টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!

উখিয়া-টেকনাফের জনগণের হৃদয়চিত্তে যার…

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : বুধবার, ১২ জুন, ২০১৩
  • ৩১৮ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

teknafnews.comটেকনাফ নিউজ ডেস্ক….উখিয়া-টেকনাফের উন্নয়নের কান্ডারী দৃষ্টান্তের মাইলফলক হয়ে জনগণের হৃদয়চিত্তে যার অবয়ব বিরাজ করছে তিনি হচ্ছেন গণমানুষের প্রিয় নেতা এ আসন থেকে নির্বাচিত এমপি আবদুর রহমান বদি।মহাজোট সরকারের সাড়ে ৪ বছরে উখিয়া-টেকনাফ সংসদীয় আসন জুড়ে ব্যাপক উন্নয়ন কর্মকান্ড সাধিত হওয়ার ফলে জনগণের আস্থা সরকারের উপর বহুগুণ বেড়েছে। বলতে গেলে উখিয়া-টেকনাফের উন্নয়ন এখন মহা সড়কে হাঁটছে।  বিগত জাতীয় নির্বাচনে বিরোধী শিবিরের জানো রাজনৈতিক খেলোয়াড় হিসেবে পরিচিত সাবেক এমপি শাহ জাহান চৌধুরীকে বিপুল ভোটে পরাজিত করে এমপি নির্বাচিত হয় আবদুর রহমান বদি। এরপর এই জনপ্রিয় সাংসদের সংস্পর্শে এসে জনগণ আশাতীত উন্নয়ন ও সাফল্য লাভ করেছে। নির্বাচনী অঙ্গীকার বাস্তবায়নে তিনি ছিলেন এক আপোষহীন সংগ্রামী নেতা। গণমানুষের কল্যাণে কাজ করতে গিয়ে দানবীর এই সাংসদকে দলীয় নেতাকর্মী, ঘনিষ্ট আত্মীয়-স্বজন ও বিভিন্ন শ্রেণীর মানুষের কাছে তাকে বিরাগভাজন হতে হয়েছে। তারপরও তিনি এসবের পিছু তাকাননি। দু’হাতে অকাতরে দান করে গেছেন গরীব অসহায় মানুষকে। উখিয়া-টেকনাফের ৭৫ হাজার অসহায় দুস্থ মানুষের মাঝে তিনি ব্যক্তিগত উদ্যোগে ১০ কেজি করে চাল বিতরণ করে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন। কারন এই ৭৫ হাজার অসহায় মানুষের সহায় হন এমপি বদি। তিনি নির্বাচনী অঙ্গীকার বাস্তবায়নে ইতিমধ্যে বিভিন্ন উন্নয়নমূলক প্রকল্পের কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে। ইতিপূর্বে গ্রামীণ অবকাঠামো উন্নয়ন ও সংস্কার কাজে উখিয়া উপজেলার ৫টি ইউনিয়নের ৮৮৭ টি প্রকল্পের অনুকূলে ২৪৬৫ মেট্রিক টন খাদ্য শষ্য বরাদ্ধ দেওয়া হয়। যা ইতিপূর্বে মাঠ পর্যায়ে সমাপ্ত করা হয়েছে। এ ছাড়াও সাংসদের বিশেষ বরাদ্ধ প্রাপ্ত কাবিটা/টিয়ারের অনুকূলে ১০৫টি প্রকল্পের কাজ সম্পন্ন হয়েছে। যা উখিয়া-টেকনাফের গ্রামীন অবকাঠামো উন্নয়নে ব্যাপক ছাড়া জাগিয়েছে এমপি বদি। এ ছাড়াও তিনি অসংখ্য মসজিদ, মাদ্রাসা, স্কুল, কলেজ, গির্জা-মন্দির, রাস্তা, ঘাট, ফায়ার সার্ভিস ষ্টেশন স্থাপন, নতুন থানা ভবন নির্মাণ, নতুন ইউপি ভবন নির্মাণ, ৩০ শয্যার হাসপাতালকে ৫০ শয্যায় উন্নীতকরণ, নতুন ৭টি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা, নতুন কলেজ ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলার ক্ষেত্রে তিনি এক অনবদ্য কিংবদন্তি। উখিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক জাঁদরেল রাজনীতিবিদ অধ্যক্ষ হামিদুল হক চৌধুরী বলেন, শেখ হাসিনা সরকারের অভুতপূর্ব সাফল্যের ছোঁয়ায় উন্নয়ন এখন মহাসড়কে। সংসদ সদস্য আবদুর রহমান বদির একান্ত প্রচেষ্টা ও আন্তরিকতার সহিত দেশ প্রেমের পরিচয় দিয়ে এলাকার উন্নয়ন কর্মকান্ড সাধিত করেছেন। অবশিষ্ট নির্বাচনী অঙ্গীকার দ্রুত সম্পন্ন করবেন বলে তিনি জানান। শিক্ষা আলো জ্বালাতে তিনি প্রথমেই দূর্যোগ কবলিত উপকূলকেই বেছে নিয়েছেন। তাঁর নির্বাচনী প্রতিশ্র“তি বাস্তবায়নে ইতিমধ্যেই শুরু হয়েছে উখিয়ায় (স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর) এলজিইডির অধীনে ৫টি ইউনিয়ন প্রায় ১৫ কোটি টাকা ব্যয়ে উন্নয়ন প্রকল্পের কাজ সমাপ্তি হওয়ার পথে। এসব প্রকল্প গুলোর মধ্যে রয়েছে সড়কের কার্পেটিং, ব্রীজ নির্মাণ, এইচবিবি ও স্কুল নির্মাণ। উপজেলা প্রকৌশলী মোঃ জামাল উদ্দিনৎ  জানান, প্রকল্পগুলোর কাজ শেষ হলে উখিয়ার উপজেলা সদর ও অভ্যন্তরীণ সড়ক যোগাযোগ অর্ভূতপূর্ব উন্নয়ন সহ আত্মসামাজিক উন্নয়নে বিশাল অবদান রাখতে সক্ষম হবে। বিশেষ করে ৮ কোটি টাকা ব্যয়ে হিমছড়ি খালের ও পূর্ব ডিগলিয়া পালং খালের রাবার ড্যাম নির্মাণ কাজ সম্পন্ন হলে এলাকায় কৃষি ক্ষেত্রে বিপ্লব সহএতে কৃষক সমাজ উপকৃত হবে।

উখিয়া এলজিইডি অফিস সূত্রে জানা যায়, ২০১২-১৩ অর্থবছরে ১৪টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নির্মাণ কাজ প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। তৎমধ্যে ১ কোটি ৮০ লাখ টাকা ব্যয়ে ৪টি বিদ্যালয়ের নির্মাণ কাজ শেষ পর্যায়ে রয়েছে। বিদ্যালয়গুলো হচ্ছে ফলিয়া পাড়ায় নুরুল ইসলাম চৌধুরী প্রাথমিক বিদ্যালয়, বড়–য়া পাড়ায় অরবিন্দু বড়–য়া প্রাথমিক বিদ্যালয় ও হলদিয়াপালংয়ে ছালে-বুবুল চৌধুরী প্রাথমিক বিদ্যালয় ও তুতুরবিল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যলয়। এছাড়াও ৪০ লাখ টাকা ইনানী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও পাগলির বিল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নির্মাণ কাজ শেষ হওয়ার পথে। ৯ কোটি টাকা ব্যয়ে ১৫টি সড়কের উন্নয়ন কাজ দ্রুতগতিতে এগিয়ে চলছে। নিমার্ণাধীন কার্পেটিং সড়কগুলো হচ্ছে ৩০ লক্ষ টাকা ব্যয়ে সাবেক রুমখাঁ প্রাথমিক বিদ্যালয় সড়ক, ১৭ লক্ষ টাকা ব্যয়ে ধুরুমখালী বউবাজার সড়ক, ৩০ লক্ষ টাকা ব্যয়ে রতœাপালং ইউপি অফিস সংলগ্ন সড়ক, ৪৩ লক্ষ টাকা ব্যয়ে থাইংখালী তেলখোলা সড়ক, ১৭ লক্ষ টাকা ব্যয়ে রুমখাঁ ইসলামিয়া মাদ্রাসা সড়ক, ৪৩ লক্ষ টাকা ব্যয়ে থাইংখালী রহমতের বিল সড়ক, ৪৪ লক্ষ টাকা ব্যয়ে উত্তর পুকুরিয়া সড়ক, ৩২ লক্ষ টাকা ব্যয়ে চাকবৈঠা গয়ালমারা সড়ক, ২২ লক্ষ টাকা ব্যয়ে রাজাপালং মাদ্রাসা সড়ক, ৩১ লক্ষ টাকা ব্যয়ে কাশিয়ারবিল সড়ক, ৪৫ লক্ষ টাকা ব্যয়ে দৌছড়ি সড়ক, ৬২ লক্ষ টাকা ব্যয়ে পালংখালী আঞ্জুমান সড়ক, ৫৫ লক্ষ টাকা ব্যয়ে গয়ালমারা আমতলী সড়ক। বর্তমানে এসব চলমান নির্মাণাধীন সড়কগুলোর কাজ প্রায় ৭০ ভাগ শেষ হয়েছে। অবশিষ্ট কাজ আগামী ১/২ মাসের মধ্যে সমাপ্ত হবে বলে উপজেলা প্রকৌশলী মোঃ জামাল উদ্দিন জানিয়েছেন। তিনি বলেন চলমান ২০ কিলোমিটার সড়ক ও প্রস্তাবিত অন্যান্য সড়কগুলোর উন্নয়ন কাজ শুরু হলে উখিয়ায় যোগাযোগ ক্ষেত্রে আর কোন সমস্যা থাকবে না। এছাড়াও ১ কোটি ২ লাখ টাকা ব্যয়ে পাতাবাড়ী খালের উপর ব্রীজের নির্মাণ কাজ শেষ হয়েছে। এ ছাড়াও ২৬ লক্ষ টাকা ব্যয়ে কোটবাজার-ভালুকিয়া সড়কের অবশিষ্ট কার্পেটিং কাজ ইতিমধ্যে সমাপ্ত হয়েছে। ২৮ লাখ টাকা ব্যয়ে উখিয়ার দারগাহ বাজার গ্রোথ সেন্টার উন্নয়ন কাজ দ্রুতগতিতে এগিয়ে চলছে। রাজস্ব আয়ের খাত থেকে এডিবি কমসূচীর আওতায় ৬০ লক্ষ টাকা ব্যয়ে ৫৮টি প্রকল্পের বাস্তবায়ন কাজ শেষ হয়েছে। এ প্রসঙ্গে উখিয়া-টেকনাফের সংসদ সদস্য আবদুর রহমান বদির দৃষ্টি আর্কষণ করা হলে তিনি বাঁকখালীকে বলেন, এলাকা উন্নয়নে সবসময় বৈষম্য পরিহার করেছি। গণমানুষের চাওয়া পাওয়াকে বেশি প্রধান্য দেওয়া হয়েছে। এ ছাড়াও উখিয়া-টেকনাফে মাষ্টার প্ল্যানের ভিত্তিতে উন্নয়ন কাজ করা হচ্ছে। আগামীতে জনগণ সুযোগ দিলে তাদের ভাগ্য উন্ন্য়নে কাজ করে যাবেন বলেও তিনি জানান। এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে উখিয়া উপজেলা প্রকৌশলী মোঃ জামাল উদ্দিন জানান, প্রায় ৮ কোটি টাকা ব্যয়ে ভালুকিয়া থিমছড়ি খাল ও রাজাপালংয়ের পূর্ব ডিগলিয়া খালের ২টি রবার ড্যাম নির্মাণ কাজ শুরুর পর্যাযে রয়েছে। প্রকল্প শেষ হলে প্রায় ১২শ হেক্টর জমি চাষাবাদের আওতায় আসবে। পাশাপাশি কৃষককুল তাদের ভাগ্য উন্নয়নের পাশাপাশি সমিতির মাধ্যমে সঞ্চয় বৃদ্ধি সহ আত্মসামাজিক উন্নয়নে অংশীদার হবে। এছাড়াও রাজাপালংয়ের হিজলিয়া-হরিণমারা খালে ও পালংখালী খালে রবার ড্যাম এবং হাতিমোরা খালের উপর ১টি ব্রীজের নির্মাণ প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। তিনি আরও বলেন, ২০১৩-১৪ অর্থবছরে প্রায় ৮ কোটি টাকা ব্যয়ে আরও ১০ টি সড়কের উন্নয়ন কাজ শীঘ্রই শুরু হবে। বিশেষ করে ৫ কোটি টাকা ব্যয়ে পর্যটকদের সুবিধার স্বার্থে উপকূলীয় সড়ক কোটবাজার-সোনারপাড়া-ইনানী- মনখালী-শাপলাপুর সড়ক আইডিয়াল প্রকল্পের আওতায় উন্নয়ন কাজ এগিয়ে চলছে। এছাড়াও ৭০ লাখ টাকা ব্যয়ে রতœাপালং ইউনিয়ন পরিষদ কমপ্লেক্স ভবনের নির্মাণ দ্রুত শুরু করার নিদের্শ পাওয়া গেছে। এর পর পালংখালী ইউনিয়ন পরিষদ কমপ্লেক্স ভবন নির্মাণ কাজও শুরু করা প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। উপজেলা প্রকৌশলী জানান, উখিয়ার সড়ক যোগাযোগ উন্নয়নে তিনি স্বচ্ছ ও জবাবদিহিতার মাধ্যমে অক্লান্ত কাজ করে যাচ্ছেন। অবহেলিত এলাকার উন্নয়নের জন্য অগ্রাধিকার ভিত্তিতে প্রকল্প গ্রহণ করে তা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট প্রেরণ করা হয়েছে বলে উপজেলা প্রকৌশলী মোঃ জামাল উদ্দিন জানিয়েছেন।

– See more at: http://ukhiyanews.com/?p=15079#sthash.3M3L6mfY.dpuf

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT