টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!
শিরোনাম :

ক্রেতাদের আনাগোনা থাকলেও বেচাবিক্রি কম :হতশায় দোকানিরা রামুতে শেষ দিনে জমে উঠেছে ঈদের বাজার

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ৮ আগস্ট, ২০১৩
  • ১৫০ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

pic marketআবুল কাশেম সাগর,রামু ॥ আজ চাঁদ দেখা গেলে আগামীকাল ঈদ। অন্যবারের চেয়ে এবারে একটু দেরিতে হলেও কিছুটা জমে উঠেছে রামুতে পবিত্র (ঈদুল ফিতর) ঈদের বাজার। সরজিমন পরিদর্শন ও দোকানিদের সাথে আলাপ করে জানা যায়, রমজানের শুরুর দিকে বিপনী প্রতিষ্ঠান গুলোতে বেচাবিক্রি কম হলেও শেষের দিকে  রেডিমেট পোষাক, শাড়ির দোকান, পাঞ্জাবীর দোকান, ছিট কাপড়ের দোকান, টেইলার্স, হকার্স মার্কেট, প্রসাধনী সহ জুতার দোকান সব জায়গাতেই আগের তুলনায় ক্রেতাদের ভীড় বেড়েছে। সাধ আর সাধ্যের মধ্যে না হলেও মানিয়ে নিয়ে চলছে এবারের ঈদের কেনাকাটা।   উপজেলার ফতেখাঁকুল সাত ঘরিয়া পারা এলাকা হতে স্বপরিবারে ঈদের বাজার করতে আসা  আবুল হেসেন জানান, ঈদ মানে নতুন জামা, নতুন কাপড়, নতুন টুপি, নতুন কিছু। নতুন জামা-কাপড় ঈদ আনন্দের পূর্ণতা এনে দেয়। তাই স্বপরিবারে ঈদে নতুন জামা-কাপড় কিনতে এসেছি।  বৃহস্পতিবার সরজমিনে বাজারে গিয়ে দেখা গেছে উপজেলার চৌমহনীস্থ  এস আর সুপার মার্কেট, রাহাত প্লাজা, তাহের প্লাজা, এন ইসলাম প্লাজা, সিরাজ প্লাজা, কে এ নিউ মার্কেট, হাজ্বী জাহেদ কমপ্লেক্স,আওনাত শপিং কমপ্লেক্স, বাইপাসস্থ আলহাজ্ব মজিদিয়িা শপিং কমপ্লেক্স এর বিভিন্ন বিপনী বিতান গুলো ক্রেতাদের আকৃষ্ঠ করার জন্য রকমারী পসরায় সাজানো হয়েছে। রেডিমেট কাপড়ের দোকান গুলোয় ছেলে, মেয়ে ও শিশুদের জন্য এসেছে নানা নামের ও দামের পোষাক।  এবারে মেয়েদের টপস্ লেহেঙ্গা  ২ হাজার থেকে ২ হাজার ৫শ টাকায়, বড়দের থ্রি-পিচ আশিকা, ঝিলিক, ফুলকি, খুশি আর চল বহু দূর থ্রি-পিচ সাড়ে ৩ হাজার হতে ৭ হাজার টাকায় বিক্রি হচ্ছে। ছেলেদের শর্ট ও লং পাঞ্জাবী ১ হাজার ৫শ টাকায়, শর্ট ও লং শার্ট ৭শ থেকে ১২শ টাকায়, জিন্স প্যান্ট ১৪ থেকে ১৫শ টাকায়, টি শার্ট ৭শ থেকে ১ হাজার টাকায়, শিশুদের পাঞ্জাবী ২শ থেকে ৫শ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।  এই ঈদে এসেছে বেশ কিছু নতুন নামের শাড়ি। রাশি, চন্দ্রি কুমকুম সহ বাহারি নামের শাড়ি। আর ঢাকাই জামদানী, টাঙ্গাইল সিল্ক, রাজশাহী সিল্ক, জামদানী তসর সিল্ক, জর্জেট তো আছেই। এসব শাড়ি নাম ও প্রকার ভেদে মূল্য নির্ধারন করে রেখেছেন দোকানীরা। তবে এবারে বাজারে শাড়ির দাম একটু বেশী জানান দোকানীরা।

কাপড়ের দোকানের পাশাপাশি প্রসাাধনী ছাড়াও  জুতার দোকানেও শুরু হয়েছে ক্রেতাদের ভীড়। বিশেষ করে প্রসাধণীর দোকান গুলোতে মেয়েদের মেহেদী ও নানা রকম কসমেটিকস্ কেনার উপচে পড়া ভীড়। পাশাপাশি টুপি ও আতরের দোকানেও রয়েছে ক্রেতাদের ভীড়। টেইলার্স গুলোতে অর্ডার নেয়া বন্ধ করা হয়েছে। তবে ডিপার্মেন্টাল ষ্টোর সহ মুদীর দোকান গুলোতে নিত্য প্রয়োজনীয় খাদ্য দ্রব্য সহ সেমাই-চিনি, খেজুর, নুডলস কেনার ভীড় একটু বেশী ল করা গেছে।

উপজেলার প্রাকৃতিক,সামাজিক, রাজনৈতিক নানান সমস্যার কারনে এ বছর মানুষদের ঈদের বাজারে কেনাকাটা যেন স্বপ্নের মতোই।  কারন হিসাবে কয়েকজন দোকানি বলেন গেলো বছরের পর পর কয়েকবার বয়াবহ বন্যা, বৌদ্ধ পল্লীতে নৈরাজ্য ও সাধারণ মানুষের বিশেষ করে কর্মসংস্থানের অভাবকে দায়ী করা হয়েছে। তবুও ঈদের আনন্দ থেকে মানুষ যেন পিছিয়ে নেই। সকলেই তাদের সাধ্য অনুযায়ী ঈদকে সামনে রেখে পরিবারের জন্য বাজারে নেমে পড়েছে।

রাজ বস্ত্র বিতানের পরিচালক হুমাইদ জানান, ঈদ উপলক্ষ্যে ক্রেতাদের চাহিদা মাফিক সকল ধররের কাপড় তোলা হয়েছে দোকানে। শার্ট,পেন্ট ছাড়াও থ্রি-পিচ ও শাড়ি ক্রেতার চাহিদা বেশী। দোকানে সর্বোচ্ছ ১০-১৫ হাজার টাকা দামের শাড়ি বিক্রি হয়েছে বলে জানান তিনি।   লায়লা বস্ত্র বিতানের পরিচালক শফিকুল ইসলাম জানান, এবারের ঈদে কেনাকাটা অন্যান্য বছরের চেয়ে কম।  রমজানের শুরুর দিকে বিক্রি কম হলেও শেষের দিকে যতটুটু ভাল হবে মনে করছিলাম তা হচ্ছে না । রকমারি প্রতিষ্ঠান ব্ল্যাক ইন এর পরিচালক ব্যবসায়ী মোঃ জাহাঙ্গীর জানান, এবারের ঈদের বাজার মন্দা। রমজানের শুরুর দিকে কোন ধরনের বেচাবিক্রি হয়নি।  তবে শেষের দিকে কেনাবেছা কিছুটা হলেও তা অপ্রতুল। গত কয়েক দিন ধরে মার্কেটে ক্রেতাদের আনাগোনা দেখা দিলেও বেচাবিক্র কম।

প্রেরকঃ আবুল কাশেম সাগর,রামু ॥ ৮ আগষ্ট ১৩ইং

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT