টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!

কক্সবাজার পৌর আওয়ামীলীগের তথ্য ও গবেষনা সম্পাদক হিমেলের ক্ষোভ ও বিবৃতি

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : সোমবার, ১৮ জুন, ২০১২
  • ২৪৪ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

প্রেস বিজ্ঞপ্তি: …কক্সবাজার পৌর আওয়ামীলীগের তথ্য ও গবেষনা সম্পাদক ও সাবেক জেলা ছাত্রলীগ নেতা মাহাবুব কামাল হিমেল অত্যান্ত ক্ষোভ প্রকাশ করে এক বিবৃতিতে কেন্দ্রীয় ও জেলা আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দের প্রতি তড়িৎ দৃঢ় হস্তক্ষেপের মাধ্যমে পর্যটন নগরীখ্যাত কক্সবাজার জেলা সদরের পৌর আওয়ামীলীগের অস্তীত্ব রক্ষার্থে- নব্য আওয়ামীলীগার, ভূমিদস্যূ, দখলবাজ, চাঁদাবাজ ও দলীয় পদ পদবী সম্পূর্ণ অগঠনতান্ত্রিক ভাবে জামায়াত-বিএনপি’র ক্যাডারদের নিকট বিক্রয়কারী নেতা পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি জনাব মুজিবুর রহমান ও তাহার সিন্ডিকেট এর কবল থেকে মুক্ত করার জন্য আহবান জানান।

তিনি বলেন, আমি জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর আদর্শের একজন রাজনৈতিক কর্মী হিসাবে ছাত্র জীবনের দীর্ঘ সময় ছাত্রলীগের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সাংগঠনিক দায়িত্ব পালন করেছি। যাহার ফলে আমার জানামতে প্রতিটি রাজনৈতিক সংগঠন, ছাত্র সংগঠন সহ প্রতিটি সংগঠন পরিচালনার নিমিত্তে স্ব স্ব সংগঠনের একটি পবিত্র গঠনতন্ত্র রয়েছে। সেই গঠনতন্ত্রের ধারা, উপধারা অনুসরন করেই প্রতিটি রাজনৈতিক সংগঠন গণতান্ত্রিক পন্থায় পরিচালিত হয়। বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ এদেশের মাটি ও মানুষের প্রাণপ্রিয় সংগঠন, এই সংগঠনের নেতাকর্মীরাই জাতির পিতার নেতৃত্বে স্বাধীনতার লাল সুর্য্য ছিনিয়ে এনেছিল। এই সংগঠনের নেতাকর্মীরা সংগঠনের পবিত্র গঠনতন্ত্রকে সর্বোচ্চ প্রাধান্য দিয়ে ও গঠনতন্ত্রের ধারা, উপধারা মতে পরিচালিত হয়ে কেন্দ্র থেকে তৃনমূল পর্যন্ত সংগঠনের ঐক্য ও শৃংখলা সমুন্নত রেখে বঙ্গবন্ধুর কন্যার নেতৃত্বে বার বার এই দেশে মানুষের ভালবাসা অর্জন করে জনগণের সেবা করার সুযোগ পেয়ে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় অধিষ্টিত হয়েছে। এই ঐতিহ্যবাহী সংগঠনের পবিত্র গঠনতন্ত্রের পরিপন্থিমূলক কোন কার্যক্রম কোন নেতা বা কর্মী করে থাকলে তাকে অবশ্যই সাংগঠনিক কঠোর শাস্তিভোগ করতে হয়। কিন্তু দুর্ভাগ্য জনক যে, বঙ্গবন্ধু কন্যার নেতৃত্বে বর্তমান সরকার ক্ষমতাসীন হওয়ার পরেই পর্যটন নগরীখ্যাত কক্সবাজার পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি মুজিবুর রহমান সাহেব তাহার নিজের আখের গোচানোর স্বার্থে পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতির পদ পদবীকে অপব্যবহার করে সম্পূর্ণ অগঠনতান্ত্রিকভাবে কয়েক জামায়াত-বিএনপি’র চিহ্নিত ক্যাডার ও চিহ্নিত ভূমিদস্যূ, দখলবাজগণকে পৌর আওয়ামীলীগের বিভিন্ন পদ পদবীধারী নেতা হিসাবে পরিচয় করিয়ে দিয়ে বিভিন্ন অপকর্মে নামিয়ে দিয়েছেন। যাহা সাংগঠনিক বিরোধী কর্মকান্ড।

তিনি আরো বলেন, ২০০৫ইং সনের ২৮ মার্চ তারিখে অনুষ্ঠিত কক্সবাজার পৌর আওয়ামীলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন ও কাউন্সিল অধিবেশনে কাউন্সিলরদের সর্বসম্মত মতামতের ভিত্তিতে সেদিন জনাব মুজিবুর রহমান সাহেব পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সাবেক ছাত্রনেতা এডভোকেট ফখরুল ইসলাম গুন্দু সাহেব পৌর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক নিবার্চিত হন। নির্বাচিত সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক সর্বসম্মত ভাবে সংগঠনের পবিত্র গঠনতন্ত্র অনুসরণ পূর্বক ৬৭ সদস্য বিশিষ্ট পৌর আওয়ামীলীগের কার্যকরী কমিটি গঠনপূর্বক উর্ধ্বতন কমিটি জেলা আওয়ামীলীগের নিকট অনুমোদনের জন্য উপস্থাপন করিলে, জেলা আওয়ামীলীগের ২৯/০৫/২০০৫ইং তারিখে অনুষ্ঠিত সভায় পৌর আওয়ামীলীগের উক্ত কমিটিকে অনুমোদন দেওয়া  হয়। আমি উক্ত অনুমোদিত কমিটির তথ্য ও গবেষনা সম্পাদক। যাহা অদ্যাবধি বলবৎ আছেন। ইহাছাড়াও বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের বিগত ২৪ জুলাই ২০০৯ইং তারিখে অনুষ্ঠিত জাতীয় কাউন্সিলে সংগঠনের পবিত্র গঠনতন্ত্রের কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে সংশোধনী আনা হয়। উক্ত সংশোধনীতে উল্লেখ করা হয় যে, সংগঠনের কোন নতুন সদস্য অন্তর্ভূক্ত হলে- তাকে নূনতম এক বৎসর প্রাথমিক সদস্য হিসাবে দায়িত্ব পালন করতে হবে। প্রাথমিক সদস্যের মেয়াদ এক বৎসর পূর্ণ না হওয়া পর্যন্ত কোন নতুন সদস্যকে সংগঠনের পবিত্র গঠনতন্ত্রের ধারা ৫(২) এর মর্ম মতে সংগঠনের কোন দায়িত্বপূর্ণ পদে দায়িত্ব দেওয়া যাইবে না। কিন্তু পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি মুজিবুর রহমান সাহেব তাহার ইচ্ছামত সংগঠনের পবিত্র গঠনতন্ত্রকে পদদলিত করে প্রতিদিন নিত্যনতুন বিতর্কিত ব্যক্তিগণকে পৌর আওয়ামীলীগের বিভিন্ন পদ পদবীধারী নেতা হিসাবে পরিচয় করিয়ে দিয়ে যাচ্ছেন। যাহা অত্যান্ত দুঃখজনক ও সংগঠনের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর। সেই রকম সম্প্রতি কক্সবাজার শহর জুড়ে পৌর আওয়ামীলীগের তথ্য ও গবেষনা সম্পাদক পরিচয়ে জনৈক কাজী মোর্শেদ আহমদ বাবু নামক এক ব্যক্তি জনাব মুজিবুর রহমান সাহেবের ও তাহার নিজের ছবি সম্বলিত বিল বোর্ডের মত কিছু বিজ্ঞাপন আকারে শুভেচ্ছাবাণীর নামে সমস্ত শহরের অলি গলিতে টাঙ্গিয়ে দিয়ে উক্ত কাজী মোর্শেদ আহমদ বাবু, জনাব মুজিবুর রহমান সাহেবের দেওয়া পদ পদবীকে পুঁজি করিয়া শহরের লাইট হাউস এলাকায় নৌ পরিবহন মন্ত্রনালয়ের মালিকানাধীন বাতি ঘরের ত্রিশ কোটি টাকা মূল্যের সরকারী জমি জবর দখল করে উক্ত জমিতে মুজিবুর রহমান সহ তাহার ১৪জন নব্য আওয়ামীলীগারের নামে নাম ফলক লিখে সাইন বোর্ড টাঙ্গিয়ে দেন। যাহার সম্পর্কে জাতীয় পত্র পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশ হওয়ায় কক্সবাজার সহ দেশ ব্যাপী পৌর আওয়ামীলীগের ভাবমুর্ত্তি চরমভাবে ক্ষুন্ন হয়। আমি বিবৃতি দাতা মাহাবুব কামাল হিমেল পৌর আওয়ামীলীগের অনুমোদিত কমিটির তথ্য ও গবেষনা সম্পাদক হলে- সম্প্রতি জনাব মুজিবুর রহমান সাহেবের ছবি টাঙ্গিয়ে কাজী মোর্শেদ আহমদ বাবু নামক যে ব্যক্তিটি সরকারী জায়গা দখলবাজী করে দেশ ব্যাপী পৌর আওয়ামীলীগকে কলংকিত করলেন। তিনি পৌর আওয়ামীলীগের কোন কমিটির তথ্য ও গবেষনা সম্পাদক তাহা দয়া করে জনাব মুজিবুর রহমান সাহেব জানাবেন কি? অনুরুপভাবে বিগত জাতীয় নির্বাচনে কক্সবাজার সদর আসন থেকে প্রতিদন্ধিতাকারী গণফোরামের প্রার্থী সুর্য্য মামা প্রকাশ সাইফুল ইসলাম চৌধুরী, জনাব নজিবুল ইসলাম আপনার কেরানি শিবির ক্যাডার আবু বক্কর ছিদ্দিক খোকন সহ অনেককে কক্সবাজার পৌর আওয়ামীলীগের বিভিন্ন  পদ পদবীধারী নেতা হিসাবে ম্যাজিক খেলা দেখানোর মত নিত্য নতুনভাবে বিভিন্ন ব্যক্তিকে পৌর আওয়ামীলীগের বিভিন্ন পদ পদবীধারী নেতা হিসাবে পরিচয় করিয়ে দিচ্ছেন- তাহারা কিভাবে, সংগঠনের পবিত্র গঠনতন্ত্রের কোন ধারা, উপধারার অনুবলে উক্ত পদ পদবী সমূহ পাচ্ছেন বা দিচ্ছেন? তাহা সংগঠনের তৃনমুলের নেতাকর্মীদের জ্ঞাতার্থে জানাবেন কি? আমি জানি আপনি এই ব্যাপারে কিছু বলতে পারবেন না, কারণ সংগঠনের পবিত্র গঠনতন্ত্র সম্পর্কে আপনার নূন্যতম জ্ঞান ও ধারনা নাই। যে সমস্ত ব্যক্তিগণ আপনার দেওয়া পদ পদবীকে পুঁজি করিয়া দখলবাজী, চাঁদাবাজী, ভূমিদস্যূতাসহ বিভিন্ন অপকর্ম চালিয়ে যাচ্ছেন তাদের উদ্দেশ্যে বিনীতভাবে জানাতে চাই যে, কক্সবাজার পৌর আওয়ামীলীগের মত একটি সু-সংগঠিত, সু-শৃংখল সংগঠনটি আজকে অযোগ্য লোভী নেতৃত্বের কবলে পড়ে নিশ্চিন্ন হওয়ার পথে। আপনাদের উক্ত পদ পদবীর সাংগঠনিক ও গঠনতান্ত্রিক কোন ভিত্তি নাই ও থাকবে না। পরিশেষে কেন্দ্রীয় ও জেলা আওয়ামীলীগের শ্রদ্ধেয় নেতৃবৃন্দের কাছে বিনীতভাবে অনুরোধ করব, সংগঠনের পবিত্র গঠনতন্ত্রের পরিপন্থিমূলক ভাবে পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি জনাব মুজিবুর রহমান সাহেব কর্তৃক সাম্প্রতিক সময়ে কিছু বিতর্কিত ব্যক্তিকে দলীয় পদ পদবীধারী নেতা হিসাবে পরিচয় করিয়ে দিয়ে সংগঠন বিরোধী কর্মকান্ডা চালিয়ে আসছেন, তাহা অচিরেই দৃঢ়হস্তে দমন না করলে, কক্সবাজার পৌর আওয়ামীলীগ সংগঠন এই জেলা সদর থেকে নিশ্চিন্ন হয়ে যাওয়ার সমূহ সম্ভাবনা রহিয়াছে। একইসাথে জনাব মুজিবুর রহমান সাহেবকে অনুরোধ করব- আপনার উক্তরূপ কার্যক্রম বন্ধ করুন, না হয় সংগঠনও ক্ষতিগ্রস্থ হবে। কারণ ইতিহাস কাউকে ক্ষমা করে না। আপনার চেয়েও বড় নেতারা নেতা কর্মী ও জনরোষের হাত থেকে রেহায় পায়নি। চলবে………..

নিন্মে কক্সবাজার পৌর আওয়ামীলীগের প্রকৃত কার্যকরী কমিটি হুবহু তুলে ধরা হলো………..

সভাপতি              ঃ মুজিবুর রহমান চেয়ারম্যান

সহ-সভাপতি         ঃ এডঃ বাবুল দাশ

সহ-সভাপতি       ঃ সোনা আলী

সহ-সভাপতি                   ঃ নজরুল হুদা

সহ-সভাপতি        ঃ  এডঃ অরুপ বড়–য়া তপু

সহ-সভাপতি          ঃ  শেখ আব্দুল মোতালেব

সহ-সভাপতি        ঃ  ওমর ফারুক

সহ-সভাপতি          ঃ মোজাফ্ফর আহমদ

সাধারণ সম্পাদক     ঃ এডঃ ফকরুল ইসলাম গুন্দু

যুগ্ন সম্পাদক                    ঃ উজ্জ্বল কর

যুগ্ন সম্পাদক                     ঃ  হেলালুল ইসলাম

যুগ্ন সম্পাদক                     ঃ  নাজিমুল হোসাইন নাজিম

সাংগঠনিক সম্পাদক  ঃ আছিফ-উল-মওলা

সাংগঠনিক সম্পাদক  ঃ জহির আলম কাজল

সাংগঠনিক সম্পাদক  ঃ এ কে এম নজরুল ইসলাম

আইন বিষয়ক সম্পাদক ঃ এডঃ ফরিদ উদ্দিন আহমদ

কৃষি বিষয়ক সম্পাদক ঃ নুরুল আলম

তথ্য ও গবেষনা সম্পাদক ঃ মাহবুব কামাল হিমেল

ত্রাণ ও সমাজ কল্যান সম্পাদক ঃ শুভ দত্ত বড়–য়া

দপ্তর সম্পাদক ঃ মহসীন শেখ

ধর্ম বিষয়ক সম্পাদ ঃ কায়সার হামিদ লাদেন

প্রচার সম্পাদক ঃ মোঃ শহীদুল্লাহ মেম্বার

বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক ঃ রতন চৌধুরী

বিজ্ঞান ও প্রযুুক্তি বিষয়ক সম্পাদক ঃ গোলাম আরিফ লিটন

মহিলা বিষয়ক সম্পাদক ঃ চম্পা উদ্দিন(কমিশনার)

মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক ঃ আবু তাহের মেম্বার

যুব ও ক্রিড়া বিষয়ক সম্পাদক ঃ নুরুল আলম পেঠান

শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক ঃ এডঃ আ,জ,ম, মঈন উদ্দিন

শ্রম বিষয়ক সম্পাদক ঃ ইউছুপ বাবুল

সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক ঃ পূর্ণ বর্ধন বড়–য়া মিটু

স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক ঃ ডাঃ পরিমল কান্তি দাশ

সহ-দপ্তর সম্পাদক ঃ মোঃ আলমগীর

সহ-প্রচার প্রকাশন সম্পাদক ঃ ছৈয়দ আহমদ জমিদার

কোষাধ্যক্ষ ঃ শফিউল আলম বাঁশি

সদস্য ১. মোঃ হোছন বিএ

২. কবির হোসেন সওদাগর

৩. সন্তোষ দাশ

৪. ছুরুত আলম

৫.শামশুল আলম মেম্বার

৬. আতিক উল্লাহ কোম্পানী

৭. কেরামত আলী

৮. মোজাম্মেল হক মেম্বার

৯. মীর কাসেম কন্ট্রাকটক

১০. নুর হোসেন

১১. বাদশা মিয়া

১২. নাজমুল হক লেডু কোম্পানী

১৩. নরুল হক

১৪. সাহাব উদ্দিন বাহার

১৫. কামাল উদ্দিন খান

১৬. শাহ আলম

১৭. অপূর্ব বিকাশ ধর

১৮. মোঃ সেলিম উদ্দিন

১৯. এরশাদ উল্লাহ সিকদার

২০. বদিউল আলম সাগর

২১. বেলাল উদ্দিন

২২. ছাবের আহমদ খলিফা

২৩. জাফর আলম

২৪. জফুর আহম্মদ বহদ্দার

২৫. ফরিদুল আলম বাদশা

২৬. মিজানুর রহমান মিজান

২৭. মোজাম্মেল মুন্সি

২৮. মোস্তাক আহমদ

২৯. মোঃ ইসমাইল

৩০. তারেক ছিদ্দিকী

৩১. জয়নাল আবেদীন

৩২. মিন্টু বড়–য়া

৩৩. মৌলভী শামশুল আলম

নিবেদক

(মাহাবুব কামাল হিমেল)

তথ্য ও গবেষনা সম্পাদক

কক্সবাজার পৌর আওয়ামীলীগ

কক্সবাজার।

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT