টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!
শিরোনাম :

উখিয়ায় জাতীর জনকের কাঙ্গালী ভোজে বিষ মেশানো মামলা পুনরুজ্জীবিত করার দাবী

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : রবিবার, ৪ আগস্ট, ২০১৩
  • ১৩১ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

এম বশর চৌধুরী, উখিয়া ::::কক্সবাজারের উখিয়ায় জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১৫ই আগষ্ট শোক দিবসের কাঙ্গালী ভোজে বিষ মিশিয়ে গণহত্যা প্রচেষ্টার মামলায় অভিযুক্ত যুবদল ক্যাডাররা এখন আওয়ামীলীগের কতিপয় নেতার ছত্র ছায়ায় থেকে দলের অভ্যন্তরে কোন্দল সৃষ্টি করছে বলে অভিযোগ উঠেছে। শুধু তাই নয়, ওই মামলার প্রধান আসামী আব্দুর রহিম ওরপে হাড্ডি সেলিম উখিয়া ডিগ্রী কলেজে অফিস সহকারী পদে চাকুরী নিতে মরিয়া হয়ে উঠেছে। বিগত বিএনপি সরকারের শাষনামলে চাঞ্চল্যকর এ মামলা রাজনৈতিক মামলা হিসাবে খারিজ করে দিলে যুবদল ক্যাডাররা কৌশলে কতিপয় আওয়ামীলীগ নেতার ছত্র ছায়ায় থেকে নিজেকে দলীয় লোক পরিচয় দিয়ে বিভিন্ন প্রশাসনিক দপ্তরে চাঁদাবাজী, নিরহ লোকজনকে হয়রানী করে আসছে। এমন অভিমত সচেতন মহলের। যার কারণে আওয়ামীলীগের সিনিয়র নেতা কর্মীরা চাঞ্চল্যকর এ মামলা পুনরুজ্জীবিত করার দাবী জানিয়েছেন। জানা যায়, তৎকালীন ৯৮সালের ১৫ আগষ্ট উখিয়া উচ্চ বিদ্যালয় মিলনায়তনে উখিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতা কর্মীরা জাতীর জনক বঙ্গবন্ধ শেখ মুজিবুর রহমানের শাহাদৎ বার্ষিকী উপলক্ষে কাঙ্গালী ভোজের আয়োজন করেন। জাতির জনকের কাঙ্গালী ভোজের এ আয়োজন বানচাল করার জন্য তৎকালীন যুবদল আব্দুর রহিম সেলিম প্রকাশ হাড্ডি সেলিম সহ একদল যুবদল ক্যাডার কাঙ্গালী ভোজের মাংশের ডেক্সিতে বিষ মিশিয়ে গনহত্যার প্রচেষ্টা চালিয়েছিল। চাঞ্চল্যকর এ ঘটনায় তৎসময়ে বর্তমান উখিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নুরুল হুদা বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেছিলেন। যার উখিয়া থানার মামলা নং- ৫, তারিখ- ১৫/৮/৯৮ইং, ধারা- ৪৪৮/২৭০/৩২৮/৩০৭/৪২৭/৩৪ দঃবিঃ। অভিযোগ পত্র নং- ৬৮, তাং- ১৩/০৯/৯৮ইং। উক্ত মামলাটি সারা দেশে আলোচনা সমালোচনার ঝড় উঠেছিল। তৎসময়ে যুবদল ক্যাডার আব্দুর রহিম সেলিম প্রকাশ হাড্ডি সেলিম সহ ঘটনার সাথে জড়িতরা পুলিশের হাতে গ্রেফ্তার হয়ে দীর্ঘ দিন কারাভোগ করেছিলেন। পরবর্তীতে বিএনপি-জামায়াত জোট সরকার ক্ষমতায় আসার পর বহুল আলোচিত মামলাটি আদালত খারিজ করে দিলে যুবদল ক্যাডাররা মামলার দায় থেকে অব্যহতি পায়। উখিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের বর্তমান সাংগঠনিক সম্পাদক নুরুল হুদা চাঞ্চল্যকর জাতীর জনক বঙ্গবন্ধুর কাঙ্গালী ভোজে বিষ মিশয়ে গণহত্যা মামলাটি পূনরুজ্জীবিত করার দাবি জানিয়েছেন। যারা ১৯৯৮ সালে ১৫ই আগষ্ট এর শোক দিবসের কাঙ্গালী ভোজের ডেক্সিতে বিষ ডেলে দিয়ে মানুষ হত্যার চেষ্টা করেছিল এই আলোচিত মামলাটি পূনরুজ্জীবিত করে দোষীদের শাস্তি প্রদান করা এখন সমযের দাবী। তিনি আরও জানান, বিএনপি জামাত জোট সরকারের শাষনামলে চাঞ্চল্যকর এ মামলা খারিজ হওয়ার পর তিনি বর্তমান প্রধান মন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা সহ দলের সিনিয়র কেন্দ্রীয় নেতার বরাবর লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছিলেন। তৎসময়ে বর্তমান প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা আলোচিত এ মামলা পুনরুজ্জীবিত করার দাবী জানিয়ে দেশে বিদেশের বিভিন্ন সভায় দাবী জানিয়েছিলেন। মামলাটি পূণরুজ্জীবিত করার ব্যাপারে উখিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি অধ্যাপক আদিল উদ্দিন চৌধুরী বলেন, এব্যাপারে রাষ্ট্র পক্ষের মামলা পরিচালনাকারী (পি.পি) কক্সবাজার জেলার আইনজীবি এডভোকেট মমতাজ আহমদকে গুরুত্বপূর্ণ কাগজ পত্র তল্লাশি করে ওই মামলাটি পূণরুজ্জীবিত করার জন্য জানানো হয়েছে। ওই সময় উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ হামিদুল হক চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন। উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্নসম্পাদক শাহজাহান সিকদার বলেন, উখিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রাঙ্গনে আওয়ামীলীগের উদ্যোগে আয়োজিত শোক দিবসের কাঙ্গালী ভোজে বিষ মিমিয়ে শত শত মানুষকে হত্যার প্রচেষ্টা করেছিল তাই ওই মামলাটি পূণরুজ্জীবিত করা হউক। জেলা আওয়ামীলীগের অনেক সিনিয়র নেতা মামলাটি পূণরুজ্জীবিত করে দোষীদের শাস্তি দেওয়ার দাবী জানান।

মরিচ্যায় ইয়াবা ব্যবসা নিয়ন্ত্রণ করছে চোরাকারবারী ইসলাম
এম বশর চৌধুরী, উখিয়া                                                              তারিখ- ০৩/৮/২০১৩ইং।
উখিয়ার মরিচ্যায় ইয়াবা ব্যবসা সহ অপরাধ জনক ব্যবসা নিয়ন্ত্রণ করছে চোরাকারবারী নুরুল ইসলাম (৩০)। শুধু তাই নয়, উক্ত চোরাকারবারী সুযোগবুঝে ছিনতাই ডাকাতি সহ নানা অপরাধ জনক কাজ করে থাকে। পুলিশ ও আইন প্রয়োগকারী সংস্থার লোকজনের ধরাছোয়ার বাইরে থাকা এ সন্ত্রাসী আসন্ন ঈদ মৌসুমকে সামনে রেখে ঘাপটি মেরে বসে আছে। সুযোগ বুঝে ছিনতাই ও ডাকাতি সংঘটিত করার আশংকা করছেন এলাকাবাসী।
অভিযোগে প্রকাশ, পাগলিরবিল গ্রামের অছিয়র রহমানের ছেলে নুরুল ইসলাম (৩০) দীর্ঘ দিন ধরে ছিনতাই, ডাকাতি সহ নানা অপরাধ জনক কাজ করে আসছে। উক্ত সন্ত্রাসী ২০০২ সালে চট্টগ্রামস্থ বাংলাদেশ ব্যাংকের সামনে এক ব্যবসায়ীর নিকট থেকে  ৫লাখ টাকা ছিনতাইকালে র‌্যাবের হাতে আটক হয়েছিলাম। এ ঘটনায় চট্টগ্রামের কোতয়ালী থানায় মামলা হয়েছিল। উক্ত মামলায় তার সহযোগী মোঃ আলমগীর সহ  ২ বছর ১মাস সাজা ভোগের পর মুক্ত হয়। জানা যায়, গত ২৫ জুলাই হিমছড়ি ফাড়ির পুলিশ চোরাকারবারী নুরুল ইসলামকে চোরাইপন্য সহ আটক করে পরে ছেড়ে দেয়। গত ২ আগষ্ট মরিচ্যা বাজারে লক্ষাধিক টাকার চোরাইপন্য সহ পুনরায় আইন প্রয়োগকারী সংস্থার হাতে আটক হলেও কৌশলে ছাড়া পায়। পূর্ব মরিচ্যা গ্রামের হাকিম আলীর ছেলে মোহাম্মদ শরিফ (৩০) জানান, চোরাবারবারী নুরুল ইসলাম দীর্ঘ দিন ধরে ইয়াবা ট্যাবলেট সহ চোরাই মালামালের ব্যবসা করে আসছে। এ ঘটনা স্থানীয় ভাবে প্রকাশ হলে তাকে এবং আলমগীর নামে এক ব্যবসায়ীকে জড়িয়ে দৈনন্দিন পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশ করে আসল ঘটনা ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার চেষ্টা করে। স্থানীয়রা জানিয়েছেন, চোরাকারবারী নুরুল ইসলামকে গ্রেপ্তার করলে ইয়াবা ট্যাবলেট ও চোরাইপন্য আদান প্রদানের চাঞ্চল্যকর তথ্য পাওয়া যাবে। খোজ নিয়ে জানা যায়, বিজিবি সদস্যরা কয়েকবার ইসলামের বাড়ীতে হানা দিয়েছিল। কিন্তু কৌশলে চোরাইপন্য সহ পালিয়ে যাওয়ায় আটক করতে পারেনি।
উখিয়ায় কাঠমিস্ত্রি অপহরণ, এলাকায় উত্তেজনা
এম বশর চৌধুরী, উখিয়া                                                              তারিখ- ০৩/৮/২০১৩ইং।
উখিয়ার সিকদারবিলে কাঠমিস্ত্রি নাছির উদ্দিন (১৮) অপহরণ ঘটনায় এলাকায় তোলপাড় চলছে। কাজ শেষে বাড়ী ফেরার পথে গত ১ আগষ্ট রাত ১০ টায় সিকদারবিল কবরস্থানের পার্শ্বে পৌছলে জমি সংক্রান্ত বিরোধকে কেন্দ্র করে সন্ত্রাসীরা পূর্ব পরিকল্পিতভাবে তাকে হত্যার উদ্দেশ্যে অপহরণ করে মারধর করে। পরে এলাকার লোকজন এগিয়ে এসে কাঠমিস্ত্রি নাছির উদ্দিনকে উদ্ধার করে মুমুর্ষ অবস্থায় উখিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। এ ঘটনায় অপহ্নতার পিতা আব্দুস  ছালাম বাদী হয়ে থানায় অভিযোগ করেছেন। অভিযোগে প্রকাশ, সিকদারবিল গ্রামের  মৃত ডাক্তার মুফিজুর রহমানের ছেলে ডাঃ শাহ আলম, শামশুল আলম, ছুরত আলম দীর্ঘ দিন ধরে একই গ্রামের মৃত মতিউর রহমানের ছেলে আব্দুস ছালাম গংয়ের পৈত্রিক ওয়ারিশী কিছু জমি জোর পূর্বক জবর দখল করার পায়তারা করে আসছে। এ ঘটনায় আব্দুুস ছালামের ভাতিজা কামাল হোসেন ভুমি দস্যু সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা করে। উক্ত বিরোধের জের ধরে গত ১ আগষ্ট কাঠ মিস্ত্রি নাছির উদ্দিন (১৮) তার সহপাঠি নুর মোহাম্মদ (২০) ও ছৈয়দুল আমিনের সাথে বাড়ী ফেরার পথে ডাঃ শাহ আলম, শামশুল আলম, ছুরত আলম, মোঃ মুছা (২৫), মোঃ রুবেল (২৭) সহ একদল সন্ত্রাসী হত্যার উদ্দেশ্যে কাঠ মিস্ত্রি নাছির উদ্দিনকে অপহরণ করে মারধর করে। বর্তমানে এ ঘটনা নিয়ে এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। স্থানীয়রা জানিয়েছেন, ভুমি দস্যু ডাঃ শাহ আলম ও ছুরত আলম দীর্ঘ দিন ধরে নিরহ অসহায় লোকজনের জমি কেড়ে নেওয়ার পায়তারা করে আসছে। তাদের এসব অপকর্মের প্রতিবাদ করলে মিথ্যা মামলায় জড়াইয়া হয়রানী করে থাকে।

পাগলির বিল সড়ক সংস্কার হলে
উখিয়া ও নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার মানুষের কৃষি ও ব্যবসা বাণিজ্যে পূর্ব দিকের দুয়ার খুলে যাবে
এম বশর চৌধুরী, উখিয়া                                                              তারিখ- ০৩/৮/২০১৩ইং।
উখিয়ার মরিচ্যা পাগলিরবিল সড়ক এখন মরণ ফাঁদে পরিনত হয়েছে। দীর্ঘ দিন ধরে এ সড়কটি সংস্কার না হওয়ায় লক্ষাধিক মানুষের দূর্ভোগ চরম আকার ধারন করেছে। জন গুরুত্বপূর্ণ এ সড়কটি সংস্কার করা হলে উখিয়ার সাথে নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার সরাসরি সড়ক যোগাযোগ পথ সুগম হবে। আর এটি বাস্তবায়ন হলে কৃষি, শিক্ষা, বনায়নের অভুত পূর্ব উন্নয়ন সহ ব্যবসা বানিজ্যে পূর্ব দিকের দুয়ার খুলে যাবে। এমন অভিমত সচেতন মহলের।
উখিয়া উপজেলার মরিচ্যা বাজার থেকে নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার চূল্ল¬া পাড়া পর্যন্ত অনুমান ১২ কিলোমিটার দৈর্ঘ্য পাগলির বিল সড়কের কার্পেটিং করার জন্য দুই উপজেলার মানুষের দীর্ঘ দিনের প্রাণের দাবী ছিল। এলাকার বিশাল জন গোষ্টির দাবীর প্রেক্ষিতে ৮০ দশকে শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানে শাসনামলে তৎকালীন উখিয়া টেকনাফ আসনের বিএনপি দলীয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব শাহ জাহান চৌধুরী মরিচ্যা বাজার থেকে উত্তর বড়বিল পর্যন্ত ৭ কিলোমিটার রাস্তার মাটি ভরাট কাজ সম্পন্ন করে জনসাধারন চলাচলের উপযোগী করে তুলেন। পরবর্তীতে ১৯৯১ সালে তিনি পুনরায় সংসদ সংসদ সদস্য নির্বাচিত হলে মাটির রাস্তাকে ব্রিক সলিংএ উন্নীত করেন। সাবেক উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মোহামদুল হক চৌধুরী পাগলির বিল খালে লম্বা ব্রিজ নির্মান করে যোগাযোগের পথ কিছুটা সুগম করে। হলদিয়া পালং ইউপির সাবেক ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান আমিনুল আমিন জানান, হলদিয়া পালং ইউনিয়নের মরিচ্যা কাঠালিয়া, হালুকিয়া, দক্ষিন পাগলিরবিল, সিকদার পাড়া, বত্তাতলী, লেঙ্গুরবিল, উত্তর বড়বিল, বড়–য়া পাড়া, তুলাতলী পাড়া, নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার রিফিউজি পাড়া, চুল¬া পাড়া, ক্যংপাড়া, মানিঙ্গা পাড়া, বিজিবি ক্যং সহ অন্তত ২০ গ্রামের মানুষের যোগাযোগের একমাত্র মাধ্যম মরিচ্যা পগলিরবিল সড়ক। তিনি জানান, এলাকার উন্নয়নের স্বার্থে অচিরেই মরিচ্যা পাগলির বিল সড়ক সংস্কারের দাবী জানান। এলাকাবাসী জানান, মরিচ্যা পাগলির বিল সড়ক সংস্কারের জন্য ক্ষমতাসীন দলের উখিয়া টেকনাফ আসনের সংসদ সদস্য আব্দুর রহমান বদি সহ বিভিন্ন দপ্তরে একাধিক অভিযোগ করেও এখনো উক্ত রাস্তার ২টি ব্রিজ ও কার্পেটিং এ উন্নীত করা হয়নি। সরেজমিন ঘুরে দেখা গেছে, হলদিয়া পালং ইউনিয়নের ৮০ শতাংশ মানুষ, কৃষির উপর নির্ভরশীল, যোগাযোগ ব্যবস্থা অনুন্নত থাকায় পরিবহন সমস্যার কারনে কৃষকরা উৎপাদিত ফসল যথা সময়ে বাজারজাত করতে না পেরে উৎপাদনে অনাগ্রহী হয়ে উঠেছে।

এম বশর চৌধুরী
উখিয়া, কক্সবাজার।
মোবাইল- ০১৮২৬-১৪১৪০৪।
ই-মেইল- রষড়াবঁশযরুধ@মসধরষ.পড়স

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT