টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!
শিরোনাম :

টেকনাফের উন্নয়নে চরম বাধা সওজ সড়ক ও লেংগুরবিল এলজিইডি সড়ক !

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : রবিবার, ৭ নভেম্বর, ২০২১
  • ১৭০ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

টেকনাফ নিউজ ডেস্ক ::
সীমান্ত উপজেলা টেকনাফে সরকারের উন্নয়নের জোয়ারে বড় বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে কক্সবাজার টু টেকনাফের পৌরসভার সড়ক ও জনপথ বিভাগের (সওজ) সড়ক ও টেকনাফ সদরের লেংগুরবিল এলজিইডি সড়ক। বর্ষা শুরু হতে না হতে টেকনাফ-কক্সবাজার আঞ্চলিক সড়কের পৌরসভার পুরাতন বাস স্টেশন সড়ক এখন মরণ ফাঁদে পরিণত হয়ে পড়েছে।

সড়কে পুকুর সমান খানাখন্দ থাকায় বৃষ্টির পানিতে এগুলো ছোট ছোট পুকুরে পরিণত হয়েছে। প্রতিদিন এই সড়কের অসংখ্য যানবাহন দুর্ঘটনায় কবলিত হচ্ছে। ফলে অনেক যাত্রী আহত এমনকি পঙ্গুত্ব বরণ করতে হচ্ছে। সড়ক মেরামতে কারো কোনো নজর নেই। মাঝে মাঝে সড়ক ও জনপথ বিভাগের কিছু কর্মচারী সড়ক মেরামতের নামে ইট-কংকর দিয়ে চলে যায়। তারা চলে যাওয়ার এক সপ্তাহ যেতে না যেতে আবারও খানাখন্দে পরিণত হয়।

কয়েকজন যাত্রী অভিযোগ করে বলেন, এই সড়কের যাত্রীরা যানবাহনে উঠলে আল্লাহর নাম স্বরণ করতে হয়। কখন যে গাড়িটি দুর্ঘটনায় কবলিত হয়ে মৃত্যুবরণ করতে হয়।

খানাখন্দে গাড়ি চালাতে গিয়ে যন্ত্রাংশ নষ্ট হয়ে যায় বলে ক্ষোভ প্রকাশ করে টেকনাফের সিএনজি চালক সৈয়দ নূর হোসেন বলেন, টেকনাফ পৌরসভার সড়ক ও জনপথ বিভাগের সড়কে উঠলে গাড়ির অনেক যন্ত্রাংশই নষ্ট হয়ে যায়। ফলে এই সড়কে গাড়ি চালাতে আর ইচ্ছে করে না। কিন্তু যাত্রীদের অনুরোধে গাড়ি চালাই। দীর্ঘ ৪ থেকে ৫ বছর ধরে টেকনাফ পৌরসভার শাপলা চত্বর হয়ে হোয়াইক্যং ইউনিয়নের উনছিপ্রাং পর্যন্ত সড়কটি পুনঃসংস্কার না হওয়ায় মরণ ফাঁদে পরিণত হয়েছে। সড়কের মূল অংশের আবরণ উঠে গিয়ে বড় বড় খানাখন্দের সৃষ্টি হয়েছে।

মোঃ সেলিম নামে আরেক চালক বলেন, এই সড়কে গাড়ি চলাচল করলে ব্যাঙের মত লাফিয়ে লাফিয়ে গাড়ি চালাতে হয়। এতে গাড়ির যেমন যন্ত্রাংশ নষ্ট হয়, তেমনি অসুস্থ যাত্রীদের শরীরে ঝাঁকুনিতে মারাত্মক কষ্ট হয়। এমন কি অনেক যাত্রী মারাও গেছে।

এ বিষয়ে টেকনাফ পৌরসভার মেয়র হাজী মোহাম্মদ ইসলামের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, টেকনাফ পৌরসভার পুরাতন বাস স্টেশন সড়কটি সড়ক ও জনপথ বিভাগের। আমাদের মেরামত করার কোনো সুযোগ নেই। সুতরাং এই সড়কটি মেরামতের দায়িত্ব ও তাদের। এ ব্যাপারে আমি অনেক বার তাদের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে সড়কটি পুনঃসংস্কারের জন্য অনুরোধ করেছি। এরপরও তারা সড়কটি মেরামত করছে না বিধায় যানবাহন যোগে চলাচল করতে গিয়ে পৌরবাসীর নাভিশ্বাস উঠছে।

অন্যদিকে টেকনাফ লেংগুরবিল এলজিইডি সড়কেরও বেহাল দশা। দূরদূরান্ত থেকে আসা লোকজনদের দুর্ভোগের অন্ত নেই। দীর্ঘদিন পর্যন্ত সড়কটি মেরামত না করায় সড়কের মূল আবরণ উঠে গিয়ে বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। ছোট-বড় সব যানবাহন চলাচল এখন ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে।

এই সড়কটিতে অনেক গুরত্বপূর্ণ স্থাপনা রয়েছে, সীমান্তরক্ষী বাহিনী টেকনাফ ২ বিজিবি ব্যাটালিয়নের সদর দপ্তর, সরকারি টেকনিক্যাল কলেজ, পর্যটন এলাকায় পর্যটকদের যাতায়াতের জন্য সী-বিচ সড়কসহ অসংখ্য শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান রয়েছে এই সড়কের পাশে।

এ সড়ক দিয়ে প্রতিদিন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের কোমলমতি শিক্ষার্থীরা ছোট ছোট যানবাহন যোগে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে যায়। পাশাপাশি সাগর থেকে আহরিত মৎস্য, ক্ষেতে উৎপাদিত পান, সুপারিসহ বিভিন্ন পণ্যাদি যানবাহন যোগে এই সড়ক দিয়ে টেকনাফ পৌরসভাসহ সারাদেশে চালান দেয়া হয়।

এ ব্যপারে সড়ক ও জনপথ (সওজ) বিভাগের কক্সবাজার র্নিবাহী প্রকৌশলী খন্দকার গোলাম মোস্তাফা জানান, সড়কের বেহালদশার ব্যপারে আমি খুবই দুঃখিত। বৃষ্টি একটু কমলেই শীঘ্রই মেরামতের কাজ শুরু করে দেয়া হবে।
টেকনাফ লেংগুরবিল এলজিইডির সড়কের বিষয়ে টেকনাফ উপজেলা উপ-সহকারী প্রকৌশলী খাইরুল ইসলামের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, সড়কটির টেন্ডার হয়ে গেছে। আগামী জুলাই মাস থেকে মেরামতের কাজ আরম্ভ হতে পারে। এছাড়া সড়কের ঝুঁকিপূর্ণ গাছগুলো কর্তন করা হবে।

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT