টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!

চাঁপাই-সিরাজগঞ্জে জামায়াত-শিবির-পুলিশ সংঘর্ষে নিহত ৫

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : শুক্রবার, ২৯ মার্চ, ২০১৩
  • ১৫১ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

চাঁপাইনবাবগঞ্জ ও সিরাজগঞ্জ জেলায় শুক্রবার জামায়াত-শিবিরের সঙ্গে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সংঘর্ষে ৫ জন নিহত ও ৭৫ জন আহত হয়েছেন।

এর মধ্যে চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জে ৩ জন ও সিরাজগঞ্জের বেলকুচিতে ২ জন মারা গেছেন।

এছাড়া শিবগঞ্জে ৩৫ জন গুলিবিদ্ধসহ ম্যাজিস্ট্রেট, আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর ১০ থেকে ১২ জন সদস্যও আহত হয়েছেন। অন্যদিকে, বেলকুচিতে সাংবাদিক-পুলিশসহ অন্তত ৩০ জন আহত হয়েছেন।

এ বিষয়ে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি জানান, শিবগঞ্জে নিহতরা হলেন- ওলিউল্লা (২৩), মতিউর (২৫) ও রবিউল (২৪)।

এর মধ্যে ওলিউল্লার বাড়ি শ্যামপুর, রবিউলের বাড়ি বাবুপুর ও মতিউরের বাড়ি গোপালনগর গ্রামে।

হতাহতদের জামায়াত তাদের সমর্থক বলে দাবি করলেও নিহতদের পরিবারের দাবি, তারা কোনো রাজনৈতিক দলের সদস্য ছিলেন না।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, আসামি ধরার জন্য ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে পুলিশ, র‌্যাব ও বিজিবির সমন্বয়ে যৌথ বাহিনী বৃহস্পতিবার দিনগত রাত আড়াইটার দিকে শ্যামপুরে অভিযান চালায়।

এ সময় স্থানীয় জামায়াত-শিবির কর্মীরা যৌথ বাহিনীকে অবরুদ্ধ করে হামলা চালায়। একপর্যায়ে আত্মরক্ষার্থে পুলিশ গুলি করে। এতে ৩ জন মারা যান।

খবর পেয়ে জেলা শহর থেকে অতিরিক্ত র‌্যাব, পুলিশ ও বিজিবির সদস্যরা ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে অবরুদ্ধ যৌথ বাহিনীর সদস্যদের উদ্ধার করে।

এর আগে পুলিশের গুলিতে হতাহতের খবর ছড়িয়ে পড়লে চাঁপাইনবাবগঞ্জ-সোনামসিজদ স্থলবন্দর মহাসড়কের বিভিন্ন স্থানে বিদ্যুতের খুঁটি ফেলে সড়ক অবরোধ করে জামায়াত-শিবিরের কর্মী সমর্থকরা।

এদিকে, পুলিশ সুপার (এসপি) বশির আহম্মেদ কেউ নিহত হওয়ার কোনো খবর পাননি বলে বাংলানিউজকে জানিয়েছেন।

তবে তিনি জানান, এ ঘটনায় ম্যাজিস্ট্রেটসহ যৌথ বাহিনীর ১২ সদস্য আহত হয়েছেন। বর্তমানে ওই এলাকায় অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

এ প্রসঙ্গে জেলা প্রশাসক ড. শাহ আলম বাংলানিউজকে জানান, কানসাট পল্লীবিদ্যুৎ অফিস পোড়ানোর মামলায় আসামিদের ধরতে গেলে যৌথবাহিনীর ওপর হামলার ঘটনা ঘটে।

অপরদিকে, হতাহতের ঘটনার প্রতিবাদে রোববার (৩১ মার্চ) চাঁপাইনবাবগঞ্জে সকাল-সন্ধ্যা হরতালের ডাক দিয়েছে স্থানীয় ১৮ দলীয় জোট।

এছাড়া সিরাজগঞ্জের বেলকুচিতে জামায়াত-শিবির ও বিএনপির সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষে বিএনপির ২ কর্মী নিহত হয়েছেন।

আহত হয়েছেন পুলিশ-সাংবাদিকসহ অন্তত ৩০ জন।

নিহতরা হলেন- সর্বতুলসী গ্রামের আব্দুল মজিদের ছেলে যুবদল কর্মী ফরিদুল (২০) ও কল্যাণপুর গ্রামের আব্দুল হামিদের ছেলে ছাত্রদল কর্মী ইউনুস আলী (১৮)।

এরা উল্লাপাড়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়ার পথে মারা যান। আহতদের মধ্যে গুলিবিদ্ধ আরও ২ জনের অবস্থা গুরুতর।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, বেলকুচিতে হরতালের সময় আওয়ামী লীগের কার্যালয় ভাঙচুর মামলার তালিকাভুক্ত আসামি হাবিবুর রহমানকে ধরতে মৌপুর গ্রামে যায় পুলিশ।

এ সময় আসামি জামায়াত কর্মী হাবিবুর রহমানকে আটক করে নিয়ে মৌপুর বাজারে এলে পুলিশের ওপর হামলার চালায় জামায়াত-শিবির ও বিএনপির কর্মীরা।

এ খবর পেয়ে আওয়ামী লীগ কর্মীরা এগিয়ে গেলে জামায়াত ও বিএনপি কর্মীরা মসজিদের মাইকে মাইকিং করে পাশের ৩টি গ্রামের নিজেদের দলীয় লোক জড়ো করে। পরে উভয়ের মধ্যে সংঘর্ষ বেঁধে যায়।

প্রায় ঘণ্টাব্যাপী সংঘর্ষে দুই সাংবাদিক-পুলিশসহ অন্তত ৩০ জন আহত হন।

এর পর পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ টিয়ার শেল ও রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে। এ সময় গুলিবিদ্ধ হন ৪ জন। এদের মধ্যে দুইজন উল্লাপাড়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়ার পথে মারা যান।

এদিকে, হামলাকারীদের আঘাতে বিটিভি’র সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি গাজী এস এইচ ফিরোজী ও মাইটিভির সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি রহমত আলী গুরুতর আহত হয়েছেন।

এবিষয়ে সিরাজগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোকতার হোসেন বাংলানিউজকে বলেন, “আমরা শুনেছি দুইজন মারা গেছেন।

বতর্মানে আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে। বেলকুচিতে অতিরিক্ত র‌্যাব ও পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।”

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT