টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!

ইসলামপুরে বন্দুক যুদ্ধের ঘটনায় গ্রেফতারকৃত ডাকাতের বিরুদ্ধে ভূঁয়া পরিচয়ে ডাকাতি ও অস্ত্র আইনে মামলা দায়ের !

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ২০ জুন, ২০১৩
  • ১৩৩ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

আনোয়ার হোছাইন, ঈদগাঁও= Teknaf Picকক্সবাজার সদরের ইসলামপুর ইউনিয়নের ডুলাফকির মাজার সংলগ্ন বামন কাটা এলাকায় ১৯ জুন গভীর রাতে পুলিশ-ডাকাত বন্দুক যুদ্ধের ঘটনায় গ্রেফতারকৃত গুলিবিদ্ধ ডাকাতের আসল পরিচয় সংবাদ প্রকাশের জেরে পর দিনই ফাঁস হয়ে গেছে। ঘটনার দিন গ্রেফতারকৃতের দেয়া, তারেক -পিতা- আবুল হোসেন,সাং- মংডু,মায়ানমার,বর্তমান রামু উপজেলার জোয়ারিয়ানালা পরিচয়ে ঘটনার দিন বিকালেই কক্সবাজার মডেল থানায় ঈদগাঁও পুলিশ তদন্ত কেন্দের এসআই নাছির উদ্দিন বাদী হয়ে ডাকাতির প্রস্তুতি ও অস্ত্র আইনে পৃথক ২টি মামলা দায়ের করেন। যাতে তাকে সহ ৩৩ জনকে এজাহার নামীয় আসামী করা হয়। পরদিন স্থানীয় বিভিন্ন পত্রিকায় বন্দুক যুদ্ধের ঘটনা সংক্রান্ত সংবাদ গ্রেফতার হওয়া ডাকাতের ছবিসহ প্রকাশিত হলে বেরিয়ে পড়ে উক্ত ডাকাতের আসল পরিচয়। আটক হওয়া ব্যক্তির প্রতিবেশি সুত্রে জানা যায়, তারা পত্রিকা পড়ে এবং ছবি দেখে তাতে যে পরিচয় দেয়া হয়েছে তা মিলাতে পারছিলেননা। পরে নিশ্চিত হন উক্ত ডাকাত তার প্রকৃত নাম আজিজুল হক (২৮) প্রকাশ কালাওয়া, পিতা-মৃত আবুল খায়ের, সাং-উল্টাখালী, রশিদনগর, রামু। গোপন রেখে আইনের ফাঁক ফোকর দিয়ে জেল থেকে বেরিয়ে আসা জন্য ভূয়া পরিচয় দিয়ে এ প্রতারণার আশ্রয় নিয়েছে। কারণ ইতিপূর্বে তার বিরুদ্ধে ডাকাতিসহ আরো অর্ধডজনাধিক মামলা রয়েছে রামু থানাসহ বিভিন্ন স্থানে। কয়েক বছর পূর্বে সে সৌদি আরবে পালিয়ে গিয়েছিল। সম্প্রতি গোপনে দেশে ফিরে আবারও অপরাধ কার্যক্রমে জড়িয়ে পড়ে। এ বিষয়ে মামলার তদন্তের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ঈদগাঁও পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ এসআই মনজুরুল কাদের ভূঁইয়ার সাথে যোগাযোগ করা হলে জানান, পত্রিকায় ছবি সহ সংবাদ প্রকাশের পর ধৃতের এলাকার বিভিন্ন লোকজন ও ওয়ার্ড মেম্বার ইকবালুর রশিদের মাধ্যমে নিশ্চিত হন ধৃত ডাকাতের বিরুদ্ধে যে পরিচয়ে মামলা দায়ের করা হয়েছে তা তার প্রকৃত পরিচয় নয়। প্রকৃত পক্ষে একজন পেশাদার অপরাধীই পারে ঠান্ডা মাথায় এ জাতীয় ভূঁয়া পরিচয় দিয়ে স্বাভাবিক থাকতে। উক্ত ভূঁয়া পরিচয়ে মামলা রেকর্ড ভুক্তির বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি এনিয়ে প্রয়োজনীয় আইনী ব্যবস্থা নিতে তেমন সমস্যা হবে না বলে জানান। আটক ডাকাতের ভূঁয়া পরিচয় ও ওই নামে মামলার সংবাদ এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে  লোকজনদের এ অপরাধীকে নিয়ে নানা নীতিবাক্য বলতে শুনা যায়। সাধারণ লোকজনের অভিমত তদন্তকারী কর্মকর্তা আন্তরিক হলেই দুর্ধষ এ ডাকাত দলে আর কারা কারা জড়িত ছিল তা ধৃত ডাকাতকে জিজ্ঞাসাবাদ করলেই বেরিয়ে আসতে পারে। এ ব্যাপারে তারা সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তার সুদৃষ্টি কামনা করেছেন। ঘটনার দিন রাতে ওই ডাকাতকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় আটকের পাশাপাশি একটি রাইফেল, ২টি কার্তুজ, ৭টি রাইফেলের গুলি, একটি গ্রীল কাটার যন্ত্র ও হাতুড়ী উদ্ধার করে পুলিশ।

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT