের এলাকায় বেপরোয়া হয়ে উঠে।  এদের কে  প্রতিরোধ গড়ে তোলা সবার কর্তব্য।

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT