টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!

এখন তো ৫-০ গোলে, পরে আরো বেশি গোলে হারবে আওয়ামী লীগ: খালেদা

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ৯ জুলাই, ২০১৩
  • ১২৮ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

সম্প্রতি পাঁচ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে সবকটিতেই বিএনপি নেতৃত্বাধীন ১৮-দলীয় জোট সমর্থিত প্রার্থীর বিজয়ী হওয়া প্রসঙ্গে দলের চেয়ারপারসন ও বিরোধীদলীয় নেতা বেগম খালেদা জিয়া বলেছেন, “এখন তো ৫-০ গোলে হেরেছে, পরে আওয়ামী লীগ আরো বেশি গোলে হারবে।”

সোমবার খুলনা সিটি করপোরেশেনের ১৮ দল সমর্থিত নবনির্বাচিত মেয়র মনিরুজ্জামান মনি তার সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে গেলে তিনি এ কথা বলেন। একই সঙ্গে তিনি মন্তব্য করেন, দলের নেতাকর্মীদের বর্তমানের ঐক্য ধরে রাখলে সরকার নির্দলীয় সরকারের অধীনে বাধ্য হবে।

রাত নয়টায় খালেদা জিয়ার গুলশান কার্যাসলয়ে এ সাক্ষাৎ অনুষ্ঠিত হয়। গত ১৫ জুন খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে সাবেক মেয়র তালুকদার আবদুল খালেককে পরাজিত করে মেয়র নির্বাচিত হন মনিরুজ্জামান মনি। নির্বাচিত হওয়ার পর খালেদা জিয়ার সঙ্গে তার এই প্রথম সাক্ষাৎ।

অনুষ্ঠানের শুরুতে নবনির্বাচিত মেয়র মনিরুজ্জামান মনি খালেদা জিয়ার হাতে ফুলের তোড়া দিয়ে শুভেচ্ছা জানান।

খালেদা জিয়া বলেন, “নেতাকর্মীদের ঐক্য এবং সরকারের দুঃশাসনের কারণে সিটি করপোরেশন নির্বাচনে জয় হয়েছে। আগামী দিনের আন্দোলন ও নির্বাচনে এ ঐক্য কাজে লাগাতে হবে।”

তিনি বলেন, “নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন দিতে রোজার পরে কর্মসূচি দেয়া হবে। ঐক্য ধরে রাখলে নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন দিতে সরকারকে বাধ্য করা হবে।”

নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার আহ্বান জানান খালেদা।

1_1856টেকনাফ ডেস্ক নিউজ :::তিনি বলেন, “সব অগণতান্ত্রিক ও অসাংবিধানিক সরকারকে আওয়ামী লীগ সমর্থন দিয়েছে। মইনউদ্দিন-ফখরুদ্দিন সাংবিধানিক সরকার ছিল না, তারা ছিল দখলদারী সরকার। ওই সরকারকে আওয়ামী লীগ সমর্থন দিয়েছে এবং সব কাজের বৈধতা দিয়েছে।”

সরকার কোনো নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি পালন করেনি অভিযোগ করে খালেদা বলেন, “এ কারণে সরকার জনবিচ্ছিন্ন হয়েছে। জনগণ জানিয়ে দিয়েছে, তারা আর এ সরকারকে ক্ষমতায় দেখতে চায় না। সরকার দেশকে বিকিয়ে দিয়ে নিজেদের পক্ষে কাজ করেছে।”

তিনি বলেন, “দুর্নীতির কারণে সরকার পদ্মা সেতু করতে পারেনি। এটা কলঙ্ক। বিএনপি ক্ষমতায় গিয়ে দুটি পদ্মা সেতু নির্মাণ করে এ কলঙ্ক মোচন করবে।”

অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য তরিকুল ইসলাম, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, জাগপা বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান রাজিয়া ফয়েজ, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা নুরুল ইসলাম দাদু, ব্যারিস্টার শাহজাহান ওমর, যুগ্ম মহাসচিব বরকত উল্লাহ বুলু, খুলনা জেলা বিএনপির সভাপতি মাজেদুল ইসলাম, ক্যাপ্টেন (অব) সুজাউদ্দিন, যুবদল সভাপতি মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক মসিউর রহমান, আন্তর্জাতিক সম্পাদক ড. আসাদুজ্জামন রিপন, তথ্য ও প্রযুক্তি সম্পাদক শরীফ শাহ কামাল তাজ, মহিলা দলের সভাপতি নূরে আরা সাফা, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক নজরুল ইসলাম মঞ্জু, সহ-শিক্ষা সম্পাদক হাবিবুল ইসলাম হাবিব, বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য টিএস আইয়ুব, বিশ্বাস জাহাঙ্গীর আলম, কাজী সেকেন্দার আলি ডালিম, জাগপা সভাপতি শফিউল আলম প্রধান ও খেলাফত মজলিশের যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা শাখাওয়াত হোসেন।

এছাড়া ১৮-দলীয় জোটের স্থানীয় নেতা জামায়াত ইসলামীর খুলনা মহানগর সাধারন সম্পাদক অধ্যাপক মাহফুজুর রহমানসহ নবনির্বাচিত কাউন্সিলর সাইফুল ইসলাম, কবীর হোসেন, শেখ সওকত আলী, ফারুক হিলটন, মনিরুজ্জামান, আশরাফুর রহমান, আনিসুর রহমান নিশ্বাস, আমানউল্লাহ আমান এবং সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর রহিমা আক্তার হেনা, আনচিরা খাতুন, রাবেয়া ফাহিদ হাসনা হেনা, নাদিরা বেগম তুলি, রাবেয়া ফারুকসহ ২৫ জন কাউন্সিলার উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT