টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!

জেলার ৪ আসনে একাই লড়বে আওয়ামী লীগ

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ৬ জুন, ২০১৩
  • ১১২ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

vvvআগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে শক্ত প্রতিপক্ষ ১৮ দলীয় জোটের বিরুদ্ধে দুর্বল সহযোগীদের নিয়ে একাই লড়বে মহাজোটের প্রধান শক্তি আওয়ামী লীগ। গত জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জেলার চারটি আসনের মধ্যে মাত্র একটি আসনে জয়লাভ করলেও এবার অন্ততঃ তিন আসনে জয়লাভের জন্য লড়বে আওয়ামী লীগ। মহাজোটের প্রধান শরীক জাতীয় পার্টি একক নির্বাচনের ঘোষনা দিলেও মহাজোটের ভোট ব্যাংকে তেমন ক্ষতি হবে না বলে মনে করছেন আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতারা।
অপরদিকে ১৮ দলীয় জোটের ১৪টি দলের কোন কার্যক্রম কক্সবাজারে না থাকলেও যে ৪টি দল জেলাব্যাপী সক্রিয় রয়েছে এ ৪টিরই বিশাল ভোট ব্যাংক রয়েছে বলে দাবী ১৮ দলীয় জোটের নেতাদের। আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ১৮ দলীয় জোট অংশ গ্রহন করলে জেলার ৪টি আসনেই সহজ বিজয় হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন ১৮ দলের জেলা পর্যায়ের শীর্ষ নেতারা।
জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সালাহ উদ্দিন আহমদ সিআইপি জানান, গত জাতীয় নির্বাচনে দেশব্যাপী মহাজোটের ধস নামানো বিজয় হলেও কক্সবাজারে তার প্রতিফলন হয়নি। এখন আমরা ভুলত্রুটি শুধরে নিয়ে আগামী জাতীয় নির্বাচনে ১৮ দলীয় জোটের মোকাবেলা করতে চাই। দেশব্যাপী নৈরাজ্য, সন্ত্রাস ও অযৌক্তিক হরতাল দেশের মানুষ ১৮ দলীয় জোটের উপর ক্ষুদ্ধ হয়ে উঠেছে। মহাজোট নেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যেভাবে দেশকে অর্থনৈতিক ভাবে সমৃদ্ধ করেছেন ও জঙ্গিবাদমুক্ত করেছেন এতে আন্তর্জাতিক ভাবে দেশের ভাবমূর্তী উজ্জ্বল হয়েছে। দেশ আজ মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় এগিয়ে যাচ্ছে। সারা দেশ ব্যাপী প্রভুত উন্নয়ন হয়েছে। দেশ এখন একটি মধ্য আয়ের দেশের পথে একধাপ এগিয়ে গেছে।
জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম চৌধুরী জানান, দেশের উন্নতি দেখে ১৮ দলীয় জোট নির্বাচনে আসতে ভয় পাচ্ছে। বর্তমানে দেশের অর্থনীতির যে অবস্থা বিরাজ করছে এতে ১৮ দলীয় জোট ঈষান্বিত হয়েছে। এরা যদি গনতান্ত্রিক ধারা অব্যাহত রাখতে চায় তাহলে অবশ্যই নির্বাচনে আসবে।
জেলা আওয়ামী লীগের উপ-প্রচার সম্পাদক চট্টগ্রাম কমার্স কলেজের ভিপি ও জিএস আশেক উল্লাহ রফিক জানান, গনতন্ত্র ও মানুষের অধিকার আন্দোলনের মধ্য দিয়ে আওয়ামী লীগের জন্ম হয়েছে। যে দেশ জাতিকে স্বাধীনতা এনে দিয়েছে দেশকে সন্ত্রাস ও জঙ্গি ম্ক্তু করেছে, নারীদের অধিকার নিশ্চিত করেছে একই সাথে বাঙ্গালী জাতিকে বিশ্বের দরবারে মাথা উচুঁ করে দাড়াবার সুযোগ সৃষ্টি করেছে সে দলকে জাতি কোন দিন বিমুখ করবে না। আমরা সম্মিলিত ভাবে কাজ করে জেলার ৪টি আসন আগামী নির্বাচনে জননেত্রীকে উপহার দিয়ে তার মূখ উজ্জ্বল করতে চাই। কক্সবাজারের পর্যটন শিল্প বিকাশে তিনি অনেক কাজ করেছেন। আর্ন্তজাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়াম ইতোমধ্যে শুরু হয়েছে। বিমান বন্দরকে আর্ন্তজাতিক মানের উন্নিত করেণের কাজও এগিয়ে চলছে। বিগত চারদলীয় জোট সরকারের সময়ে যে দলীয় করণ ও দখলবাজী হয়েছে তা আওয়ামী লীগ করেনি। তাই জেলাবাসী আওয়ামী লীগের উপর পূর্ণ আস্থা রাখবে।
অপরদিকে জেলা বিএনপির সভাপতি শাহজাহান চৌধুরী আগামী নির্বাচন নিয়ে সংশয় প্রকাশ করে বলেন নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকার ছাড়া ১৮ দলীয় জোট নির্বাচনে যাবে না। সরকার যদি ১৮ দলীয় জোটের দাবী না মানে তাহলে গন আন্দোলনের মাধ্যমে সরকারকে এ দাবী মানতে বাধ্য করা হবে। যদি নির্দলীয় তত্বাবধায়ক অধীনে নির্বাচন হয় তাহলে মহাজোট জোট শুধু কক্সবাজারে নয় সারা বাংলাদেশ দেশ থেকে তারা গনজোয়ারে ভেসে যাবে। তাদের রাষ্ট্রিয় সন্ত্রাস অনিয়ম ও দূর্নীতি সম্পর্কে জনগণ সচেতন হয়েছে।
বিএনপির কেন্দ্রীয় সদস্য ও কক্সবাজার সদর আসনের সংসদ সদস্য লুৎফুর রহমান কাজল জানান, এ সরকার দেশকে কারাগারে রূপান্তর করেছে। বিএনপির শীর্ষ নেতাদের মিথ্যা মামলায় জড়িয়ে যেভাবে হয়রানী করা হচ্ছে এতে দেশের মানুষ এ সরকারের উপর ক্ষুদ্ধ হয়ে উঠেছে। আলেম সমাজের উপরও সরকার নির্যাতন চালিয়েছে। কক্সবাজার জেলায় কোথাও উন্নয়ন হয়নি। তাই জনগণের আস্থা এ সরকারের উপর আর নেই। তাই আগামী জাতীয় নির্বাচনে ১৮ দলীয় জোট অংশ গ্রহন করলে সহজ জয়লাভ করবে।
বিএনপির কেন্দ্রীয় সদস্য সাবেক এমপি আলমগীর মোহাম্মদ মাহফুজ উল্লাহ ফরিদ জানান, দেশের মানুষ দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার সাথে ঐক্যবদ্ধ আছেন। সরকারী দলের নৈরাজ্যে দেশ আজ প্রায় অচল হয়ে আছে। তাই নির্দলীয় তত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন হলে ৯৫ শতাংশ আসন ১৮ দলীয় জোট জয়লাভ করবে।
জামায়াতে ইসলামীর জেলা সেক্রেটারী জিএম রহিমুল্লাহ জানান, সরকার অন্যায়ভাবে জামায়াতের কেন্দ্রীয় নেতাদের জেলে আটকে রেখেছে। এ ছাড়াও সারা দেশে জামায়াতের উপর সরকার যেভাবে অত্যাচার নির্যাতন চালিয়ে যাচ্ছে এতে জাতি তাদের ক্ষমা করবে না। তাই আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে যদি ১৮ দলীয় জোট নির্বাচনে যায় তাহলে মহাজোটের পরাজয় অনিভার্য। তাদের নিশ্চিত পরাজয় আঁচ করতে পেরে নানান সংকট সৃষ্টি করে গনতান্ত্রিক ধারা ব্যহত করার পায়তারা চালাচ্ছে।

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT