টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!
শিরোনাম :
রোহিঙ্গাদের এনআইডি কেলেঙ্কারি : নির্বাচন কমিশনের পরিচালকের বিরুদ্ধে দুপুরে মামলা, বিকালে দুদক কর্মকর্তা বদলি সড়কের কাজ শেষ হতে না হতেই উঠে যাচ্ছে কার্পেটিং! আপনি বুদ্ধিমান কি না জেনে নিন ৫ লক্ষণে ৫৫ হাজার রোহিঙ্গা বাংলাদেশি ভোটার: নিবন্ধিত রোহিঙ্গাও ভোটার! ইসি পরিচালকসহ ১১ জন আসামি হ’ত্যার পর মায়ের মাংস খায় ছেলে ব্যাংকে লেনদেন এখন সাড়ে ৩টা পর্যন্ত আগামী ১৫ জুলাই পর্যন্ত লকডাউন বাড়ল মডেল মসজিদগুলোয় যোগ্য আলেম নিয়োগের পরামর্শ র্যাবের জালে ধরা পড়লেন টেকনাফ সাংবাদিক ফোরামের সদস্য ও ইয়াবা কারবারি বিপুল পরিমাণ টাকা ও ইয়াবা উদ্ধার রোহিঙ্গাদের তথ্য মিয়ানমারে পাচার করছে জাতিসংঘ: এইচআরডব্লিউ

টেকনাফে ছাত্রীকে পিটিয়ে জখম করল প্রধান শিক্ষক-ভাই নিউজটি করবেন না !

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : রবিবার, ৪ অক্টোবর, ২০১৫
  • ১৬৯ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

আবদুর রহমান…
কক্সবাজারের টেকনাফের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রথম শ্রেণির এক ছাত্রীকে পিটিয়ে জখম করল প্রধান শিক্ষক ।  গতকাল রোববার বাহারছড়া ইউনিয়নের বড়ডেইল (মাথাভাঙা) স্কুলের প্রধান শিক্ষক মোজাম্মেল হক শ্রেণী কক্ষে ছাত্রীকে মারধর করেন। এ ঘটনায় উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তার বরাবরে একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন ছাত্রী বাবা আমির আহমদ।

এসময় কথা হয় আহত শিক্ষার্থী খালেদা বেগম (৭) এর সঙ্গে। তখন পিটুনির শিকার শিক্ষার্থী পরনে থাকা জামা খুলে বেত আঘাতে চিহ্ন দেখাতে কান্নায় ভেঙে পড়েন।
পিটুনির শিকার খালেদা বলে, সকাল ১০টার দিকে প্রতিদিনের ন্যায় স্কুলে যায়। বাংলা বিষয়ের পড়া দিতে না পারায় আমিসহ তিন-চারজন শিক্ষার্থীদের পিটানো হয়। এরপর প্রধান শিক্ষক বই খুলতে বললে, আমি বইটি খুলতে একটি পৃষ্টা মাটিতে পড়ে গেলে ৩-৪টি ঝাউগাছের ডাল (হরিগাছ) একসঙ্গে আটি বেঁধে ওই শিক্ষক আমার পিটে, হাতে ও পায়ে আঘাত করতে শুরু করেন। এতে আমার হাতও পিটসহ শরীরের বিভিন্ন স্থান জখম হয়। আমি আহত হওয়ার পর বাড়ি যেতে চাইলে তিনি বাধা প্রদান করে স্কুলে বসিয়ে রাখেন। পরে দুপুরে স্কুল ছুঁটি হলে অন্য সহপাঠীরা আমাকে আহত অবস্থায় বাড়ি নিয়ে যায়।

খালেদা বেগমের বাবা আমির আহমদ বলেন, শিক্ষকের নির্যাতনের শিকার মেয়েকে স্থানীয় একজন পল্লী চিকিৎসকের কাছে নিয়ে চিকিৎসা করিছি। এখন সে স্কুলে যেতে ভয় পাচ্ছে। এ ঘটনায় তিনি লিখিত অভিযোগ দেওয়ার বিকেল পর্যন্ত ইউএনওর কার্যালয়ের অপেক্ষায় ছিলাম। শেষ পর্যন্ত ইউএনওকে না পেয়ে কর্মচারীদের কাছে অভিযোগটি দিয়েছি।

মারধরের ব্যাপারে প্রধান শিক্ষক মোজাম্মেল হক বলেন, পড়া দিতে না পারায় তিনি কয়েকজন শিক্ষার্থীকে পিটিয়েছেন। কিন্তু ছেঁড়া বই না বাধানো কারণে খালেদার গায়ে একটু বেশি বেত আঘাত পড়েছেন। শিক্ষা দিতে গিয়ে এ রকম মারধর করতে হয়। তিনি আরো বলেন, ভাই নিউজটি করবেন না । আমি আগামীকাল এসে এক সাথে চা খাব।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন শিক্ষার্থী জানান, ওই প্রধান শিক্ষক প্রায়ই ছাত্র-ছাত্রীদের মারধর করেন। কিন্তু ভয়ে কেউ কিছু বলে না। শ্রেণিকক্ষের পড়া না পারার অজোখাতে গতকাল তিনি কয়েকজনকে পিটিয়েছেন।
শিক্ষক পিটিয়ে আহত করেছে শিক্ষার্থীকে এ রকম একটি লিখিত অভিযোগ পাওয়া গেছে বলে নিশ্চিত করেছেন টেকনাফ উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা (ইউএনও) অফিস সহকারি কাজল কান্তি দাশ। তিনি বলেন, সরকারী কাজে ইউএনও স্যার সেন্ট মার্টিন গেছেন। আগামীকাল (আজ) অভিযোগটি স্যারকে দেওয়া হবে এবং শিক্ষার্থীকে মারধর করে আঘাতে কিছু চিহ্ন দেখা গেছে। এর কিছু ছবি তোলা রাখা হয়েছে সেটি স্যারকে দেখানো হবে।

উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা সুব্রত কুমার ধর জানান, বিয়ষটি আপনার কাছ থেকে শুনেছি। অভিযোগ পেলে তদন্তর্পূবক ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT