টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!

উখিয়া – টেকনাফ ভিত্তিক ইয়াবা নেটওর্য়াক

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ৬ অক্টোবর, ২০১৬
  • ১৫৮ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

সরওয়ার আলম শাহীন,উখিয়া থেকে ::: সীমান্তবর্তী উপজেলা উখিয়া টেকনাফে মরননেশা ইয়াবার সহজলভ্যতার ফলে এ বানিজ্য এখন ছড়িয়ে পড়েছে গ্রামেগঞ্জে।মিয়ানমার সীমান্তবর্তী উপজেলা হওয়ায় টেকনাফ উপজেলা ইয়াবা বানিজ্যের প্রধান শহর হিসেবে পরিচিত পেলেও উখিয়ায় বেশ কয়েকটি সিন্ডিকেটের সাথে টেকনাফ কানেকশন জোরেশোরে আলোচিত হচ্ছে।বিশেষ করে সম্প্রতি পুলিশকে আহত করে পালিয়ে যাওয়া উখিয়ার ইয়াবা গড়ফাদার খোকার টেকনাফ কানেকশন আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে চলে এসেছে।
সুত্র জানায়,গত ২৯ সেপ্টেম্বর বিকালে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ঘুমধুম পুলিশ ফাঁড়ির এসআই এরশাদুল হকের নেতৃত্বে একদল পুলিশ টেকনাফ থেকে ইয়াবা নিয়ে আসার খবর পেয়ে কক্সবাজার-টেকনাফ সড়কের বালুখালী টিভি রিলে কেন্দ্রের সামনে উৎপেতে থাকে। এ সময় একটি অত্যাধুনিক কার গাড়ীকে সিগন্যাল দিয়ে থামান তিনি।কিন্ত কারটি তল্লাসী করতে চাইলে কার চালক উখিয়ার ইয়াবা গড়ফাদার খোকা পুলিশ কনেষ্টেবল সঞ্জয়কে আহত করে দ্রুত পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে।পুলিশ আহত হওয়ার ঘটনাটি উখিয়া থানাকে অবহিত করা হলে উখিয়া ষ্টেশনে ব্যারিকেট সৃষ্টি করে থানা পুলিশ। এরি মধ্যে কার ফেলে পালিয়ে যায় গড়ফাদার খোকা। ঘুমধুম পুলিশ ফাঁড়ি কারটি জব্দ করে পুলিশকে আহত করার ঘটনায় ইয়াবা গড়ফাদার মাহমুদুল করিম খোকা,শফি,বখতিয়ার ও ইসমাইলকে আসামী একটি মামলা দায়ের করে।এ ঘটনার পর উখিয়ার ইয়াবা গড়ফাদারদের সাথে টেকনাফ কানেকশনের বিষয়টি সামনে চলে আসে।জানা য়ায়,সীমান্ত উপজেলা টেকনাফে পুলিশের ত্রুসফায়ারে নিহত স্বরাষ্ট্রমন্ত্রনালয়ের তালিকাভুক্ত ইয়াবা গড়ফাদার নুর মোহাম্মদের বিশ্বস্ত সহচর হিসেবে উখিয়া উপজেলার বালুখালীর বখতিয়ার ও লম্বাঘোনার মাহমুদুল করিম খোকার উত্থান ঘটে। নুর মোহাম্মদ পুলিশের ক্রসফায়ারে নিহত হওয়ার পর বর্তমানে তার ব্যবসার হাল ধরে রয়েছে ছেলে নুরুল আমিন ফাহিম ও হত্যা,ইয়াবা,অস্ত্রলুটসহ ১২ মামলার আসামী ভাই নুরুল হুদা। সম্প্রতি তাদের সাথে পাটনার হিসেবে যুক্ত হয়েছে র‌্যাবের হাতে ৮ হাজার ইয়াবা নিয়ে আটক হওয়া নীলা এলাকার মৃত নুরুল ইসলামের ছেলে বোরহান উদ্দিন।তাদের সাথে মিলে উখিয়া ভিক্তিক ইয়াবা ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে বখতিয়ার,খোকাসহ উখিয়ার বেশ কয়েকটি সিন্ডিকেট।লোকমুখে শোনা যায়,স্বরাষ্ট্রমন্ত্রনালয়ের তালিকাভুক্ত নুর মোহাম্মদের ত্রুসফায়ার ভাগ্য খুলে দিয়েছে বখতিয়ার সিন্ডিকেট ও খোকার।নিহত নুর মোহাম্মদের বদৌলতে বখতিয়ার ও খোকা আজ কোটি কোটি টাকার মালিক।যদিও বখতিয়ার ইয়াবা নিয়ে আটক হয়ে বর্তমানে কারাগারে রয়েছে।কিন্ত থেমে নেই তাদের ইয়াবা বানিজ্য।জেল থেকে বখতিয়ারের দিক নির্দেশনায় ভাই জাহাঙ্গীর ও স্থানীয় এক ইউপি সদস্য বখতিয়ারের অবর্তমানে তাদের অবৈধ বানিজ্য চালিয়ে যাচ্ছে।স্বরাষ্টমন্ত্রনালয়ের তালিকাভুক্ত ক্রসফায়ারে নিহত নুর মোহাম্মদ পরিবারের সাথে দহরম মহরম সম্পর্ক থানায় টেকনাফ থেকে ইয়াবার সরবরাহ খুব ভালো ভাবেই পাচ্ছে বখতিয়ার ও খোকা সিন্ডিকেট।এদিকে ৮ হাজার ইয়াবা নিয়ে আটক নীলার ইয়াবা গড়ফাদার বোরহানের ব্যাপারে জানতে চাইলে স্থানীয় সাবেক মেম্বার জাফর আলম বলেন, সম্প্রতি নীলার ফাহিম ও নুরুল হুদা সিন্ডিকেটর সাথে যুক্ত হওয়া বোরহান একজন চিন্থিত ইয়াবা গড়ফাদার,তার বিরুদ্ধে বেশ কয়েকটি ইয়াবার মামলা রয়েছে থানায়,সামান্য গাড়ীর হেলপার থেকে সে এখন কোটি কোটি টাকার মালিক,তার রয়েছে বেশ কয়েকটি ব্রীক ফিল্ড ,নামে বেনামে রয়েছে কোটি কোটি টাকার সম্পদ। কিন্ত প্রভাবশালীদের সাথে তার ভালো সম্পর্ক থাকায় প্রশাসন ম্যানেজে তার কোন সমস্যা হচ্ছে না।টেকনাফ উপজেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক নুরুল বশর জানান, বিভিন্ন সময়ে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের অবৈধ অস্ত্রের মহড়ায় এলাকার সাধারণ মানুষ আতংকিত হয়ে পড়েছে। ইয়াবা ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে কঠোর হওয়ার জন্য তিনি প্রসাশনের প্রতি আহবান জানান। টেকনাফ মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আব্দুল মজিদ জানান, নুর মোহাম্মদ বন্দুক যুদ্ধে মারা যাওয়ার পরও তার পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা ইয়াবা পাচার ছাড়েনি। তিনি বলেন, তার ভাই নুরুল হুদার বিরুদ্ধে ইয়াবা পাচার, খুন, মানব পাচার ও অস্ত্র লুটসহ প্রায় ১২টি মামলা রয়েছে।ইয়াবার বিরুদ্ধে অভিযান চলমান রয়েছে।সড়ক ও সাগর পথে সমান তালে ইয়াবা পাচার অপ্রতিরোধ্য হওয়ার ঘটনা নিয়ে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে উখিয়া উপজেলা আ’লীগের সভাপতি অধ্যক্ষ হামিদুল হক চৌধুরী জানান, ইয়াবা এখন উখিয়া টেকনাফের অন্যতম বাণিজ্যে পরিণত হয়েছে। যা নিয়ন্ত্রণে আইন প্রয়োগকারী সংস্থার চোখের ঘুম হারাম হয়ে গেলেও পাচার থেমে নেই। উখিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আবুল খায়ের জানান, সড়ক পথে ইয়াবা পাচার প্রতিরোধে পুলিশ তৎপর থাকলেও অতিশীঘ্রই বিশেষ অভিযান শুরু করা হবে। এসময় পালিয়ে থাকা বিভিন্ন মামলার আসামীসহ তালিকাভুক্ত মানবপাচারকারী ও ইয়াবা পাচারকারীদের আইনের আওতায় আনা হবে।

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT