টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!
শিরোনাম :

টেকনাফে গহীন পাহাড়ে দেশি-বিদেশী জঙ্গীদের সশস্ত্র টেনিং চলছে …

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ২৭ ডিসেম্বর, ২০১২
  • ১৫০ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

\

নজির আহমেদ সীমান্ত টেকনাফ প্রতিনিধি
টেকনাফ বাহারছরা শামলাপুর পাহাড়ে অপরিচিত কিছু লোকজন অবস্থান নিয়ে সেখানে সশস্ত্র টেনিং নিচ্ছে এ দৃশ্য দেখে পাহাড়ে বসবাসকারিরা। পাহাড়ের এ দুর্ঃসংবাদ পৌছে পুলিশের কানে। গত ১৮ ডিসেম্বর পুলিশের একটি  দল জঙ্গীদের ্আটক করতে টেকনাফ বাহারছরা খলিলের ঘোনা নামক গহীন পাহাতে অভিযান চালায়। পাহাড়ে পুলিশের অভিযান চালানোর খবর তার র্পূবেই জেনে যায় জঙ্গীরা। তারা তড়িগড়ি করে টেনিংস্থল  ত্যাগ করলেও গহীন পাহাড়ে এখনও বিদ্যমান টেনিয়ের জন্য ঝুপজঙ্গল সাফ করা টেনিং স্পট, পলিথিন দ্বারা তৈরি জঙ্গীদের ক্যাম্প, রান্না করার চুলা।পুলিশ ওই সব ক্যাম্প (পলিথিন দ্বারা তৈরি ঘর) বেঙ্গে দেয়।
টেকনাফ বাহার ছরা খলিলের ঘোনার অবস্থা দেখে সহজেই বুঝা যায় পাহাড়ে বেশি সময় ধরে  কিছু মানূষ অবস্থান নিয়ে ছিল। কাঠুরিয়ারা তাদের সর্ম্পকে জানতে চাই। জঙ্গীরা কাঠুরিয়া থেকে নিজেদের আড়াল করার জন্য তারা পাহাড়ে কমলা লেবুর চাষ করবে এবং পাহাড়ীদের এ চাষ সর্ম্পকে শিখাবে। সেখানে কাঠুরিয়াদের ভাষা বুঝেনা এমন লোকজনও রয়েছে।  বিশেষ করে পাহাড়ে রোহিঙ্গা জঙ্গীরা সংখ্যায় বেশি বলে জানিয়েছেন কাটুরিয়া ও পাহাড়ে বসবাসকারিরা। এতদিন ধরে প্রশাসনের অগোচরে ও সবার অজনতে জঙ্গীরা তাদের র্কাষক্রম চালিয়ে নেওয়ার পিছনে যথাযথ কারনও রয়েছে। যেহেতু পাহাড়ে বসবাসকারিদের সিংহভাগ মানুষ রোহিঙ্গা। রোহিঙ্গা জঙ্গীরা তাদের দেশে অধিকার আদায়ের কাজ করার জন্য প্রস্তুত হচ্ছে তার টেনিং নিচ্ছে এ রকম পাহাড়ে বসবাসকারি রোহিঙ্গাদের মধ্যে প্রচার  করলেও আসলে তা সঠিক নয়। রোহিঙ্গা উগ্রপন্তি সংস্থা আর এসও ( রোহিঙ্গা সলিটারি র্অগানাইজেশন) ও রাখাইনদের মধ্যে র্দীঘদিন ধরে   ধর্মীয় সমপ্রদায়িক দন্ড রয়েছে। মিয়ানমারের ওই সব মুসলিম রোহিঙ্গা সমপ্রদায় নাগরিক অধিকার ও ধর্মীয় স্বাধীনতার অধিকার আদায়ের আন্দোলন তৈরি হচ্ছে সশস্ত্রভাবে তাই তাদের সহযোগীতা করে যে কোন রোহিঙ্গা যারা বাংলাদেশে অবৈধভাবে বসবাস করে। তা ছাড়াও দেশে বিদেশে অবস্থান রত রোহিঙ্গা নেতারা আর এসও সংগঠনের তহবিল গঠনের নামে অর্থ সংগ্রহ করে বিশ্বের মুসলিম দেশ গুলো হতে। বিশেষ করে ওই যে সব দেশের সাথে বাংলাদেশের ধর্মভিক্তিক রাজনৈতিক সংগঠন গুলোর   সর্ম্পক রয়েছে। এ সুবাধে রোহিঙ্গা জঙ্গীরা বাংলাদেশের জঙ্গীদের সাথে মিলে যে কোন নাশকতার জন্য  টেকনাফের পাহাড়ে সশস্ত্র টেনিং নি”্ছ।ে এসব রোহিঙ্গাদের অর্থ জোগান দিচ্ছে কয়েকটি এনজিও। এসব এনজিও গুলোর তাদের কাজ নিরাপদে চালিয়ে নিয়ে যাওয়ার উদ্দেশ্যে টেকনাফের কয়েক প্রভাবশালী লোকজন কে ঠিক রেখেছে। তারাই পাহাড়ে জঙ্গীদের সহযোগীতা দিয়ে যাচ্ছে।

আবার রোহিঙ্গাঅর্থের বিনিময়ে যে কোন বড় নাশকতা করতে সহজে ব্যবহার হয়। তাই টেকনাফে স্থানীয়রা দারুন আতংকে আছে।
স্থানীয়রা জানিয়েছেন টেকনাফে কিছু নেতৃত্ব স্থানীয় ব্যাক্তিরা এনজিওদের কাজকর্ম চালাতে সহযোগীতা দিচ্ছে তবে তারা বিনিময়ে নিচ্ছে মোটা টাকা। এ সুযোগে জঙ্গীরা পাহাড়ে টেনিং নিতে সাহস পাচ্ছে এমন মন্তব্য করলেন অনেকেই।
জঙ্গীদের সশস্ত্র টেনিং ও সাদা আলকেল্লা পড়ে মসজিদে যাতায়েত এবং দিনে বেলায় ছন্দবেশে চলাফেরা করার বর্ননা স্থানীয়রা জানালেও  জঙ্গীদের ভয়ে ক্যামরার সামনে বলতে সহস করছে না কেউ। এমনকি পাহাড়ে অভিযান পরিচলনাকারি পুলিশের এএসপি র্সাকেল ফারুক আহমদও না। তিনি পাহাড়ে জঙ্গীদের সম্পর্কে মূখ খোলতে মোটেও রাজি নয়।
তবে টেকনাফ থানার অফিসার ইনর্চাজ (তদন্ত) দিদার ফেরদৌস টেকনাফ বাহারছরা শামলার খলিলের ঘোনায় জঙ্গী আটক করতে অভিযান চালানোর কথা স্বীকার বলেন পাহাড়ে কিছু মানুষ অবস্থান নেওয়ার সংবাদে বিপুল সংখ্যক পুলিশ নিয়ে পাহাড়ে অভিযান চালানো হয়েছে। তবে পুলিশ সেখান থেকে কাউকে আটক করতে না পারলেও পাহাড়ে পলিথিন দিয়ে তৈরি লম্বা ক্যাম্প ভেঙ্গে দিয়েছে পুলিশ। তবে পাহাড়টি নজরধারিতে রেখেছে পুলিশ।

নজির আহমেদ সীমান্ত
টেকনাফ প্রতিনিধি

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT