টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!
শিরোনাম :
শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখা সবচেয়ে বড় ভুল : ডা. জাফরুল্লাহ মাদক কারবারি, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের তালিকাভুক্ত সাংবাদিক আব্দুর রহমানের উদ্দেশ্যে কিছু কথা! ভারী বৃষ্টির সতর্কতা, ভূমিধসের শঙ্কা মোট জনসংখ্যার চেয়েও ১ কোটি বেশি জন্ম নিবন্ধন! বাড়তি নিবন্ধনকারীরা কারা?  বাহারছড়া শামলাপুর নয়াপাড়া গ্রামের “হাইসাওয়া” প্রকল্পের মাধ্যমে সচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণ ও বার্তা প্রদান প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া ঘর উদ্বোধন উপলক্ষে টেকনাফে ইউএনও’র প্রেস ব্রিফ্রিং টেকনাফের ফাহাদ অস্ট্রেলিয়ায় গ্র্যাজুয়েট ডিগ্রী সম্পন্ন করেছে নিখোঁজের ৮ দিন পর বাসায় ফিরলেন ত্ব-হা মিয়ানমারে পিডিএফ-সেনাবাহিনী ব্যাপক সংঘর্ষ ২শ’ বাড়ি সম্পূর্ণ ধ্বংস বিল গেটসের মেয়ের জামাই কে এই মুসলিম তরুণ নাসের

উখিয়া পাচঁটি ষ্টেশনে সড়কের উভয় পাশে হাট বাজার, তীব্র যানজট

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : বুধবার, ৭ অক্টোবর, ২০১৫
  • ৫২৭ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

রফিক মাহামুদ, উখিয়া = কক্সবাজার টেকনাফ মহা সড়কের উখিয়া উপজেলার ৫ টি বাসষ্টেশনের সড়কের লাগোঁয়া এবং ফুটপাতের উপর প্রতিনিয়ত হাটবাজার বসার কারনে যানজট লেগেই থাকে সবসময়। সড়কের দুই পাশে ঝুপড়ীঘর তৈরী করে বিকিকিনি করায় যানবাহন চলাচলে প্রতি বন্ধকতা সৃষ্টি হয়। এতে গাড়ির যাত্রী ও জনসাধারনের ও ভোগান্তি পোহাতে হয়। বিশেষ করে বানিজ্যক ব্যস্ততম জনবহুল ষ্টেশন কোটবাজার ষ্টেশনে ট্রাফিক পুলিশ থাকলেও উপজেলার অন্যান্য জনবহুল গুরুত্বপূর্ণ ষ্টেশন সমূহে ট্রাফিক পুলিশ না থাকায় অসহনীয় যানজট সৃষ্টি হচ্ছে। সরেজমিনে দেখা যায় কক্সাবাজার টেকনাফ সড়কের উখিয়া উপজেলার মরিচ্যা বাজার, কোটবাজার, উখিয়া সদর, থাইংখালী ও পালংখালী বাস ষ্টেশনের আরকান সড়কের লাগোঁয়া ফুটপাতের উপর প্রতিদিন হাটবাজার বসে কাঁচামাছ, কাচামাল লাকড়ী, তৈরীতরকারী সহ বিভিন্ন ভোগ্যপন্য ও হরেকরকমের পন্য সামগ্রী বেচাঁ বিক্রি হয় সকাল থেকে রাত ৯/১০ টা পর্যন্ত। এছাড়া এসব বাস ষ্টেশনের উভয় পাশে ঝুপড়ীঘর তৈরী করে চায়ের দোকান, পানের দোকান, ফলের দোকান সহ খাবারের দোকানের মত করে নানা আইটেমের মালামাল বিক্রি করছে দেদারছে। ৫টি বাস ষ্টেশনের উভয় পাশে পাঁচ শতাধিক অবৈধ ঝুপড়িঘর গড়ে উঠে। এতে করে সড়কে চলাচলকারী যানবাহন বাস, মিনিবাস, ট্রাক, পিক কাপ, মাইক্রোবাস, পর্যটনবাহী গাড়ী চাঁদের গাড়ী, (জীপ), সিএনজি, কার ,নোহা সহ বিভিন্ন যানবাহন রাস্তায় একটি অপরটিকে পাশ কাটিয়ে যাওয়ার সুযোগ থাকে না, যান চলাচলের প্রতিবন্ধকতা দেখা দেয়। ফলে যানজট সৃষ্টি হয়। এবং দীর্ঘক্ষন যানজট লেগে থাকে, বিশেষ করে উপজেলার ব্যস্ততম জনবহুল ও বানিজ্যিক কোটবাজার বাস ষ্টেশনটি ৪ টি ইউনিয়নের চৌরাস্তার মুখ, সোনর পাড়া, ইনানী, হলদিয়া পালং, রতœাপালং, রাজাপালংয়ের যানবাহনকে এই ষ্টেশন হয়ে চলাচল করতে হয়। এখানে যানজট লাগলে সহজেই মুক্ত হয় না। দীর্ঘক্ষন লেগে থাকে, এছাড়াও উখিয়া সদর বাস ষ্টেশনেও একই অবস্থার সৃষ্টি হয়। সড়কের পাশের ফুটপাত সী-লাইন, কক্সলাইন, সিএনজি, মাইক্রোবাস, রিক্সা, টম টম চালকদের দখলে থাকায় যাতায়তকারী যানবাহন গুলো আরও বেকাদায় পড়ে। এসব কারনে সড়ক দূর্ঘটনাও ঘটেছে। যানবাহন চালকরা গাড়ী নিয়ন্ত্রন হারিয়ে দূর্ঘটনা কবলিত হয়। কোটবাজার বনিক কল্যাণ সমবায় সমিতি সাধারণ সম্পাদক মোঃ আলমগীর এ প্রসঙ্গে বলেন, কোটবাজার কয়েকটি ইউনিয়নের সংযোগস্থল বানিজ্যিক এলাকা হওয়াতে গুরুত্ব বেশী। সড়কের পাশে পথচারীদের ফুটপাতের উপর পন্য সামগ্রী বেচাঁ বিক্রি হওয়া এবং ঝুপড়ীঘর সীলাইন, কক্সলাইন, টম টম, টাটা গাড়ী, সিএনজি ও রিক্সার দখলে থাকায় অসহ্যনীয় যানজট সৃষ্টি হয়। পাঁচটি ষ্টেশনের মধ্যে শুধুমাত্র কোটবাজারেই একজন সু-দক্ষ টি.এসআই ও ট্রাপিক পুলিশ নিয়োগ দেওয়া হয়েছে তারা নিজেদের দক্ষতা ও যোগ্যতা দিয়ে নিজেদের দ্বায়ীত্ব পালন করে যাচ্ছে। তারা কর্মস্থলে যতক্ষণ থাকেন ততক্ষণ যানজট না থাকলেও তাদের অনুপস্থিতে যানজটের তীব্র আকার ধারণ করে। আর এ যানজটের মূল কারন হচ্ছে শত শত ব্যাটারি চালিত টমটম, এই গাড়ীগুলো সড়কে আসার পর থেকে দেশের বিদ্যুতের যেমন বারটা বাজাচ্ছে তেমনি ট্রাফিক আইন অমান্য করে চলাচল করে চলেছে হরদম। উখিয়া উপজেলায় প্রায় ৫শতাধিক টমটম বেপরোয়া ভাবে বিভিন্ন সড়ক উপসড়কে চলাচল করলেও প্রশিক্ষিত কোন চালক নেই, যার ফলে প্রতিনিয়ত দূর্ঘটনার মত মারাত্বক পরিস্থিতি সৃষ্টি হচ্ছে বলে সচেতন মহলের অভিমত।

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT