টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!

ঈদগাঁওতে কালো বৈশাখী ঝড়ে নিহত-১

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : সোমবার, ৬ মে, ২০১৩
  • ১০৮ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

মোঃ রেজাউল করিম, ঈদগাঁও, কক্সবাজার= আকষ্মিক কালো বৈশাখী ও টানা কয়েক ঘন্টা প্রবল বৃষ্টিপাতে ঈদগাঁও ও সংলগ্ন এলাকার জন জীবনে নেমে এসেছে চরম স্থবিরতা। ইসলামাবাদ খোদাইবাড়িতে বসতবাড়ীর টিন পড়ে নিহত হয়েছে এক কিশোর। চট্টগ্রা কক্সবাজার মহাসড়কে ইসলামুর নতুন অফিসে গাছ পড়ে কয়েক ঘন্টা যান চলাচল বন্ধ থাকে। তীব্র বাতাস ও  দমকা হাওয়ায় বিভিন্ন এলাকার শত শত কাঁচা ও আদা পাকা ঘর বাড়ির আংশিক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। শত শত গাছপালা ভেঙ্গে বা উপড়ে গেছে। বিভিন্ন স্থানে বৈদ্যুতিক খুঁটি ভেঙ্গে গিয়ে ও তার ছিড়ে গেছে। এতে বিকেল থেকে রাতে এ রিপোর্ট লিখা পর্যন্ত বৃহত্তর এলাকায় পল্লি বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ ছিল। কালো বৈশাখী ও বৃষ্টিপাত শুরু হওয়ার পর থেকে বাজারে রাস্তা ঘাটে লোক ও যান চলাচল বন্ধ হয়ে পড়ে। দূরগন্থব্যের যাত্রীদের পোহাতে হয় নানা দূর্ভোগ। অভ্যন্তরীন সড়ক ও উপসড়ক গুলোতে গাছ পড়ে যোগাযোগ ব্যবস্থা আংশিক বন্ধ হয়ে যায়। প্রচন্ড বাতাসের তুড়ে উপকূলীয় চৌফলদন্ডী ওয়াফদা পাড়া, রাখাইন পাড়া, গোমাতলীর বারডইল্লা পাড়া, ঈদগাঁওর ভুতিয়ার পাড়া, ভাদীতলা, মেহেরঘোনা সহ বিভিন্ন স্থানে বাড়ি ঘরের প্রচুর ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট এলাকার ভূক্তভোগিরা। চৌফলদন্ডী নতুন মহালের এমইউপি জয়নাল আবেদীন মেম্বার জানান, প্রচন্ড বাতাসে তার এলাকায় গাছ পালার ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি ঘটেছে। ভারুয়াখালীর চেয়ারম্যান ডা. আবুল কাসেম জানান, কাল বৈশাখী ঝড়ে তার ইউনিয়নের প্রত্যন্ত এলাকার বসতবাড়ী ও গাছগাছালির ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। তবে আহত বা নিহতের কোন ক্ষয়ক্ষতি হয়নি। শ্রমিকদল আহবায়ক আবু তাহের মুন্না জানান, প্রচন্ড বাতাসে টিন পড়ে বাসষ্টেশনে মুরশেদুর রহমান শাকিব নামের এক স্কুল ছাত্র গুরুতর আহত হলে হাসপাতালে নেয়ার পর কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করেন। নিহত শাকিব ইসলামাবাদ ইউনিয়ন বিএনপি সভাপতি শহিদুর রহমান শহিদের বড় ছেলে। ভোমরিয়াঘোনার মেম্বার আব্দুল হাকিম জানান, প্রচুর গাছ পড়ে ঈদগাঁও ঈদগড় সড়কে যান চলাচল ব্যাহত হয়। কালিরছড়ায় প্রচন্ড বাতাসে বসত বাড়িতে গাছ ভেঙ্গে পড়ে বহু ঘরবাড়ির ক্ষয়ক্ষতি হয় বলে জানান মেম্বার ছফুর আলম। মাছুয়াখালীর মেম্বার কেফায়েত উল্লাহ কেফা জানান, তার এলাকায় প্রচন্ড বাতাসে প্রায় ৩০/৩৫ টি বাড়িতে গাছ পড়ে ক্ষয়ক্ষতি হয়। ভাদীতলায় দুয়েকজন আহত সহ ৫০/৬০টি ঘরবাড়ি ক্ষয়ক্ষতি হয় বলে জানান দফাদার নুর মোহাম্মদ। চান্দেরঘোনা, সাতঘরিয়া, বৃহত্তর মেহেরঘোনায় প্রায় ৪০ টি ঘরবাড়ি ক্ষয়ক্ষতি সহ ৪/৫ জন আহত হয় বলে জানান মেম্বার সেলিম উল্লাহ সিরাজী।  ইসলামপুর চেয়ারম্যান মাস্টার আব্দুল কাদের কক্সবাজারে অবস্থান করায় তার এলাকার ক্ষয়ক্ষতির কোন খবর পান নি বলে জানান। পল্লি বিদ্যুতের ঈদগাঁও এরিয়া বিলিং অফিস ইনচার্জ মোঃ রুবেল জানান, বাতাসে ট্রান্সফর্মার সহ ৪টি বৈদ্যুতিক খুঁটি ভেঙ্গে যায়, বিদ্যুৎ লাইনের ব্যপক ক্ষয়ক্ষতি ঘটে। ইসলামপুর, ভারুয়াখালী, খানঘোনা, ও পাহাশিয়াখালীতে পল্লি বিদ্যুৎ স্থাপনার ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি ঘটে। বিদ্যুৎ সরবরাহ পরিস্তিতির উন্নয়নের একসপ্তাহ সময় লাগতে পারে বলে জানান তিনি।

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT